স্কার্লেট জোহ্যানসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(স্কার্লেট ইয়োহান্সন থেকে পুনর্নির্দেশিত)
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
স্কার্লেট জোহ্যানসন
The face of a smiling woman with blonde hair pulled back into a ponytail, wearing bright red lipstick, small gold hoop earrings, a heavy gold link chain around her neck, and a pink scoop necked shirt.
জানুয়ারি ২০০৮-এ স্কার্লেট জোহ্যানসন
জন্ম স্কার্লেট ইনগ্রিড জোহ্যানসন
(১৯৮৪-১১-২২) ২২ নভেম্বর ১৯৮৪ (বয়স ৩৩)
নিউ ইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র
পেশা অভিনেত্রী, গায়িকা, গীতিকার
কার্যকাল ১৯৯৪–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গী রায়ান রেনল্ডস (বি. ২০০৮–১১)
রোমান ডোরিয়াক (বি. ২০১৪–১৭)
সন্তান

স্কার্লেট ইনগ্রিড জোহ্যানসন (ইংরেজি: Scarlett Johansson /dʒoʊˈhænsən/; জন্ম: ২২ নভেম্বর, ১৯৮৪) একজন মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও গায়িকা। তিনি ২০১৪ থেকে ২০১৬ সালে বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতনভোগী অভিনেত্রী ছিলেন, ফোর্বস সাময়িকীর সেরা ১০০ বিনোদনদাতার তালিকায় কয়েকবার অন্তর্ভুক্ত হন এবং তার নামে হলিউড ওয়াক অব ফেমে একটি তারকা রয়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটির ম্যানহাটনে জন্ম ও বেড়ে ওঠা জোহ্যানসন শৈশব থেকে অভিনেত্রী হওয়ার আকাঙ্ক্ষা লালন করেন এবং অফ-ব্রডওয়ের একটি মঞ্চনাটকে শিশু অভিনেত্রী হিসেবে অভিনয় করেন। তার চলচ্চিত্র অভিষেক হয় ফ্যান্টাসিধর্মী হাস্যরসাত্মক নর্থ (১৯৯৪) চলচ্চিত্র দিয়ে। ১৯৯৬ সালে তিনি ম্যানি অ্যান্ড লো (১৯৯৬) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য একটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। জোহ্যানসন দ্য হর্স হুইস্পারার (১৯৯৮) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে প্রসিদ্ধি লাভ করেন এবং তার প্রথম সফল চলচ্চিত্র ভূমিকা ছিল ঘোস্ট ওয়ার্ল্ড (২০০১) চলচ্চিত্রের রেবেকা চরিত্র।

২০০৩ সালে তিনি প্রাপ্তবয়স্ক অভিনেত্রীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। এ বছর লস্ট ইন ট্রান্সলেশনগার্ল উইথ আ পার্ল ইয়ারিং ছবি দুটিতে বহুল-আলোচিত ও সমালোচক কর্তৃক সমাদৃত চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি দুটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন পান। এছাড়া আ লাভ সং ফর ববি লং (২০০৪) চলচ্চিত্রে কিশোরী চরিত্রে এবং মনস্তাত্বিক থ্রিলারধর্মী ম্যাচ পয়েন্ট (২০০৫) চলচ্চিত্রে যৌন আবেদনময়ী একটি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি আরও দুটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এই সময়ের তার আর কয়েকটি চলচ্চিত্র হন দ্য প্রেস্টিজ (২০০৬), হাস্যরসাত্মক নাট্যধর্মী ভিকি ক্রিস্টিনা বার্সেলোনা (২০০৮)। পাশাপাশি তিনি অ্যানিহোয়ার আই লে মাই হেড (২০০৮) ও ব্রেক আপ (২০০৯) শীর্ষক দুটি গানের অ্যালবাম প্রকাশ করেন। দুটি অ্যালবামই বিলবোর্ড ২০০ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়। তিনি মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সনাতাশা রোমানফ / ব্ল্যাক উইডো চরিত্রের অভিনয় করছেন ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]