সোহিনী আলম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সোহিনী আলম
জন্ম লন্ডন, ইংল্যান্ড
পেশা সঙ্গীতশিল্পী
সহযোগী শিল্পী ক্ষ, লক্ষী টেরা, কমলা কালেক্টিভ

সোহিনী আলম (ইংরেজি: Sohini Alam) একজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভুদ ব্রিটিশ সঙ্গীতশিল্পী[১]

শৈশব[সম্পাদনা]

সোহিনী যুক্তরাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন এবং লন্ডন এবং বাংলাদেশের ঢাকায় বেড়ে উঠেন। তার জন্ম সংগীত পরিবারে এবং তিনি তার মা হিরন আলম ও তার খালা জান্নাত আরা ও ফেরদৌস আরা’র কাছে গান শিখেন। তিনি বর্তমানে নজরুল সঙ্গীতে বাংলাদেশী শিল্পীদের মধ্যে পথিকৃৎ। সোহিনী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আঙ্গলো স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন।

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

রুনি স্কটের স্টেজে সোহিনী আলম (বাম থেকে ২য়)

কন্ঠশিল্পী হিসেবে, সোহিনী গান গেয়েছেন নাচ, থিয়েটার এবং সিনেমার জন্য। তিনি ““ক্ষ”” এবং “লক্ষীটেরা” প্রধান কন্ঠশিল্পী।[২][৩] তিনি আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন স্টেজে, রেডিওতে এবং টেলিভিশনে কাজ করেছেন। সোহিনী কারুকাজ প্রতিষ্ঠান “কমলা কালেক্টিভ” এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য[৪] এবং ইভেন্ট কোম্পানী “রাগা টু রেগি” এর তত্ত্বাবধায়ক। সোহিনী প্রাথমিকভাবে নজরুল সঙ্গীতে উপর প্রশি”ক্ষ”ণ নেন, কিন্তু তার শাখা-প্রশাখা লোক সঙ্গীত, রবীন্দ্র সঙ্গীত এবং আধুনিক সঙ্গীতে ছড়িয়ে পড়ে। তিনি প্রধানত বাংলায় গান করেন কিন্তু এর শৈল্পিকদিক বিবেচনা করে তিনি বাংলা গানকে ইংরেজীতে রুপান্তর করে গান। ইংরেজী/স্প্যানিশে লক্ষী টেরা এবং ইংরেজী/হিন্দিতে কঞ্জুস-দ্য মাইজার (Kanjoos-The Miser), ডিক ইউটিংটন গোস বলিউড (Dick Whittington Goes Bollywood) এবং বলিউড সিন্ড্রেলা (Bollywood Cinderella) -তে গান করেন। তিনি তামিল ও রোম ভাষায় নাগিন সুরে গানও গেয়েছেন।

ব্যান্ডস[সম্পাদনা]

কিশোন-খানের একটি আফ্রো-কিউবান-বাংলা ব্যান্ড “লক্ষী টেরা”-র প্রধান কন্ঠশিল্পী হিসেবে সোহিনী ২০১০ সালে ঢাকায়সাউথ এশিয়ান গেমসের” সমাপনী অনুষ্ঠানে এবং ২০১১ সালে ঢাকা মিউজিক ফেস্টিভালে গান পরিবেশন করেন।[৫] ২০১১ সালে লক্ষী টেরা ব্যান্ডের সাথে তিনি WOMAD এ গান পরিবেশন করেন,[৬] “রুনি স্কট জায ক্লাব”-এর প্রধান স্টেজে দুইবার সঙ্গীত পরিবেশন করেন এবং ২০১২ সালে “বার্বিকান সেন্টার”-এ “আফ্রো-কিউবান অল স্টারস” খোলেন।[৭] সোহিনী লক্ষী টেরা ব্যান্ড থেকে দুইটি এলবাম বের করেন। একটি “নো ভিসা রিকোয়ারড” (No Visa Required) এবং অন্যটি “চে গুয়েভারার ডায়রী” (Che Guava's Rickshaw Diaries)। তার দ্বিতীয় এলবাম “চে গুয়েভারার ডায়রী” (Che Guava's Rickshaw Diaries) বিশ্ব সঙ্গীত ম্যাগাজিন “সংলাইন্স” (Songlines) এর মতামত দেয়। ম্যাগাজিনটি লেখেঃ

