বিষয়বস্তুতে চলুন

সিঙ্গাপুর নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিঙ্গাপুর নদী
সিঙ্গাপুর নদীর নিন্ম প্রবাহ সিঙ্গাপুরের কেন্দ্রীয় ব্যবসা জেলা মাধ্যমে প্রবাহিত হয়।
১৯ শতকের সিঙ্গাপুর নদী অববাহিকার মানচিত্র
স্থানীয় নামসুঙ্গাই সিঙ্গাপুর {{স্থানীয় নামের পরীক্ষক}} ত্রুটি: প্যারামিটারের মান ত্রুটিপূর্ণ (সাহায্য)
অবস্থান
দেশসিঙ্গাপুর
প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য
উৎস 
 • অবস্থানআলেকজান্দ্রা খাল
মোহনা 
 • অবস্থান
মারিনা চ্যানেল
দৈর্ঘ্য৩.২ কিমি (২.০ মা)

সিঙ্গাপুর নদী (মালয়: সুন্জি সিঙ্গাপুরা, চীনা: 新加坡 河) হল সিঙ্গাপুরের একটি নদী, যেটি আলেকজান্দ্রা রোডের সমান্তরালে প্রবাহিত হয় এবং সিঙ্গাপুরের দক্ষিণাঞ্চলীয় অংশে অবস্থিত মারিনা জলাধারে মিলিত করেছে।

সিঙ্গাপুর নদী পরিকল্পনা এলাকা সিঙ্গাপুরের কেন্দ্রীয় অঞ্চলের মধ্যবর্তী এলাকায় অবস্থিত, যা নগর পুনর্বাসন কর্তৃপক্ষ দ্বারা নির্ধারিত। পরিকল্পনা এলাকার সীমানার নিম্নরূপ - উত্তরে নদী উপত্যকায় এবং যাদুঘর, পশ্চিমে টাঙ্গলিন এবং বুকিত মরহা, দক্ষিণে আউটরাম এবং পূর্ব দিকে কেন্দ্রীয় ব্যবসায়িক এলাকা (ডাউনটাউন কোর)।

ভৌগোলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

কিম সেং সেতু কাছে উৎস থেকে সিঙ্গাপুর নদী প্রায় ৩.২ কিলোমিটার[১] দীর্ঘ এবং এর পর এটি মারিনা বেতে মিলিত হয়। নদীটি কিম সেং সেতু থেকে কমনওয়েলথ এভিনিউয়ের জংশন পর্যন্ত আলেকজান্দ্রা খাল হিসেবে তার মূল উৎসের বাইরে দুই কিলোমিটারেরও বেশি বিস্তৃত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সিঙ্গাপুর নদীর মোহনায় সিঙ্গাপুরের পুরনো বন্দর ছিল। ঐতিহাসিকভাবে সিঙ্গাপুর প্রাথমিকভাবে বন্দরের চারপাশে বৃদ্ধি পেয়েছিল তাই নদী মোহনাটি বাণিজ্য, বাণিজ্য ও অর্থ কেন্দ্র হয়ে ওঠে।

এক সময়ে সিঙ্গাপুর নদীটি উপনিবেশের জীবনধারা, বাণিজ্য ও বাণিজ্যিক ক্রিয়াকলাপের কেন্দ্র ছিল।

দূষণ এবং পরিষ্কার[সম্পাদনা]

সিঙ্গাপুর নদীর তীর বরাবর ক্লার্ক কোয়ে

১৮১৯ সালে দ্রুত নগরীকরণ ও বাণিজ্য সম্প্রসারণের কারণে সিঙ্গাপুর নদীর উপর ভারী জলযানের চলাচল ছিল।[২] একই সাথে নদীর তীরে অবস্থিত শিল্প কারখানার বর্জ্য এবং অন্যান্য দূষিত পণ্যদ্রব্যের নিষ্পত্তি দ্বারা নদীর জল দূষিত হয়ে পড়েছিল। সিঙ্গাপুর নদী এবং কালং অববাহিকার জল দূষণের উৎসগুলোর মধ্যে রয়েছে শুকর ও হাঁসের খামার। এছাড়া রাস্তার হকার এবং সবজি বিক্রিকারীদের দ্বারাও নদীটি দূষিত হয়েছিল। সিঙ্গাপুর নদী বরাবর পরিবহন, নৌকা নির্মাণ ও মেরামতের মতো কার্যক্রম নদীর জলের দূষণ ঘটিয়েছিল।

বর্তমান সময়ে সিঙ্গাপুর নদী[সম্পাদনা]

সিঙ্গাপুর নদীটি মারিনা জলাধারের একটি অংশ। নতুন স্বাধু জলের জলাধার তৈরির জন্য নদীটির মোহনায় একটি বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে। বাঁধটি মারিনা ব্যারেজ নামে পরিচিত।[৩]

প্রধান ভূমি পুনরুদ্ধারের আগে সিঙ্গাপুর নদী সিঙ্গাপুর প্রণালীতে মিলিত হতো। সিঙ্গাপুর নদীটি এখন মারিনা জলাধারে প্রবেশ করে বা মিলিত হয়। সিঙ্গাপুর বন্দর দ্বীপটির পশ্চিমে অবস্থিত। বন্দরটি এখন দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলের বেশিরভাগ এলাকা ব্যবহার করে এবং সিঙ্গাপুরে যাত্রীবাহী জাহাজ এখন সাধারণত হার্বরফ্রন্টের সিঙ্গাপুর ক্রুজ সেন্টার থেকে চলাচল করে। এভাবেই সিঙ্গাপুর নদীকে বন্দর অর্থনীতি থেকে দূরা রাখা হয়েছে এবং এর পরিবর্তে নদীটি বর্তমানে পর্যটন ও নন্দনতন্ত্রের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Leary, Michael E.; McCarthy, John (২০১৩-১০-৩০)। The Routledge Companion to Urban Regeneration (ইংরেজি ভাষায়)। Routledge। পৃষ্ঠা 132। আইএসবিএন 9781136266546 
  2. "Singapore River"Heritage Trails। ২০০৯-০৮-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০১ 
  3. "PUB annual report: Birth of the barrage"। PUB। ২০০৮। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • উইকিমিডিয়া কমন্সে Singapore River সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন।
  • উইকিভ্রমণ থেকে Singapore River ভ্রমণ নির্দেশিকা পড়ুন।