সূর্যনগর রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সূর্যনগর রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশের রেলওয়ে স্টেশন
অবস্থানরাজবাড়ী জেলা, ঢাকা বিভাগ
 বাংলাদেশ
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালিতবাংলাদেশ রেলওয়ে
লাইনপোড়াদহ-কালুখালী-গোয়ালন্দ ঘাট লাইন
প্ল্যাটফর্ম
ট্রেন পরিচালকপশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে
নির্মাণ
গঠনের ধরনমানক
পার্কিংআছে
সাইকেলের সুবিধাআছে
প্রতিবন্ধী প্রবেশাধিকারআছে
ইতিহাস
চালু১৮৭১
অবস্থান

সূর্যনগর রেলওয়ে স্টেশন বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের রাজবাড়ী জেলা জেলার একটি রেলওয়ে স্টেশন[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৬২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর ইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে কলকাতা থেকে রাণাঘাট পর্যন্ত রেলপথ উদ্বোধন করে। এই লাইনকেই বর্ধিত করে ১৫ নভেম্বর ১৮৬২ সালে দর্শনা থেকে জগতী পর্যন্ত ৫৩.১১ কিমি ব্রডগেজ (১,৬৭৬ মিমি) রেললাইন শাখা উন্মোচন করা হয়। কুষ্টিয়া থেকে পদ্মার পাড়ে (পদ্মা ও যমুনার সংযোগস্থল) অবস্থিত অভ্যন্তরীণ নদীবন্দর গোয়ালন্দ ঘাট পর্যন্ত ৭৫ কিমি দীর্ঘ রেললাইন উদ্বোধন করা হয় ১ জানুয়ারি ১৮৭১ সালে।[৩][৪] এসময় কুষ্টিয়া(জগতি) থেকে গোয়ালন্দ ঘাট লাইনের স্টেশন হিসেবে সূর্যনগর রেলওয়ে স্টেশন তৈরি করা হয়।

পরিষেবা[সম্পাদনা]

সূর্যনগর রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে যেসকল ট্রেন চলাচল করে নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো:

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ট্রেন চালু করে স্টেশনে চা খাচ্ছিলেন চালক : চালকবিহীন ট্রেন চলল ২৬ কি.মি."The Daily Sangram। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  2. "৩৭টি পদ, স্টেশনমাস্টার আছেন মাত্র আটজন"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  3. "রেলওয়ে - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  4. "কুষ্টিয়ায় দেশের প্রথম রেলওয়ে 'জগতি স্টেশন' বেহাল | সারাদেশ | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২