সামনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সামনা সংবাদপত্র
সামনা সংবাদপত্র প্রচ্ছদ.jpg
ধরনদৈনিক সংবাদপত্র
ফরম্যাটব্রডশিট
মালিকঠাকরে পরিবার
সম্পাদকরেশমি ঠাকরে
সহযোগী সম্পাদকসঞ্জয় রাউত
প্রতিষ্ঠাকাল২৩ জানুয়ারি ১৯৮৮; ৩২ বছর আগে (1988-01-23)
রাজনৈতিক মতাদর্শশিবসেনা
ভাষামারাঠি
হিন্দি
দাপ্তরিক ওয়েবসাইটwww.saamana.com
ফ্রি অনলাইন আর্কাইভ?epaper.saamana.com

সামনা ভারতের মহারাষ্ট্রে প্রকাশিত একটি মারাঠি ভাষার সংবাদপত্র। এই কাগজটি ১৯৮৮ সালের ২৩ শে জানুয়ারী মহারাষ্ট্রের কট্টর ডানপন্থী রাজনৈতিক দল শিবসেনার প্রতিষ্ঠাতা বাল ঠাকরের দ্বারা প্রবর্তন করা হয়েছিল। কাগজের একটি হিন্দি সংস্করণ, দোপাহার কা সামনা জনপ্রিয় হিন্দি সামনা নামে পরিচিত, ১৯৯৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি চালু হয়েছিল। [১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ফার্স্টপোস্ট সামনা প্রতিষ্ঠার কারণ ছিল। তিনি এবং তাঁর দল অন্যান্য সংবাদমাধ্যমে যে সংবাদ পাচ্ছিলেন তা নিয়ে ঠাকরের অসন্তুষ্টি ছিল। একে শিবসেনার মুখপত্র হিসাবে বর্ণনা করে ঠাকরের কাছে তথ্য সরবরাহ করা হয়েছিল। ফার্স্টপোস্ট আরও জানিয়েছিল যে, অন্যান্য সংবাদপত্র যখন তাদের সংবাদ পক্ষপাতদুষ্ট হতে দেয়, সামনা সেখানে সরকারী নীতি এবং নাগরিক বিষয়গুলির তুলনামূলক নিরপেক্ষ সংবাদ সরবরাহ করে। এটি কেবলমাত্র শিবসেনা সম্পর্কে পক্ষপাতিত্বমূলক সংবাদ পরিবেশন করত। [২]

হিন্দুস্তান টাইমসের মতে, ১৯৯২-৯৩ দাঙ্গার সময় সামনা একটি "গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল" এবং ঠাকরের "বিরোধী গোষ্ঠী দ্বারা চালিত সহিংসতার মাত্রা অতিরঞ্জিত করে শিব সৈনিকদের তাদের খারাপ কাজ করতে উদ্বুদ্ধ করেছিল।" [৩]

বাল ঠাকরেক ১৭ নভেম্বর ২০১২-এ তাঁর মৃত্যুর আগ পর্যন্ত উভয় পত্রিকা সম্পাদনা করেছেন। তাঁকে সম্মান জানাতে, ঠাকরের পুত্র উদ্ধব ঠাকরে তাকে "প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক" হিসাবে অভিহিত করেছিলেন। [১]

২৭ নভেম্বর, ২০১৯ অবধি উভয় পত্রিকার প্রধান সম্পাদক ছিলেন উদ্ধব ঠাকরে, তবে তিনি মুখ্যমন্ত্রী পদে নির্বাচিত হওয়ার কারণে তাকে এ পদ থেকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল। বর্তমানে মারাঠি এ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক হলেন রশ্মি ঠাকরে এবং হিন্দি পত্রিকার আবাসিক সম্পাদক হলেন অনিল তিওয়ারি

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Uddhav steps in as editor of Sena newspapers"IBN Live। ৪ ডিসেম্বর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০১২ 
  2. "The importance of Bal Thackeray's Dainik Saamana - Firstpost"www.firstpost.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-২৮ 
  3. "The Saamna has come of age" (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-০৫-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-২৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]