সাহেব বাড়ি জামে মসজিদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাহেব বাড়ি জামে মসজিদ

সাহেব বাড়ি জামে মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ২৪°২৫′১০″ উত্তর ৯০°৪৪′৩১″ পূর্ব / ২৪.৪১৯৪২৬° উত্তর ৯০.৭৪১৮২৮° পূর্ব / 24.419426; 90.741828স্থানাঙ্ক: ২৪°২৫′১০″ উত্তর ৯০°৪৪′৩১″ পূর্ব / ২৪.৪১৯৪২৬° উত্তর ৯০.৭৪১৮২৮° পূর্ব / 24.419426; 90.741828
অবস্থান জাওয়ার, তাড়াইল, কিশোরগঞ্জ
মালিকানা বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর
স্থাপত্য তথ্য

সাহেব বাড়ি জামে মসজিদ কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলায় অবস্থিত একটি প্রাচীন মসজিদ ও বাংলাদেশের অন্যতম একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা।[১] এটি তাড়াইল উপজেলার জাওয়ার গ্রামে অবস্থিত।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সাহেব বাড়ি জামে মসজিদটি সুলতান হোসেন শাহর ছেলে গিয়াসউদ্দিন মাহমুদ শাহর আমলে নির্মিত। মূল শিলালিপি থেকে জানা যায় মসজিদটি ১৫৩৪ সালের দিকে নির্মাণ করা হয়েছিল। রাহাত খানের ছেলে খান-ই-মোয়াজ্জেম নূর খান মসজিদটি নির্মাণ করেন। রাহাত খান ছিলেন মুঘল সম্রাট আকবরের চিকিৎসক। তার চিকিৎসার কৃতিত্বের জন্য তাকে বর্তমান তাড়াইলের এই এলাকাটি দান করেন। রাহাত খান বর্তমান জাওয়ার গ্রামে বসতি স্থাপন করেন। অন্য একটি বিশ্লেষণ থেকে জানা যায়, ১৩শ থেকে ১৬শ শতাব্দীতে কোচ ও হাজংরা বসবাসকালে রাহাত খান নামক এক সেনাপতি জাওয়ারের সামন্ত নৃপতিকে পরাজিত ও বিতারিত করে এখানে বসতি স্থাপন করেন। তারই ছেলে নূর খান, মতান্তরে তার নাতি নছরত খান এই মসজিদটি নির্মাণ করেন।[৩]

বিবরণ[সম্পাদনা]

সাহেব বাড়ি জামে মসজিদটি বর্তমানে ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়ে গেছে। মসজিদের গায়ে খোদাই করা দুটি কালো পাথরের খণ্ড ছিল। বর্তমানে খণ্ড দুটি পশ্চিম জাওয়ারের জমিদার বাড়ি পাশের মসজিদের সামনের দেয়ালে সন্নিবেশিত রয়েছে। মসজিদটির পূর্ব দিকে পুরনো যুগের বিরাট একটি দিঘী আছে।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কিশোরগঞ্জের পর্যটন স্থান"কিশোরগঞ্জ ডট কম। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. "জেলায় পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার মাধ্যমে রাজস্ব আয় বাড়ানো সম্ভব"দৈনিক সংগ্রাম। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. শামসুজ্জামান খান। বাংলাদেশের লোকজ সংস্কৃতি গ্রন্থমালা: কিশোরগঞ্জ। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলা একাডেমিআইএসবিএন 984-07-5295-2