সাগরলাল দত্ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সাগরলাল দত্ত (১৮২১ — ১৮৮৬) একজন জনহিতৈষী বাঙালি ব্যবসায়ী, সমাজসেবী ও দানবীর ছিলেন। তাঁর নামাঙ্কিত কামারহাটীতে সাগর দত্ত হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ তাঁরই দান করা জমিতে অবস্থিত।

অবদান[সম্পাদনা]

সাগর দত্ত ১৮২১ সালে হুগলী জেলার চুঁচুড়ায় জন্মগ্রহন করেন সুবর্ণবণিক সম্প্রদায়ের দত্ত পরিবারে। পিতার নাম ছিল মোহনচাঁদ দত্ত। ১৭ বছর বয়েসে পৈতৃক ব্যবসার দেখাশোনার কাজ ছেড়ে কার্লাইল নেফিউস নামক একটি বিদেশী কোম্পানীর অফিসে মুৎসুদ্দির কাজ করতে থাকেন তিনি।[১] কিছুকাল পরে দত্ত লাভজনক নীলের কারবারে যোগ দেন। বিপুল পয়সা অর্জন করার দুই বছর পরে দাদা পীতাম্বর দত্তের সাথে পাটের ব্যবসায় নামেন এবং সাগরলালবাবু নামে খ্যাতি পান। যদিও তিনি দেশীয় সংস্কৃতিতে অভ্যস্ত ছিলেন। ব্রাহ্মসমাজের উন্নতিতে অর্থ প্রদান করেন।[২] নিজের এলাকায় ঠাকুরবাড়ী, অতিথিশালা, ইংরেজি শিক্ষা বিদ্যালয় ইত্যাদি স্থাপন করেন। দানশীল ব্যক্তি হিসাবে তাঁর বিশেষ পরিচিতি হয়। কলকাতার কলুটোলায় থাকাকালী তিনিই প্রথম বাঙালী ব্যক্তি যিনি টেলিফোন ব্যবহার করেছিলেন।[৩] তার স্ত্রী ম্যালেরিয়া আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে হাসপাতাল তৈরীর প্রয়োজনীয়তা বোধ করেন সাগর দত্ত। ১৮৮৬ সালে তার মৃত্যুর আগে ১৩ লক্ষাধিক টাকার সম্পত্তি ও কামারহাটি বাগানবাড়ীর জমি দান করে যান এই উদ্দেশ্যে। হুগলী জেলার দত্তবাড়ীর দুর্গাপূজার প্রচলন করেন সাগর দত্ত।[৪] কলকাতা পুরসভা, ১৯২৮ সালে শোভারাম বসাক ফার্স্ট লেনের নাম পরিবর্তন করে সাগর দত্ত লেন করে।[৫] সম্পর্কে তিনি সঙ্গীতশিল্পী লালচাঁদ বড়ালের মাতামহ।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পাতা:পঞ্জিকা ও ডাইরেকটরি - শকাব্দা ১৭৯৬.pdf/৩৮১ - উইকিসংকলন একটি মুক্ত পাঠাগার"bn.wikisource.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১০ 
  2. "পাতা:তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা (তৃতীয় কল্প তৃতীয় খণ্ড).pdf/১৯০ - উইকিসংকলন একটি মুক্ত পাঠাগার"bn.wikisource.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১০ 
  3. "চিঠির প্রেম মিশেছিল ক্রিং ক্রিং শব্দে, অদ্ভুত নস"Daily News Reel (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৮-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১০ 
  4. "চুঁচুড়ার দত্ত-বোস-মল্লিক-বড় শীল বাড়ির দুর্গোত্‍সব আজও টিকিয়ে রেখেছে পরম্পরাকে - MySepik.com | DailyHunt Lite"Dailyhunt (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১০ 
  5. অজিতকুমার বসু, প্রথম খন্ড। কলিকাতার রাজপথ, সমাজ ও সংস্কৃতিতে। কলকাতা: আনন্দ পাবলিশার্স। 
  6. রামদুলাল দে। ভারত মার্কিন বাণিজ্যের পথিকৃৎ। বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষৎ।