সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশন
ভারতীয় রেলওয়ে স্টেশন
সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশন.jpeg
সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশনের দৃশ্য
অবস্থানএনএইচ ৪৪, সাব্রুম, দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলা, ত্রিপুরা
ভারত
স্থানাঙ্ক২৩°০০′৫১″ উত্তর ৯১°৪১′৫৫″ পূর্ব / ২৩.০১৪০৬২° উত্তর ৯১.৬৯৮৭৪৯২° পূর্ব / 23.014062; 91.6987492
উচ্চতা৩৩ মিটার (১০৮ ফু)
মালিকানাধীনভারতীয় রেল
পরিচালিতউত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল
লাইনলামডিং–সাব্রুম রেলপথ
প্ল্যাটফর্ম
রেলপথ
নির্মাণ
গঠনের ধরনভূমিগত (আদর্শ)
প্ল্যাটফর্মের স্তরভূমিগত
পার্কিংনা
সাইকেলের সুবিধানা
অন্য তথ্য
অবস্থানির্মাণ - নতুন লাইন
স্টেশন কোডএসবিআরএম
অঞ্চল উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল
বিভাগ লামডিং রেল বিভাগ
বৈদ্যুতীকরণনা
পরিষেবা
পূর্ববর্তী স্টেশন   ভারতীয় রেলওয়ে   পরবর্তী স্টেশন
উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলশেষ স্টেশন
অবস্থান

সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার একটি রেল স্টেশন। এর কোডটি এসবিআরএম। এটি সাব্রুম শহর ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় রেল পরিষেবা প্রদান করে। এটি ত্রিপুরা রাজ্যের দক্ষিণতম রেল স্টেশন। স্টেশনটি বাংলাদেশ সীমান্তের নিকটে ফেনী নদীর তীরে অবস্থিত।

অবস্থান[সম্পাদনা]

স্টেশনটি ১১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ ১,৬৭৬ মিমি (৫ ফুট ৬ ইঞ্চি) ব্রডগেজ আগরতলা-সাব্রুম রেলপথের উপর অবস্থিত, যা ভারতীয় রেলের উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ে জোনের লামডিং রেল বিভাগের আওতায় আসে।[১][২][৩][৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আসামের শিলচর থেকে ত্রিপুরার ধর্মনগরকৈলাসহরের মধ্যে মিটার গেজ ট্র্যাক নির্মাণের মাধ্যমে ত্রিপুরাতে রেলপথ ১৯৬৪ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়,[৫] কিন্তু ট্র্যাকটি রাজধানী আগরতলাকে সংযুক্ত করে নি। ১৯৯৬ সালে ১১৯ কিলোমিটারের কুমারঘাট-আগরতলা রেলপথ প্রকল্পটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছিল। এটি ছিল বিদ্যুৎ সংযোগ বিহীন একক ট্র্যাকের মিটার গেজ এবং ২০১৬ সালে রেলপথটিকে বিস্তৃত গেজে রূপান্তরিত করা হয়।[৬] আগরতলা থেকে উদয়পুর পর্যন্ত ৪৩ কিলোমিটার দীর্ঘ ট্র্যাক স্থাপন করা হয় এবং ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ সালে আগরতলা থেকে উদয়পুরে (স্টেশন কোড ইউডিইউপি) মাতা ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দিরের কাছাকাছি পর্যন্ত রেল চলাচল করছে।

রেলপথটি উদয়পুরে থেকে ৭০ কিমি দক্ষিণে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনী নদীর তীরে সাব্রুম পর্যন্ত বিস্তৃত করার কাজ শুরু হয়। আগরতল-সাব্রুম রেলপথে সাব্রুম পর্যন্ত প্রথম ডেমু এর উদ্বোধনী দৌড় ৩ অক্টোবর, ২০১৯ সালে শুরু হয়।

রেলপথ[সম্পাদনা]

স্টেশনটি পশ্চিম ত্রিপুরা জেলা, সিপাহীজলা জেলা, গোমতী জেলাদক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার মধ্যে বিস্তৃত আগরতলা-সাব্রুম ব্রডগেজ রেলপথের উপর অবস্থিত। এই রেলপথটি একটি রেল ট্র্যাক নিয়ে গঠিত।

পরিকাঠাম[সম্পাদনা]

স্টেশনটির পরিকাঠাম ভূমিগত। এই স্টেশনে ৩ টি প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশনে ৩ টি রেললাইন বা রেলট্র্যাক রয়েছে। স্টেশনে স্টেশন পরিচালনার জন্য ভবন ও স্টেশন মাষ্টারে ভবন ১ নং প্ল্যাটফর্মের সঙ্গেই অবস্থিত। যাত্রীদের রেল ভ্রমণের জন্য টিকিট স্টেশনের টিকিট ঘর থেকে প্রদান করা হয়। স্টেশনে যাত্রী সুবিধার জন্য বসার আসন, প্ল্যাটফর্ম ছাউনি, পানীয় জল এর ব্যবস্থা রয়েছে। স্টেশনে গাড়ি রাখার ব্যবস্থা নেই।

সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশন ব্যাগ বা যাত্রীদের দ্বারা বহন করা জিনিসপত্রের পরীক্ষায় ব্যবস্থা নেই।

বৈদ্যুতীকরণ[সম্পাদনা]

সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশনের রেলপথে ডিজেল দ্বারা চালিত ট্রেন চলাচল করে। এই রেলপথে বৈদ্যুতীকরণের কাজ সম্পূর্ণ নয়নি।

রেল পরিষেবা[সম্পাদনা]

এই স্টেশনটি স্টেশনের পার্শ্ববর্তী এলাকায় রেল পরিষেবা প্রদান করে থাকে। এই স্টেশনের দ্বারা আগরতলা, শিলচড় এবং লুমডিংগামী ট্রেন চলাচল করে। এই স্টেশনে ভারতীয় রেলের যাত্রীবাহী ট্রেনগুলি রেল যাত্রীদের পরিষেবা প্রদান করে থাকে।

প্রশাসন ও নিরাপত্তার ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

সাব্রুম রেলওয়ে স্টেশনটি ভারতীয় রেলের পূর্ব রেল অঞ্চলের শিয়ালদহ রেল বিভাগের অন্তর্গত। স্টেশন পরিচালনার সমস্ত দায়িত্ব স্টেশনের প্রধান "স্টেশন মাষ্টার" - এর উপর ন্যস্ত। এছাড়া স্টেশনের নিরাপত্তার জন্য অস্থায়ী ভাবে ভ্রাম্যমাণ জিআরপি কর্মী নিযুক্ত রয়েছে এবং স্টেশন চত্বর ও সংলগ্ন এলাকার নিরাপত্তা স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন প্রদান করে থাকে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. First Commercial Broad টেমপ্লেট:Notatypo Freight Train Arrives In Tripura
  2. "BG railhead reaches Udaipur amid cheers"। ২০১৬-০৩-২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-১১ 
  3. "'Feni bridge will end Tripura's isolation'"। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  4. "Tripura's BG rail progress 'on right track'"। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  5. "Agartala now on India's rail map"iGovernment › Infrastructure। igovernment.in। ১৫ জুন ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ এপ্রিল ২০১৩ 
  6. "ব্রডগেজ মানচিত্রে জুড়ল ত্রিপুরা"। আনন্দবাজার পত্রিকা। ১ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]