সিরারপাই দের নার্সেসিয়ান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সিরারপাই দের নার্সেসিয়ান
জন্ম(১৮৯৬-০৯-০৫)৫ সেপ্টেম্বর ১৮৯৬
কনস্টান্টিনোপল, অটোমান সাম্রাজ্য
মৃত্যু৫ জুলাই ১৯৮৯(1989-07-05) (বয়স ৯২)
প্যারিস, ফ্রান্স
প্রাক্তন ছাত্রসরবোন ইউনিভার্সিটি
পিএইচডি উপদেষ্টাগ্যাব্রিয়েল মিলেট
যাদের দ্বারা প্রভাবান্বিতআন্দ্রে গ্র্যাবার, চার্লস দিহল, হেনরি ফোকিলন, গ্যাব্রিয়েল মিলেট

সিরারপাই দের নার্সেসিয়ান (৫ সেপ্টেম্বর ১৮৯৬ – ৫ জুলাই ১৯৮৯) ছিলেন একজন আর্মেনিয়ান শিল্প ইতিহাসবিদ, যিনি আর্মেনিয়ান এবং বাইজান্টাইন স্টাডিজে বিশেষজ্ঞ। দের নার্সেসিয়ান একজন প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ এবং আর্মেনিয়ান শিল্প ইতিহাসের অগ্রদূত ছিলেন। তিনি আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসে ওয়েলেসলি কলেজ এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্প ও প্রত্নতত্ত্বের অধ্যাপক হিসেবে হেনরি ফোকিলনসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করেছিলেন।[১][২] তিনি ডুমবার্টন ওকসের সিনিয়র ফেলো, ১৯৫৪-৫৫ খ্রিষ্টাব্দে উপ-পরিচালক ছিলেন এবং ১৯৬১-৬২ খ্রিষ্টাব্দে এর বোর্ড অফ স্কলার্সের সদস্য হয়েছিলেন। এছাড়াও দের নার্সেসিয়ান ব্রিটিশ অ্যাকাডেমি (১৯৭৫), অ্যাকাদেমি ডেস ইন্সক্রিপশন্স এট বেলস-লেটার্স (১৯৭৮) এবং আর্মেনিয়ান অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেস (১৯৬৬) ইত্যাদি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজন সদস্যও ছিলেন।

জীবনপঞ্জি[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

দের নার্সেসিয়ান ১৮৯৬ খ্রিষ্টাব্দে কনস্টান্টিনোপলে জন্মগ্রহণ করেন; তিন সন্তানের মধ্যে তিনি সবচেয়ে ছোটো ছিলেন। তিনি একটি স্বচ্ছল পরিবার থেকে এসেছিলেন এবং তার মামা মালাশিয়া ওর্মানিয়ান কনস্টান্টিনোপলের আর্মেনিয়ান কুলপতি ছিলেন।[২] তিনি ছোটোবেলায় মবাবাকে হারিয়েছিলেন; নয় বছর বয়সে তার মা আকবি এবং আঠারো বছর বয়সে তার বাবা মিহরান-এর জীবনাবসান হয়।[৩] তিনি ইয়েশায়ন যাজক স্কুল এবং কনস্টান্টিনোপলের ইংলিশ হাই স্কুল থেকে স্নাতক হয়েছিলেন, অল্প বয়সেই আর্মেনিয়ান, ইংরেজি এবং ফরাসি ভাষায় সাবলীল দক্ষতা অর্জন করেছিলেন। ১৯১৫ খ্রিষ্টাব্দে আর্মেনিয়ান গণহত্যা চলাকালে দের নার্সেসিয়ান এবং তার বোন আরাক্স (ততদিনে অনাথদ্বয়) ইউরোপে চলে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন, সেখানে তারা জেনেভাতে বাস করতে থাকেন। দের নার্সেসিয়ান ১৯১৯ খ্রিষ্টাব্দ ফ্রান্সের প্যারিসে থিতু হওয়া পর্যন্ত বেশ কয়েক বছর জেনেভা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছিলেন।[৪]

