স্বাস্থ্য ভূগোল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিশ্বব্যাপী 'হেপাটাইটিস এ'র বিস্তৃতি (২০০৫)।

স্বাস্থ্য ভূগোল হলো স্বাস্থ্য, রোগ এবং স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত অধ্যয়নের জন্য ভৌগলিক তথ্য, দৃষ্টিভঙ্গি এবং পদ্ধতিগুলির প্রয়োগ।

সারসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

স্বাস্থ্য ভূগোলের অধ্যয়ন চিকিত্‌সা মডেলের চেয়ে স্বাস্থ্যসেবাতে সামাজিক মডেলের দিকে ঝোঁক বদলের কারণে সামাজিক ভূগোলের ক্ষেত্রে চিকিত্‌সা ভূগোলের পরিবর্তে এটিতে প্রতিস্থাপনের জন্যে প্রভাবিত হয়েছে। এটি রোগ প্রতিরোধ ও চিকিত্‌সা থেকে দূরে থেকে স্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্যসেবা পুনর্নির্ধারণের পক্ষে কেবল সাধারণভাবে সুস্থ থাকাকে সমর্থন করে। এই মডেলটির অধীনে, পূর্ববর্তী কিছু অসুস্থতা (যেমন, মানসিক অসুস্থ স্বাস্থ্য) কেবল আচরণের ব্যাঘাত হিসাবে স্বীকৃত এবং অন্যান্য ধরনের ঔষধগুলি (যেমন, পরিপূরক বা বিকল্প চিকিৎসা এবং প্রচলিত ঔষধ) ঔষধ গবেষকদের দ্বারা অধ্যয়িত হয়, যাতে কখনও কখনও চিকিত্‌সা সম্পর্কিত শিক্ষা ছাড়াই স্বাস্থ্য ভূগোলবিদদের সহায়তা নেয়া হয়। এই পালা বদলটি যত্নের সংজ্ঞা পরিবর্তন করে, ফলে এটি আর হাসপাতাল বা ডাক্তারের কার্যালয়ের মতো সুনির্দিষ্ট সীমায় আবদ্ধ থাকেনি। এছাড়াও, সামাজিক মডেলটি অপ্রচলিত ঔষধ ব্যবহারের সুযোগগুলি এবং স্বাস্থ্যসেবাকে ও সেই সাথে ব্যক্তিকে স্বাস্থ্য ভোক্তা হিসাবে অগ্রাধিকার দেয়।[১]

এই বিকল্প পদ্ধতিগত পদ্ধতির মানে হলো চিকিত্‌সা ভূগোলটিকে মার্কসীয় রাজনৈতিক অর্থনীতি, কাঠামোগততা, সামাজিক আন্তঃবাদ, মানবতাবাদ, নারীবাদ এবং কৌতুহল তত্ত্বের মতো দর্শনকে সংযুক্ত করার জন্য প্রশস্ত করা হয়েছে।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

স্থান এবং স্বাস্থ্যের মধ্যে সম্পর্ক হিপ্পোক্রেটসের মাধ্যমেই শুরু হয়েছিলো, যিনি বলেছিলেন যে "বায়ু, জল, স্থান" সবই মানুষের স্বাস্থ্য এবং ইতিহাসকে প্রভাবিত করতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছে।[২] স্বাস্থ্য ভূগোল সম্পর্কিত একটি নিখুঁত গবেষণা ১৮৫৪ সালে করা হয়েছিল যখন লন্ডনের একটি পাড়া কলেরার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ে। চারিদিকে মৃত্যুর পরিমাণ বেড়ে যায় এবং লোকেরা আশঙ্কা করেছিল যে তারা মাটি থেকে উঠা বাষ্পের দ্বারা আক্রান্ত হচ্ছে। জন স্নো ভবিষ্যদ্বাণী করেন যে, তিনি যদি রোগের উত্‌সটি নির্ণয় করতে পারেন তবে এটি সীমাবদ্ধ স্থানেই কার্যকর থাকবে। তিনি কলেরাতে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের বাড়িঘর এবং জল পাম্পগুলির অবস্থান চিত্রিত করে একটি মানচিত্র আঁকেন। তিনি দেখতে পান যে ব্রড স্ট্রিটে অবস্থিত একটি পাবলিক পাম্প বেশিরভাগ ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষেত্রে কেন্দ্রভাগে অবস্থান করছে। তিনি উপসংহারে পৌঁছেলেন যে এই পাম্পের দূষিত পানিই রোগাক্রান্ত ক্ষেত্রে দায়ী। তিনি কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিলেন যেন পাম্পটির হ্যান্ডেলটি সরিয়ে ফেলা হয় যার ফলে এটি অকার্যকর হয়ে পড়বে। ফলস্বরূপ, নতুন কলেরা আক্রান্তের সংখ্যা হ্রাস পেতে থাকে।

ক্ষেত্র[সম্পাদনা]

স্বাস্থ্য ভূগোল অধ্যয়নের জন্য দুটি ক্ষেত্র অবলম্বন করা হয় :

  • রোগ এবং অসুস্থ স্বাস্থ্যের ভূগোল;
  • স্বাস্থ্যসেবা বিধানের ভূগোল।

সঞ্চারণশীলতা এবং রোগের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ[সম্পাদনা]

মোবাইল প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং এর বিস্তারের ফলে এখন ব্যক্তিক গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হচ্ছে। সুগম্য স্থাপনা বা অন্যান্য গতিবিধি পর্যবেক্ষণ পদ্ধতি ব্যবহার করে যন্ত্রগুলির গতিবিধি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে ব্যক্তির চলাচলের গতিবিধি জানার মাধ্যমে, এখন রোগের বিস্তারকে নির্ধারণ এবং এমনকি নিয়ন্ত্রণ করাও সম্ভব। যদি গোপনীয়তা সম্পর্কিত আইনগুলি ব্যক্তিদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করে সেক্ষেত্রে বাণিজ্যিক পরিষেবা সরবরাহকারী সংস্থাগুলো গোপন কৌশল ব্যবহার করে কিংবা কোনো কোনো ক্ষেত্রে ব্যক্তির চলাচলের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করার অনুমতি দেওয়ার জন্য সরকারের নিকট দাবী পেশ করে।

স্বাস্থ্য ভূগোলবিদ[সম্পাদনা]

উল্লেখযোগ্য স্বাস্থ্য ভূগোলবিদদের মধ্যে রয়েছে:

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Philo, Chris (2009). "Health and Health Care". In Gregory, Derek; Johnston, Ron; Pratt, Geraldine et. al The Dictionary of Human Geography (Fifth Edition). Oxford:Blackwell. pp.325-326
  2. Philo, Chris (2009). "Medical Geography". In Gregory, Derek; Johnston, Ron; Pratt, Geraldine et. al The Dictionary of Human Geography (Fifth Edition). Oxford:Blackwell. pp.451-453

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]