হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়
হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় লোগো.jpg
অবস্থান

স্থানাঙ্ক২৩°৪৫′৩০″ উত্তর ৯০°২৩′২৮″ পূর্ব / ২৩.৭৫৮৪° উত্তর ৯০.৩৯১২° পূর্ব / 23.7584; 90.3912স্থানাঙ্ক: ২৩°৪৫′৩০″ উত্তর ৯০°২৩′২৮″ পূর্ব / ২৩.৭৫৮৪° উত্তর ৯০.৩৯১২° পূর্ব / 23.7584; 90.3912
তথ্য
অন্য নামহলি ক্রস স্কুল (এইচসিএস)
ধরনবেসরকারী;মিশনারী
ধর্মীয় অন্তর্ভুক্তিক্যাথলিক চার্চ
(পবিত্র ক্রুশের ভগ্নি)
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৫১ (1951) সালে
বিদ্যালয় বোর্ডঢাকা শিক্ষা বোর্ড
প্রধান শিক্ষকরাণী ক্যাথরিন গোমেজ
অনুষদ৫৭
শ্রেণীশ্রেণী ১-১০
লিঙ্গবালিকা
ভর্তি১,৮০০
ক্যাম্পাসের ধরনশহর
রঙলাল এবং ধূসর
গানহে মোদের প্রিয় বিদ্যাপীঠ
ওয়েবসাইট

হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় বাংলাদেশের নারী শিক্ষার ক্ষেত্রে একটি খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বিদ্যালয়টি ঢাকার তেজগাঁও এলাকায় অবস্থিত।[১][২] এখানে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য তিন বিভাগেই শিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে। বিদ্যালয়ের ২ টি শিফটে প্রায় ১৮০০ জন ছাত্রী রয়েছে। শিক্ষাবছর জানুয়ারি থেকে শুরু হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৫৩ সালে বাংলাদেশে হলিক্রস সিস্টারদের আগমন ঘটে। ১৯৫১ সালে তেজগাঁও এলাকায় মারী, ফ্রান্সলিয়া ও রোজ বার্নার্ড মাত্র ২ জন ছাত্রী নিয়ে একটি কিন্ডারগার্টেন খোলেন। ঐ বছরই নভেম্বর মাসে এটিকে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করা হয়। সম্পূর্ণ ইংলিশ মাধ্যমে পড়ানো হলেও বাংলাকে পাঠ্য বিষয়ের অন্তর্গত রাখা হয়েছিল। ১৯৬৩ সালে বিদ্যালয়টিতে নবম শ্রেণীতে মানবিক বিভাগ চালু করা হয়; বিজ্ঞান বিভাগ আরম্ভ হয় ১৯৭০ সালে। মুক্তিযুদ্ধের পর ১৯৭২ সালে বিদ্যালয়টিকে সম্পূর্ণরূপে বাংলা মাধ্যমে পরিণত করা হয়। ১৯৭৯ সালে ছাত্র ভর্তি বন্ধ করে এটিকে সম্পূর্ণ বালিকা বিদ্যালয়ে পরিণত করা হয়।[৩] ১৯৯৮ সাল থেকে এখানে বাণিজ্য বিভাগ চালু করা হয়।

১৯৭১ সালের আগ পর্যন্ত স্কুলে ইংরেজি মাধ্যমে পাঠদান করা হত। বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পরে ১৯৭২ সাল থেকে স্কুলে বাংলা মাধ্যমে শিক্ষা প্রদান করা শুরু হয়।[৩]

সহশিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

  • বিভিন্ন ক্লাব: নির্ঝর আবৃত্তি সঙ্ঘ, বিতর্ক ক্লাব[৩], কুইজ ক্লাব, অঙ্কন ক্লাব, বিজ্ঞান ক্লাব-এন্ড্রোমিডা, ইংলিশ ক্লাব।[২]
  • বার্ষিক ম্যাগাজিন: মন্দিরা
  • গার্লস গাইড কার্যক্রম[২]
  • শিক্ষামূলক ছবি প্রদর্শনী, সেমিনার আয়োজন
  • ১৯৭২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত চালু রয়েছে ‘হলিক্রস লিটারারী প্রোগ্রাম’। প্রায় ৩০০ ছাত্রছাত্রী বিনামূল্যে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়তে পারে।
  • কারিতাস বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়নে এখানকার প্রতিটি ছাত্রীকে একজন নারী শ্রমিককে শিক্ষিত করার কাজে নিয়োজিত করা হয়।

অন্যতম প্রাপ্তি[সম্পাদনা]

  • ১৯৯৭ ও ২০০৩ সালে হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়টি সেরা জাতীয় বিদ্যালয়ের পুরস্কার পায়।[২]
  • হলিক্রস বিতর্ক ক্লাব ১৯৯৫ সালে জাতীয় টেলিভিশন বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রাইম মিনিস্টার গোল্ড কাপ অর্জন করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "HOLY CROSS GIRLS HIGH SCHOOL – Tejgaon, Dhaka"। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-১১ 
  2. "হলিক্রস গার্লস হাই স্কুল - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-১১ 
  3. "History of Holy Cross Girls Highs School – HOLY CROSS GIRLS HIGH SCHOOL" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]