দের নার্সেসিয়ান সোরবোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভরতি হয়েছিলেন, তিনি ইকোলে দেস হাউটিস এটুদেস দি ইউনভার্সিটি দি প্যারিসে ইতিহাস পাঠরত ছিলেন। তিনি প্রখ্যাত বাইজেন্টিনোলজিস্ট চার্লস দিহল এবং গ্যাব্রিয়েল মিলেট এবং শিল্প ইতিহাসবিদ হেনরি ফোকিলনের তত্ত্বাবধানে অধ্যয়ন করেছেন।[৪] ১৯২২ খ্রিষ্টাব্দে তিনি মিলেটের সহকারী হন এবং তার আনুকূল্যে ১৯২৯ খ্রিষ্টাব্দে নিজের প্রথম নিবন্ধের একটা প্রকাশ করেন।[২] মধ্যযুগের শেষ নাগাদ তিনি তার ডক্টরেট ডি'ট্যাট, "ল'ইলাস্ট্রেশন ডু রোমান দে বারলাম এট যোসাফ" এবং আর্মেনিয়ান আলোকায়িত পাণ্ডুলিপির একটা গবেষণাপত্র উপস্থাপন করেছিলেন যে দুটো গবেষণাপত্র (স্নাতক শিক্ষার্থীদের তখন দুটো গবেষণাপত্র জমা দিতে হতো)[৩] খুবই সমাদরে গৃহীত হয়েছিল (মেনশন ত্রেস অনরেবল হিসেবে গৃহীত), এবং ১৯৩৭ খ্রিষ্টাব্দে যখন প্রকাশিত হয় ওই দুটো রচনা-ই : আকাদেমি দেস ইন্সক্রিপশন্স এট বেল্লেস-লেটার্স এবং রিভিউ দেস এটুদেস গ্রেক্যুইজ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।

অধ্যাপক এবং অগ্রদূত[সম্পাদনা]

১৯৩০ খ্রিষ্টাব্দে দের নার্সেসিয়ান তার তিনজন পরামর্শদাতা, বাইজান্টাইনিস্ট চার্লস রুফাস মোরি, অ্যালবার্ট এম ফ্রেন্ড জুনিয়র এবং ওয়াল্টার কুকের পরামর্শক্রমে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস শহরের ওয়েলেসলি কলেজের একজন আংশিক সময়ের প্রভাষক হিসাবে চলে আসেন। তিনি ওয়েলেসলিতে শিল্পের ইতিহাস পড়াতেন, সত্বর পূর্ণ অধ্যাপক পদে বৃত হন এবং পরবর্তীতে শিল্প ইতিহাস বিভাগের চেয়ারপার্সন ও ফার্নসওয়ার্থ মিউজিয়ামের অধিকর্তা হয়েছিলেন।[৪] দের নার্সেসিয়ান হলেন প্রথম মহিলা যিনি কোনো মহিলা কলেজে বাইজান্টাইন শিল্পে শিক্ষকতা করেছিলেন। তিনিই ১৯৬০ খ্রিষ্টাব্দে হিজ হোলিনেস ক্যাথলিকোস ভ্যাজগেন দ্বারা সেন্ট গ্রেগরি দ্য ইলুমিনেটরের পদক নিয়ে অলংকৃত প্রথম মহিলা। প্যারিসের কলেজ ডি ফ্রান্সে বক্তৃতার জন্য আমন্ত্রিত মহিলাদের মধ্যেও তিনি প্রথম। তিনি তার সময়কালে ডামবার্টন ওকসে সম্পূর্ণ অধ্যাপক পদপ্রাপ্ত একমাত্র মহিলা এবং তিনি ১৯৭০ খ্রিষ্টাব্দে লন্ডনের সোসাইটি অফ অ্যান্টিকয়ারিজ থেকে স্বর্ণপদক লাভ করা দ্বিতীয় মহিলা।[৫] ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দে তিনি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অফ ইউনিভার্সিটি উইমেন থেকে অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন।

