সুদিরমান কাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুদিরমান কাপ
চলতি মৌসুমে বা প্রতিযোগিতায়:
২০২১ সুদিরমান কাপ
খেলাব্যাডমিন্টন
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৮৯
দলের সংখ্যা১৬ (অন্তিম পর্ব)
মহাদেশবিশ্ব
বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চীন (১২শ শিরোপা)
সর্বোচ্চ শিরোপা চীন (১২টি শিরোপা)
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটসুদিরমান কাপ

সুদিরমান কাপ হল জাতীয় মিশ্র ব্যাডমিন্টন দলগুলির মধ্যে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা। প্রাক্তন ইন্দোনেশীয় ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ডিক সুদিরমান-এর এই প্রতিযোগিতার সূচনা ঘটে। এর প্রতিটা ম্যাচে একটি পুরুষ একক, একটি মহিলা একক, একটি পুরুষ দ্বৈত, একটি মহিলা দ্বৈত ও একটি মিশ্র দ্বৈত ইভেন্ট থাকে। ১৯৫৯ সালে প্রতিষ্ঠার সময় থেকে এটি দুই বছর অন্তর অন্তর খেলা হয়। এটি ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন কর্তৃক পরিচালিত হয়। ২০০৩ সালে এটিকে বিডব্লিউএফ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে আলাদা করা হয়।[১]

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের কোন পুরস্কার মূল্য দেওয়া হয় না বরং তারা তাদের দেশের সম্মান বৃদ্ধি করে এবং বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে স্থান উন্নত করে।

ট্রফি[সম্পাদনা]

সুদিরমান কাপ ৮০ সেন্টিমিটার উঁচু। এটি ২২ ক্যারেট (৯২%) স্বর্ণাবৃত কঠিন রূপা দিয়ে তৈরি এবং জাটি কাঠ (জাভা সেগুন কাঠ) দিয়ে তৈরি একটি অষ্টভুজাকার ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে আছে।

কাপের দেহটি একটি শাটলককের আকারে এবং বরোবুদুর মন্দিরের একটি প্রতিরূপ দ্বারা উপরে মাউন্ট করা হয়েছে। হাতলগুলি পুংকেশরের আকারের, যা ব্যাডমিন্টনের বীজের প্রতীক।

US$১৫,০০০ মূল্যে মাস্টারিক্স ব্যান্ডুং কোম্পানি এই কাপটি তৈরি করেছিল।

ফলাফল[সম্পাদনা]

বছর আয়োজক ফাইনাল সেমি-ফাইনালে পরাজিত
চ্যাম্পিয়ন ফলাফল রানার্স-আপ
১৯৮৯ জাকার্তা, ইন্দোনেশিয়া
ইন্দোনেশিয়া
৩–২
দক্ষিণ কোরিয়া

চীন

ডেনমার্ক
১৯৯১ কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক
দক্ষিণ কোরিয়া
৩–২
ইন্দোনেশিয়া

চীন

ডেনমার্ক
১৯৯৩ বার্মিংহাম, ইংল্যান্ড
দক্ষিণ কোরিয়া
৩–২
ইন্দোনেশিয়া

চীন

ডেনমার্ক
১৯৯৫ লোজান, সুইজারল্যান্ড
চীন
৩–১
ইন্দোনেশিয়া

ডেনমার্ক

দক্ষিণ কোরিয়া
১৯৯৭ গ্লাসগো, স্কটল্যান্ড
চীন
৫–০
দক্ষিণ কোরিয়া

ডেনমার্ক

ইন্দোনেশিয়া
১৯৯৯ কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক
চীন
৩–১
ডেনমার্ক

ইন্দোনেশিয়া

দক্ষিণ কোরিয়া
২০০১ সেভিয়া, স্পেন
চীন
৩–১
ইন্দোনেশিয়া

ডেনমার্ক

দক্ষিণ কোরিয়া
২০০৩ এইন্থোভেন, নেদারল্যান্ডস
দক্ষিণ কোরিয়া
৩–১
চীন

ডেনমার্ক

ইন্দোনেশিয়া
২০০৫ বেজিং, চীন
চীন
৩–০
ইন্দোনেশিয়া

ডেনমার্ক

দক্ষিণ কোরিয়া
২০০৭ গ্লাসগো, স্কটল্যান্ড
চীন
৩–০
ইন্দোনেশিয়া

ইংল্যান্ড

দক্ষিণ কোরিয়া
২০০৯ কুয়াংচৌ, চীন
চীন
৩–০
দক্ষিণ কোরিয়া

ইন্দোনেশিয়া

মালয়েশিয়া
২০১১ ছিংতাও, চীন
চীন
৩–০
ডেনমার্ক

ইন্দোনেশিয়া

দক্ষিণ কোরিয়া
২০১৩ কুয়ালালামপুর, মালয়েশিয়া
চীন
৩–০
দক্ষিণ কোরিয়া

ডেনমার্ক

থাইল্যান্ড
২০১৫ তুংকুয়ান, চীন
চীন
৩–০
জাপান

ইন্দোনেশিয়া

দক্ষিণ কোরিয়া
২০১৭ গোল্ড কোস্ট, অস্ট্রেলিয়া
দক্ষিণ কোরিয়া
৩–২
চীন

জাপান

থাইল্যান্ড
২০১৯ নাননিং, চীন
চীন
৩–০
জাপান

ইন্দোনেশিয়া

থাইল্যান্ড
২০২১ ভান্টা, ফিনল্যান্ড
চীন
৩–১
জাপান

দক্ষিণ কোরিয়া

মালয়েশিয়া
২০২৩ সুচৌ, চীন
২০২৫ চীন

সফল দলসমূহ[সম্পাদনা]

দল চ্যাম্পিয়ন রানার্স-আপ সেমি-ফাইনাল
 চীন ১২ (১৯৯৫, ১৯৯৭, ১৯৯৯, ২০০১, ২০০৫, ২০০৭, ২০০৯, ২০১১, ২০১৩, ২০১৫, ২০১৯, ২০২১) ২ (২০০৩, ২০১৭) ৩ (১৯৮৯, ১৯৯১, ১৯৯৩)
 দক্ষিণ কোরিয়া ৪ (১৯৯১, ১৯৯৩, ২০০৩, ২০১৭) ৪ (১৯৮৯, ১৯৯৭, ২০০৯, ২০১৩) ৮ (১৯৯৫, ১৯৯৯, ২০০১, ২০০৫, ২০০৭, ২০১১, ২০১৫, ২০২১)
 ইন্দোনেশিয়া ১ (১৯৮৯) ৬ (১৯৯১, ১৯৯৩, ১৯৯৫, ২০০১, ২০০৫, ২০০৭) ৭ (১৯৯৭, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৯, ২০১১, ২০১৫, ২০১৯)
 জাপান ৩ (২০১৫, ২০১৯, ২০২১) ১ (২০১৭)
 ডেনমার্ক ২ (১৯৯৯, ২০১১) ৯ (১৯৮৯, ১৯৯১, ১৯৯৩, ১৯৯৫, ১৯৯৭, ২০০১, ২০০৩, ২০০৫, ২০১৩)
 থাইল্যান্ড ৩ (২০১৩, ২০১৭, ২০১৯)
 মালয়েশিয়া ২ (২০০৯, ২০২১)
 ইংল্যান্ড ১ (২০০৭)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Korn Dabbaransi new IBF President"Utusan Online। ৪ জুন ২০০১। ১০ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ এপ্রিল ২০১৭