সাবেরা সোবহান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাবেরা সোবহান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
সাবেরা সোবহান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
ঠিকানা
বণিক পাড়া
উওর মৌড়াইল, গোকর্ণ রোড
ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ৩৪০০
বাংলাদেশ
তথ্য
বিদ্যালয়ের ধরনসরকারি
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৬৪ ইং
প্রতিষ্ঠাতাজনাব আবদুস সোবহান
অবস্থাসক্রিয়
বিদ্যালয় বোর্ডকুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড
বিদ্যালয় জেলাব্রাহ্মণবাড়িয়া
কর্তৃপক্ষবাংলাদেশ সরকার
শ্রেণীউচ্চ বিদ্যালয়
নিয়ন্ত্রকমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড
সেশনডিসেম্বর-জানুয়ারি
বিদ্যালয় কোড১০৩২১৬
প্রধান শিক্ষকনুরুজ্জামান চৌধুরী
অনুষদমানবিক, বিজ্ঞান, বানিজ্য
শিক্ষকমণ্ডলী৪৯
কর্মচারী
শ্রেণী৬ষ্ঠ-১০ম
লিঙ্গনারী
বয়সসীমা১২-২০
বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী১৭০০+
ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত৩৫:১
শিক্ষাদানের মাধ্যমসরাসরি
ভাষাবাংলা
সময়সূচির ধরনপ্রভাতী - দিবা
সময়সূচি০৭:০০ ঘটিকা হতে ১২:০০ ঘটিকা; ১২:০০ ঘটিকা হতে ০৫:০০ ঘটিকা
বিদ্যালয়ের কার্যসময়১০ ঘন্টা
শ্রেণীকক্ষ২২+
ক্যাম্পাসের আকার১.১৭ একর
ক্যাম্পাসের ধরনশহুরে
ঘর
রঙহলুদ
ডাকনামসাবেরা, সাসোসবাউবি, এসএসজিজিএইচএস
ওয়েবসাইট

সাবেরা সোবহান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের অন্যতম একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

বিদ্যালয়টি ইউ আকারে ত্রিতল ভবন বিশিষ্ট। বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে একটি খেলার মাঠ রয়েছে। মাঠের উত্তর পূর্ব কোণে বাগানের পাশে একটি শহীদমিনার রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৬৪ খ্রি. তৎকালিন মহকুমা প্রশাসক জনাব আব্দুস সোবহান মহোদয়ের সার্বিক সহযোগিতায় ও তৎকালিন পৌরসভা চেয়ারম্যান জনাব আজিজুর রহমান মোল্লা, মুন্সি আবদূল কাদির সহ শহরের অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের একান্ত প্রচেষ্টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়াস্হ কান্দিপাড়া জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে বিদ্যালয়টি সর্বপ্রথম প্রাতিষ্ঠানিক রুপ নেয় এবং তখনকার গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ছিলেন জনাব আজিজুর রহমান মোল্লা।

বিদ্যালয়টির নাম মহকুমা প্রশাসক মহোদয়ের সহধর্মিনীর নামে সাবেরা সোবহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নামকরণ করা হয়।

তখন প্রাক্তন জমিদার চন্নু মিয়া সাহেবের ছেলে (কাজীপাড়া) জনাব এনায়েত উল্লাহ সাহেব প্রথম প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। পরবর্তীতে জনাব আজিজুর রহমান মোল্লা ও বাবু উমেষ বণিক এর প্রচেষ্টায় বর্তমান স্থানে (উত্তর মৌড়াইল) বিদ্যালয়টিকে স্থানান্তর করা হয়।

১৯৬৪ সনে (১ম- ৬ষ্ঠ)শ্রেণি চালু করা হয়। পরবর্তীতে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত চালু করা হয় ও (৬স্ঠ- ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত জাতীয় করণ হয় এবং সর্বমোট শাখা ছিল ১২টি । পরে ২০১০ খ্রি. বর্তমান সরকার বিদ্যালয়টিতে ডাবল শিফট চালু করে। বর্তমানে দিবা ১২টি শাখা ও প্রভাতি শিফটে ১০টি শাখা চালু আছে।[১]

অর্জন[সম্পাদনা]

বিদ্যালয়টি জাতীয় পর্যায়েবিভিন্ন সাংসকৃতিক ও ক্রীড়া কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে সুনামের সাথে ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন পদক অর্জন করে আসছে।

  1. মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা ও জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় বিভিন্ন স্হান দখল করে আসছে।
  2. ২০১০,২০১১ও ২০১২ সালের জেএসসি পরীক্ষায় বিদ্যালয়টি কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে যথাক্রমে ১৮তম,১৯তম ও ২০তম স্হান দখল করেছে।
  3. ২০১০সনের এসএসসি পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের সম্মিলিত মেধা তালিকায় বিজ্ঞান বিভাগ হতে একজন শিক্ষার্থী ১ম স্হান অধিকার করেছে।
  4. ২০১১ সালেরএসএসসি পরীক্ষায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ১ম স্হান করেছে অধিকার করেছে।
  5. ২০১২ সনেরএসএসসি পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের সম্মিলিত মেধা তালিকায় বিজ্ঞান বিভাগ হতে একজন শিক্ষার্থী ১ম স্হান অধিকার করেছে।
  6. ২০১২ সালের ৮ম শ্রেণিতে বৃত্তি পরীক্ষায় ৩৮ জন বৃত্তি পেয়েছে।

অবস্থান[সম্পাদনা]

বিদ্যালয়টি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের প্রাণকেন্দ্র উওর মৌড়াইল, বণিক পাড়া, গোকর্ণ রোডের পাশে অবস্থিত।[২]

তথ্য সূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://ssgghs.edu.bd
  2. http://onlinebrahmanbaria.com/সাবেরা-সোবহান-সরকারি-বাল/