সেলিনা বানু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সেলিনা বানু
সেলিনা বানু.jpg
জন্ম(১৯২৬-১০-১২)১২ অক্টোবর ১৯২৬
মৃত্যু২৬ জানুয়ারি ১৯৮৩(1983-01-26) (বয়স ৫৬)
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারতীী (১৯২৬–১৯৪৭)
পাকিস্তানি (১৯৪৭–১৯৭১)
বাংলাদেশী (১৯৭১–১৯৮৩)
পেশারাজনীতিবিদ, সামাজিক কর্মী

সেলিনা বানু (১২ অক্টোবর ১৯২৬ – ২৬ জানুয়ারি ১৯৮৩) একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ, সামাজিক কর্মী, এবং নারীবাদী ছিলেন।[১][২]

সংক্ষিপ্ত জীবনী[সম্পাদনা]

বনুর জন্ম ১৯২৬ সালের ১২ অক্টোবর পাবনা জেলা, পূর্ব বাংলা, ব্রিটিশ রাজ্যে। তার পিতা ওয়াশিম উদ্দিন আহমদ বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য ছিলেন। তিনি কমিউনিস্ট স্টাডি গ্রুপ যোগদান করেন। তিনি ১৯৪৩ সালে পাবনা গার্লস স্কুল থেকে এবং ১৯৪৫ সালে পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে স্নাতক হন। ১৯৪৯ সালে তিনি পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর করেন। ১৯৬১ সালে তিনি ঢাকা টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে স্নাতক হন। ১৯৪৩ সালের বাঙালি দুর্ভিক্ষের সময় মহিলা আত্ম-প্রতিরক্ষা সমিতির পরিচালিত খাদ্য ও আশ্রয়স্থলগুলিতে তিনি কাজ করেন।[৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

বানু পাবনা সরকারি গার্লস স্কুলে শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। তিনি ১৯৫৩ সালে আওয়ামী লীগে যোগ দেন এবং প্রাদেশিক কমিটির মহিলা সচিব নির্বাচিত হন। তিনি পরের বছরের পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক পরিষদে নির্বাচিত হন। তিনি ইলা মিত্রের পুলিশ চিকিত্সার সমালোচনা করেছিলেন এবং তাকে জিজ্ঞাসা করার জন্য আটক করা হয়েছিল। তিনি আওয়ামী লীগের জাতীয় কেন্দ্রীয় কমিটিতে নির্বাচিত হন। পরে তিনি রংপুর সরকারি গার্লস স্কুলের শিক্ষক এবং ১৯৫২ থেকে ১৯৬৪ পর্যন্ত নরি শেখা মন্দিরে শিক্ষক হিসেবে কাজ করবেন। তিনি পাবনা সেন্ট্রাল গার্লস স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।[৩]

তিনি ১৯৬৪ সালে প্রধানমন্ত্রীর ফরিদা বিদাতন স্কুলে যোগদান করেন। ১৯৬৭ সালে তিনি জাতীয় আওয়ামী পার্টির মস্কো সংলগ্ন অংশে যোগ দেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ডা। মোহাম্মদ শামসুজ্জোহা নিহত হওয়ার পর তিনি ১৯৬৯ সালে কুমিল্লায় একটি প্রতিবাদ সভাপতিত্ব করেন। বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে তিনি সল্ট লেক শহর এবং আগরতলা শরণার্থী ক্যাম্পে কাজ করেন।[৩][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ""When the war was over, our struggle ended but the struggle of the Biranganas had just begun.""The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২৬ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৭ 
  2. "War hero Selina fought for repression-free society"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ মে ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৭ 
  3. Siddiqui, Mamun। "Banu, Selina"en.banglapedia.org (ইংরেজি ভাষায়)। Banglapedia। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৭ 
  4. "Freedom fighter Shirin Banu passes away"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২২ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৭