দের নার্সেসিয়ান ১৯৭৮ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত ডামবার্টন ওকসে ছিলেন, যখন তিনি ফ্রান্সে অবসর নিয়েছিলেন এবং তার বোনের সঙ্গে প্যারিসে থাকতেন।[২] অবসর গ্রহণের পর আর্মেনিয়ান পণ্ডিতদের অধ্যয়নে আরো ভালোভাবে সহায়তা দেওয়ার জন্যে তিনি তার পুরো গ্রন্থাগারটি ইয়েরেভেনের মাটেনাডারানে পাঠিয়েছিলেন। ১৯৮৯ খ্রিষ্টাব্দে তার মৃত্যুর অল্পদিনের মধ্যেই, আর্মেনিয়ায় সম্ভাব্য শিল্প ইতিহাসের শিক্ষার্থীদের জন্য ইনস্টিটিউট ডি রিসার্চেস সুর লেস মিনিয়েচার্স আর্মানো-বাইজান্টাইন্স-এ 'ফন্ডস সিরারপাই দের নার্সেসিয়ান' নামে এক অনুদানের তহবিল তার সম্মানে তৈরি করা হয়েছিল।[৩]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

দের নার্সেসিয়ানের রচনাসমূহ মূলত চার্চের আর্কিটেকচার, আলোকিত পান্ডুলিপি, মিনিয়েচার এবং ভাস্কর্যের অধ্যয়নসহ আর্মেনিয়ান শিল্প ইতিহাসের সঙ্গ সম্পর্কিত। নিচে তার রচিত বই এবং নিবন্ধগুলির একটি আংশিক তালিকা রয়েছে।[৬] ১৯৪৫ খ্রিষ্টাব্দে তার বই আর্মেনিয়া অ্যান্ড বাইজান্টাইন এম্পায়ার শিল্প ইতিহাসবিদগণ ডেভিড টালবট রাইস,[৭] জুরগিস বাল্ট্রুসাইটিস,[৮] এবং আলেকজান্ডার ভ্যাসিলিয়েভ দ্বারা প্রশংসিত হয়েছিল। [৯] বইটির পর্যালোচনায় ভ্যাসিলিয়েভ লিখেছেন যে, তিনি হলেন "আর্মেনিয়ায় ইতিহাস, শিল্প এবং সভ্যতার বিষয়ে আমাদের সময়কালের সেরা কর্তৃত্ব"।

বইপত্র[সম্পাদনা]

  • আর্মেনিয়া অ্যান্ড দ্য বাইজেন্টাইন এম্পায়ার। কেমব্রিজ, ম্যাসাচুসেটস: হার্ভার্ড উইনিভার্সিটি প্রেস, ১৯৪৫।
  • আঘতামার: চার্চ অফ দি হলি ক্রস । কেমব্রিজ, মাস: হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ১৯৬৪। OCLC   962530139
  • আর্মেনিয়ান ম্যানাস্ক্রিপ্টস ইন দ্য ওয়াল্টার্স আর্ট গ্যালারি, বাল্টিমোর: দ্য ট্রাস্টিজ, ১৯৭৩। OCLC 248915153 OCLC   248915153
  • আর্মেনিয়ান মিনিয়েচার্স ফ্রম ইস্পাহান , ব্রাসেলস: লেস এডিটার্স ডি'আর্ট অ্যাসোসিয়েস, ১৯৮৬। OCLC 17649399 OCLC   17649399
  • আর্মেনিয়ান্স, নিউ ইয়র্ক: প্রেগার, ১৯৬৯।
  • (ফরাসি) ল'আর্ট আর্মোনিয়েন , প্যারিস: আর্ট ইউরোপীন। পাবলিকেশন্স ফিল্মিস ডি'আর্ট এট ডিহিস্টোয়ার, ১৯৬৫।
  • (ফরাসি) এল'ইলাস্ট্রেশন ডু রোমান ডি বার্লাম এট জোসাফ, প্যারিস: ডি বোকার্ড, ১৯৩৭।
  • মিনিয়েচার পেইন্টিং ইন দ্য আমেরিকান কিংডম অফ সিলিসিয়া ফ্রম দ্য টুয়েফথ টু দ্য ফোর্টিন্থ সেঞ্চুরি, ওয়াশিংটন ডিসি: ডুমবার্টন ওকস স্টাডিজ, ১৯৯৩। OCLC 470085368 OCLC   470085368

প্রবন্ধসমূহ[সম্পাদনা]