“This good-natured London-based collective are now widely acknowledged as an international force to be reckoned with.[৮]

২০০৭ সালে অলিভার উইক’স এর সাথে সোহিনী ““ক্ষ”” নামের একটি ব্যান্ড গঠন করে। এই ব্যান্ডের অন্যান্য সদস্যরা হলেন, বেন হিলইয়ার্ড এবং ডেরেল স্ক্রাল। “ক্ষ” ব্যান্ড হারানো দিনের গানগুলো সমসাময়িক সুরে পরিবেশন করত। এই ব্যান্ডটি “অর্নব” সাথে ২০০৮ সালে “দৃষ্টিপাত” এর আয়োজনে লন্ডনে একটি কনসার্ট করে।[৯] “ক্ষ” তার প্রথম এলবামের জন্য কাজ করে এবং ২০১২ সালের মার্চে তারা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরেরআমার সোনার বাংলা” গানটি প্রথমে বের করে।[১০] ২০১২ সালে র ডিসেম্বরে, এই গানের ভিডিও প্রকাশ করা হয়। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিশেষ করে বাংলাদেশী সংবাদপত্র, টেলিভিশন চ্যানেল এবং রেডিওসহ অন্যান্য গণমাধ্যমে স্থান পায়। এর ফলে বাংলাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পীরা ব্যান্ডের এই গান নিয়ে অনেক আলোচনা করে, যা কিনা বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত[১১] ২০১৩ সালের এপ্রিলে, “ক্ষ” ব্যান্ড “অ্যালকেমী ফেস্টিভ্যল” –এর অংশ হিসেবে সাউথ ব্যাঙ্ক সেন্টারের পার্সেল হলে সঙ্গীত পরিবেশন করে।[১২]

নাচ, থিয়েটার ও সিনেমার জন্য গান[সম্পাদনা]

সোহিনী সুরকার জোসিলিন পুক এবং নৃত্যশিল্পী/নৃত্যপরিকল্পনাকারী আকরাম খানের সাথে কাজ করেন।[১৩] তার গাওয়া নাচের গান “দেশ” “অলিভার পুরষ্কার” জিতে। তার সঙ্গীতের কাজ যুক্তরাজ্যের পালস ম্যাগাজিন কর্তৃক প্রসংশিত হয়। তিনি আকাদেমী’র “সং অব দ্য সিটি” র জন্যেও কন্ঠ দেন, যা ২০১১ সালে সাউথওয়ার্ক প্লেহাউজে পরিবেশিত হয়[১৪] সোহিনী বিভিন্ন থিয়েটারে কন্ঠশিল্পী হিসেবে জড়িত। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ

  • কঞ্জুস, হারদিপ সিং কোহলী এবং তারা আর্টসের যৌথ উদ্যোগ মলিয়ার্স দ্য মাইজার (Molière's The Miser)। ২০১৩ সালের যুক্তরাজ্য পরিভ্রমণের পূর্বে ২০১২ সালে তারায় যার প্রথম পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।
  • ডিক উইটিংটন গো’স বলিউড, হারভেয় ভৃদি এবং তারা আর্টসের ক্রিস্মাস প্যান্টোমাইম-এর যৌথ উদ্যোগ। ২০১২ সালে তারায় প্রথম পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।
  • বলিউড সিন্ড্রেলা, হারদিপ সিং কোহলী এবং তারা আর্টসের ক্রিস্মাস প্যান্টোমাইম-এর যৌথ উদ্যোগ। ২০১১ সালে তারায় প্রথম পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।
  • দ্য পিপল’স রোমিও, উইলিয়াম সেক্সপিয়রের রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট অবলম্বনে। যার প্রথম পরিবেশনা তারায় ২০১০ এ যুক্তরাজ্য পরিভ্রমণের পূর্বে অনুষ্ঠিত হয়।[১৫]'[১৬]

সোহিনী কাজ এই চারটি প্রযোজনা সংস্থা কর্তৃক প্রসংশিত হয়েছিল। তার কাজ সম্পর্কে ডিক উইটিংটন গো’স বলিউড, দ্য স্টেজ লেখেনঃ “Alam creates a transcendent soundscape that taps as much into the spirituality as the silliness of this time of year.”

