সুলাইমান ইবনে আবদুল্লাহ ইবনে তাহির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সুলাইমান ইবনে আবদুল্লাহ ইবনে তাহির (আরবি: سليمان بن عبد الله بن طاهر‎‎) ছিলেন ৯ম শতাব্দীতে আব্বাসীয় খিলাফতের একজন তাহিরি কর্মকর্তা। তিনি তাবারিস্তানের শেষ তাহিরি গভর্নর ছিলেন। হাসান ইবনে জায়েদের বিদ্রোহের ফলে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত তিনি সেখানে শাসন করেছেন। এরপর তিনি বাগদাদের গভর্নর হিসেবে নিয়োগ পান। ৮৭৯ সালে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি এই পদে ছিলেন।[১]

তাবারিস্তানের গভর্নর[সম্পাদনা]

সুলাইমান ছিলেন আবদুল্লাহ ইবনে তাহির আল-খোরাসানির পুত্র। ইবনে ইসফান্দিয়ারের মতে তিনি ৮৫১ বা ৮৫৪ সালে তাবারিস্তানের গভর্নর হিসেবে নিয়োগ পান। তার শাসনামলে তিনি তার ডেপুটি মুহাম্মদ ইবনে আওস আল-বলখির প্রভাবাধীন হয়ে পড়েন। মুহাম্মদ ইবনে আওস নিজ পরিবারের সদস্যদের প্রদেশের শহর ও জেলার গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন। এসবের ফলে স্থানীয় জনগণের মধ্য বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় এবং শীঘ্রই সুলাইমানের প্রশাসনের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত করারোপ ও স্বৈরাচারের অভযোগ উঠে।[২]

৮৬৪ সাল নাগাদ প্রদেশের পশ্চিমের জেলাগুলোতে বিদ্রোহ দেখা দেয়। বিদ্রোহীরা আলি বংশীয় হাসান ইবনে জায়েদকে নেতা ঘোষণা করে এবং শীঘ্রই শক্তিশালী হয়ে উঠে। তারা তাবারিস্তান ও প্রতিবেশি দাইলামের বাসিন্দাদের সমর্থন পায়। ইবনে আওসকে যুদ্ধে পরাজিত করার পর তারা ৮৬৪ সালের নভেম্বরে আমুলে প্রবেশ করে এবং এরপর সারিয়ার দিকে অগ্রসর হয়। সুলাইমান এখানে অবস্থান করছিলেন। শেষপর্যন্ত সুলাইমান তাবারিস্তান ত্যাগ করে জুরজান চলে আসেন।[৩]

জুরজান আসার পর তিনি সৈনিকদের পুনরায় সংগঠিত করা শুরু করেন এবং তার ভ্রাতুষ্পুত্র ও খোরাসানের গভর্নর মুহাম্মদ ইবনে তাহিরের কাছে সাহায্য চান। এরপর তিনি তাবারিস্তানের দিকে অগ্রসর হন এবং ৮৬৫ সালে বিদ্রোহীদের পরাজিত করে প্রদেশের অধিকাংশ পুনরুদ্ধার করেন। তবে এই সাফল্য বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। পরাজিত হওয়ার ফলে তিনি পুনরায় জুরজান চলে যান। বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে আরেকটি অভিযান হলেও তা ব্যর্থ হয়।[৪]

বাগদাদের গভর্নর[সম্পাদনা]

৮৬৯ সালে সুলাইমান বাগদাদের নিরাপত্তা প্রধান হিসেবে নিয়োগ পান। ইতিপূর্বে তার ভাই উবাইদুল্লাহ ইবনে আবদুল্লাহ ইবনে তাহির এই পদে ছিলেন।[৫] নিয়োগ পাওয়ার পর তাকে বাগদাদের গোলযোগপূর্ণ পরিস্থিতি সামাল দিতে হয়।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

সুলাইমান ৮৭৯ সালের আগস্ট বা সেপ্টেম্বরে মারা যান। তার পদে উবাইদুল্লাহ ইবনে আবদুল্লাহকে নিয়োগ দেয়া হয়।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bosworth 1996, পৃ. 168।
  2. Ibn Isfandiyar 1905, পৃ. 157-58; Al-Tabari 1985–2007, v. 35: pp. 21-22, who adds that part of the Tahirid abuses in Tabaristan were caused by agents of Muhammad ibn Abdallah ibn Tahir, who had estates in the districts that later formed the nucleus of the revolt.
  3. Ibn Isfandiyar 1905, পৃ. 162-67; Al-Tabari 1985–2007, v. 35: pp. 22-25; Al-Mas'udi 1873, পৃ. 395; Bosworth 1975, পৃ. 102-03.
  4. Ibn Isfandiyar 1905, পৃ. 167-73; Al-Tabari 1985–2007, v. 35: pp. 63-64.
  5. Al-Tabari 1985–2007, v. 35: p. 161; Al-Ya'qubi 1883, পৃ. 613.
  6. Al-Tabari 1985–2007, v. 37: pp. 1, 2. Excepting the account of his death and a mention at v. 36: p. 72, al-Tabari is silent on Sulayman's activities between 869 and 879. According to Hamzah al-Isfahani 1844, পৃ. 181-82, Sulayman was dismissed as governor by 873. See also Guest 1944, পৃ. 14.
পূর্বসূরী
উবাইদুল্লাহ ইবনে আবদুল্লাহ ইবনে তাহির
বাগদাদের তাহিরি গভর্নর
৮৬৯–৮৭৯
উত্তরসূরী
উবাইদুল্লাহ ইবনে আবদুল্লাহ ইবনে তাহির