  • "দ্য আর্মেনিয়ান ক্রনিকল অফ দ্য কনস্টেবল এসম্প্যাড অর অফ দ্য 'রয়্যাল হিস্টোরিয়ান" " ডুমবার্টন ওকস পেপারস, খণ্ড ১৩, ১৯৫৯, পৃষ্ঠা ১৪১-১৬৮।
  • "অ্যান আর্মেনিয়ান গোস্পেল অফ দ্য ফিফটিন্থ সেঞ্চুরি", দ্য বোস্টন পাবলিক লাইব্রেরি কোয়ার্টারলি, ১৯৫০, পৃষ্ঠা ৩-২০।
  • (আর্মেনীয়) "আ জেনারেল ভিউ অফ দ্য ম্যানাস্ক্রিপ্টস অফ সান লাজারো" " বাজমাভেপ, ভেনিস, ১৯৪৭, পৃষ্ঠা ২৬৯-২৭২।
  • "প্যাগান অ্যান্ড খ্রিস্টিয়ান আর্ট ইন ইজিপ্ট, অ্যান একজিবিশন অ্যাট দ্য ব্রুকলিন মিউজিয়াম", দ্যআর্ট বুলেটিন , ভল্যুম ৩৩, ১৯৪১, পৃষ্ঠা ১৬৫-১৬৭।
  • "টু মিরাকলস অফ দ্য ভার্জিন ইন দ্য পোয়েমস অফ গ্যয়টার ডি কইন্সি", ডুমবার্টন ওকস পেপার্স, ভল্যুম ৪১, ১৯৮৭, পৃষ্ঠা ১৫৭-১৬৩।
  • "দ্য কিংডম অফ সিলিসিয়ান আর্মেনিয়া", আ হিস্ট্রি অফ দ্য ক্রুসেডস, এডিটেড বাই কেনেথ এম সেটন, ১৯৭৯।

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Kouymjian, Dickran (২০০৫)। "Sirarpie Der Nersessian (1896-1989): Pioneer of Armenian Art History"। Medievalists and the Academy। University of Wisconsin Press। পৃষ্ঠা 483। আইএসবিএন 0-299-20750-1 
  2. Allen, Jelisaveta, Nina G. Garsoïan, Ihor Ševčenko, Robert W. Thomson (১৯৮৯)। "Sirarpie Der Nersessian: 1896-1989": ix–xi। জেস্টোর 1291601 
  3. "Der Nersessian, Sirarpie"Dictionary of Art Historians। ২০১৮-০২-২১। 
  4. Chookaszian, Levon (১৯৮৫)। "Տեր-Ներսեսյան, Սիրարփի Միհրան [Ter Nersesyan, Sirarpi Mihrani]"। Armenian Soviet Encyclopedia (আর্মেনিয় ভাষায়)। 11। Yerevan: Armenian Encyclopedia। পৃষ্ঠা 683। 
  5. Kouymjian. "Sirarpie Der Nersessian", pp. 482-493.
  6. For a more comprehensive list, see: Dumbarton Oaks Papers. "Sirarpie Der Nersessian." Dumbarton Oaks. Vol. 21, 1967, pp. 1-5.
  7. "Armenia and the Byzantine Empire by Sirapie der Nercessian Review by: David Talbot Rice"। Oxford University Press। মে ১৯৪৬: 271–272। doi:10.1093/ehr/LXI.CCLX.271-b 
  8. Baltrušaitis, Jurgis (জুন ১৯৪৬)। "Armenia and the Byzantine Empire. A Brief Study in Armenian Art and Civilization by Sirarpie der Nersessian; Henri Grégoire Review by: Jurgis Baltrušaitis"। College Art Association: 124–125। doi:10.2307/3047064জেস্টোর 3047064  অজানা প্যারামিটার |শিরোনাম-সংযোগ= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  9. "Armenia and the Byzantine Empire. A Brief Study of Armenian Art and Civilization by Sirapie Der Nersessian Review by: A. Vasiliev"। Medieval Academy of America। অক্টোবর ১৯৪৫: 491–494।  অজানা প্যারামিটার |শিরোনাম-সংযোগ= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)