ইউকে থিয়েটার নেটওয়ার্ক তার কঞ্জুস সম্পর্কে মতামত দেয়, “singer Sohini Alam takes us to a different level as her rich voice encompasses everything from jazz and scat singing and pop to traditional Indian songs.”[১৭]

বলিউড সিন্ড্রেলায় তার পরিবেশনা সম্পর্কে “দ্য পাবলিক রিভিউ” লেখে। তা হলঃ “the key person in all of this was the singer...Sohini Alam, who sang for every single character as they mimed the words. What a powerful voice and what great use of styles, tone and register.”[১৮]

তাকে অন্যান্য আরো কিছু প্রোডাকশনেও সঙ্গীত পরিবেশন করতে দেখা যায়। উল্লেখযোগ্য হলঃ

  • বিরঙ্গনাঃ ইউমেন অব ওয়ার (Women of War), একটি কমলা কালেক্টিভ প্রোডাকশন। যাতে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বীরাঙ্গনাদের নিয়ে কাজ করে।
  • জাস্ট সো, ফার্‌রুক ধন্দী কর্তৃক পরিচালিত “রুদইয়ার্ড কিপ্লিং” এর “জাস্ট সো স্টোরিস” ভিত্তিক একটি গীতিনাট্য সংস্থা। যার প্রথম পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয় ২০১২ সালে রিভার সাইড স্টুডিওসে।
  • এ গোল্ডেন এইজ, “তাহমিমা আনামের” একটি স্টেজ প্রোগ্রাম। ২০১০ সালে সাউথ ব্যাঙ্ক সেন্টারে যার একটি পরিবেশনা পুরষ্কার জিতে।
  • দ্য ডেমন’স রিভেঞ্জ, বাংলা মহাকাব্য “মেঘনাদবধ কাব্য” ভিত্তিক একটি পরিবেশনা, যা অনুষ্ঠিত হয় ২০১০ সালে।

তিনি একটি প্রামাণ্য চিত্র “DOTS” এবং দুইটি সিনেমার জন্য গান করেন। সিনেমা দুইটি হল “দ্য লাস্ট ঠাকুর (২০০৮) ”[১৯] এবং “লাইফ গোস অন (২০০৯)“।

রেডিও, টেলিভিশন, স্টেজ শো এবং যৌথ পরিবেশনা[সম্পাদনা]

সোহিনীকে নিয়ে বিবিসি রেডিও কয়েকটি অনুষ্ঠান পরিবেশনা করেছে, যেমন World on 3, The Verb, Introducing with Tom Robinson, এবং বিবিসি এশিয়ান নেটওয়ার্কে টমি সান্ধু’র breakfast show। ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকসের সময় বিবিস লন্ডন, বিবিসি রেডিও বাংলা সার্ভিস এবং বিবিসি ৫ তে তার উপস্থিতি পরিক্ষিত হয়।[২০][২১]

তাকে বাংলাদেশযুক্তরাজ্যের বাংলা টিভি চ্যানেল যেমনঃ বাংলা টিভি, চ্যানেল এস, দেশ টিভি,এটিএন বাংলা এবং চ্যানেল আই তে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখা যায়। সাউথ এশিয়ান গেমসে তার পরিবেশনা সমগ্র দক্ষিণ এশিয়াতে প্রচারিত হয়। তিনি বাংলাদেশ, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, সুইডেন এবং স্পেনে বিভিন্ন স্টেজে গান পরিবেশন করেছেন। সঙ্গীত দল “আমরা ক জন” এর অংশ হিসেবে, ২০০৩ এবং ২০০৮ সালে তিনি বোস্টনে দুইটি এবং ২০১০ সালে লন্ডনে বিশাল কনসার্ট করেছেন। তিনি ২০০৬ থেকে ২০০৯ সালের মধ্যে দৃষ্টিপাতের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন। ২০১০ সালে লন্ডনের বাংলা সংস্কৃতির বিশাল উৎসব বৈশাখী মেলাতেও তিনি গান পরিবেশন করেছেন।

সোহিনী ব্রিটিশ-এশিয়ান বংশীবাদক অরূন ঘোষের সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পরিবেশনা করেছেন, যেমনঃ ডার্টিংটন ঠাকুর ফেস্টিভাল, দ্য ফিউশন এশিয়া ফেস্টিভাল এবং দ্য এলকেমী ফেস্টিভাল।[২২][২৩][২৪] তিনি বাংলাদেশী শিল্পী লাবিক কামাল গৌরবের সাথেও কাজ করেছেন, তারা যৌথভাবে ২০১০ সালে তারা আর্টসে একটি সঙ্গীত অনুষ্ঠানও করেন। তিনি বাংলাদেশী বেসরকারী সংস্থা (NGO) ব্র্যাক কর্তৃক মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা গানের এলবাম “নারী” তেও গান গেয়েছেন।[২৫][২৬]

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

সোহিনী নিম্নের এলবামগুলো সঙ্গীত পরিবেশন করেছেন

এলবাম পরিকল্পনাকারী বছর
চে গ্যেভার’র বিক্সা ডাইরিস(Che Guava’s Rickshaw Diaries) লক্ষী টেরা ২০১২
লন্ডনস কলিং (London’s Calling) লক্ষী টেরা ২০১২
নারী(Nari) ব্রাক ২০১২
দেশ (Desh) সাউন্ডট্রাক ২০১১
লাইফ গো’স অন(Life Goes On) সাউন্ডট্রাক ২০১০
এ বি বিগেনা’র গাইড টু ইন্ডিয়া(A Beginner’s Guide To India) লক্ষী টেরা ২০১০
নো ভিসা রিকোয়ার্ড(No Visa Required) লক্ষী টেরা ২০১০

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Weekend Bengali with Anwarul Hoque, BBC Asian Network"। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  2. "Khiyo at Tara Studio"। OffWestEnd। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  3. "Lokkhi Terra at Ronnie Scott’s"। Ronnie Scott’s। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১২ 
  4. "Komola Collective"
  5. "Lokkhi Terra and Guests at South Asian Games Closing Ceremony"। NME.com। ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১০। সংগৃহীত ৩ এপ্রিল ২০১২ 
  6. "Lokkhi Terra at WOMAD"। Woman। ২৯ জুলাই ২০১১। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  7. "Afro-Cuban All Stars and Lokkhi Terra at the Barbican Centre"। Barbican। ২৫ এপ্রিল ২০১২। সংগৃহীত ২ মে ২০১২ 
  8. Cornwell, Jane (৯ আগস্ট ২০১২)। "Top of the World Review: Lokkhi Terra – Che Guava’s Rickshaw Diaries"Songlines। সংগৃহীত ১৮ অক্টোবর ২০১২ 
  9. "Unheard Voices Tour"। Drishtipat। ২০০৮। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 
  10. "Khiyo's Amar Shonar Bangla"। Khiyo। সংগৃহীত ৩ মে ২০১২ 
  11. "Rising Stars - Khiyo"
  12. "Khiyo at the Southbank Centre" 
  13. "DESH (2011)"। Akram Khan Company। সংগৃহীত ২৮ মার্চ ২০১২ 
  14. "Song of the City at Southwark Playhouse"। London SE1। ৫ আগস্ট ২০১১। সংগৃহীত ২৮ মার্চ ২০১২ 
  15. Gardner, Lyn (১ অক্টোবর ২০১০)। "People's Romeo"The Guardian। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  16. "Review of Dick Whittington Goes Bollywood - The Stage"
  17. "Miser Review - UK Theatre Network"
  18. "Bollywood Cinderella"। The Public Reviews। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  19. "The Last Thakur"The New York Times। সংগৃহীত ২৮ মার্চ ২০১২ 
  20. "Introducing with Tom Robinson"BBC Radio 6। ৩১ জানুয়ারি ২০১২। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 
  21. "Sohini Alam Interview with Ameet Chana"BBC Asian Network। ১২ ডিসেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ২৭ মার্চ ২০১২ 
  22. "Arun Ghosh ft. Sohini Alam at the Tagore Festival"। Dartington। ৭ এপ্রিল ২০১১। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 
  23. "Arun Ghosh ft. Sohini Alam at Fusion Asia"। Fusion Asia। ২০১১। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 
  24. "Arun Ghosh ft. Sohini Alam at Alchemy" 
  25. "Sohini Alam and Labik Kamal Concert, Tara Studio"। Chilli Tickets। ২৬ মে ২০১০। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 
  26. "BRAC releases star-studded musical album"। BRAC। ৮ মার্চ ২০১২। সংগৃহীত ২৯ মার্চ ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]