সাইয়িদ আতীকুল্লাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সাইয়িদ আতীকুল্লাহ (১৯৩৩-১৯৯৮) ছিলেন একজন বাংলাদেশী লেখক, কবি, এবং সাংবাদিক।[১][২]

সাইয়িদ আতীকুল্লাহ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
নাগরিকত্ববাংলাদেশ Flag of Bangladesh.svg
পুরস্কারবাংলা একাডেমি পুরস্কার (১৯৭৪), সুফী মোতাহার হোসেন পুরস্কার, হাসান হাফিজুর রহমান স্বর্ণপদক

ইতিহাস[সম্পাদনা]

তার বড় পরিচয় ছিলো সমসায়কি সময়ের একজন বড় মাপের কবি ও গল্পকার। তিনি ১৪ নভেম্বর ১৯৯৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন।

জন্ম[সম্পাদনা]

আঠারদানা, ঘাটাইল উপজেলায় ১৯৩৩ সালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন ।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৫২-র  ভাষা আন্দোলনএ অংশগ্রহণ করে কারারুদ্ধ হন। তিনি জনতা ব্যাংকের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার ছিলেন। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ও আশির দশকে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনেও তিনি সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। তার প্রধান অবদান সাহিত্যে। কবিতা তার আত্মপ্রকাশের প্রধান মাধ্যম, তবে তিনি অনেক গল্পও রচনা করেছেন। তার ছিল একটি প্রতিবাদী কণ্ঠ; সাংবাদিকতা ও সাহিত্যকর্ম উভয় ক্ষেত্রেই তার প্রতিবাদী ও সংগ্রামী চেতনার প্রকাশ ঘটেছে। তিনি সাংবাদিকতায় যেমন নিপুণ পর্যবেক্ষণ ক্ষমতার স্বাক্ষর রেখেছেন, সাহিত্যেও তেমনি তীক্ষ্ণ জীবনবোধ ও সমাজবাস্তবতার পরিচয় দিয়েছেন। মননশীলতা ও মহত্ত্বচেতনা তাকে সাহিত্যাঙ্গনে স্বতন্ত্র মর্যাদা দিয়েছে। তার কবিতার ভাষা অকপট এবং বর্ণনাভঙ্গিও আবেগমুক্ত। তার কণ্ঠে শ্লেষ ছিল, কিন্তু তা ছিল শিল্পময়।

উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ[সম্পাদনা]

  • কাব্য,
  • আমাকে ছাড়া অনেক কিছু,
  • আঁধির যতো শত্রু-মিত্র,
  • অদম্য পথিকের গান,
  • এই যে তুমুল বৃষ্টি
  • বুধবার রাতে (গল্প গ্রন্থ),
  • সেগডেন হ্রদ (অনুবাদ)।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আতিকুল্লাহ ১৯৯৮ সালে মারা যান। [৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক তালিকা – বাংলা একাডেমি" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৭ 
  2. "আতীকুল্লাহ, সাইয়িদ - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৭ 
  3. "Atiqullah, Sayeed"en.banglapedia.org (ইংরেজি ভাষায়)। Banglapedia। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৮