সাইপ্রাসের সাহিত্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সাইপ্রিয়ট সাহিত্য হল সাইপ্রাসের সাহিত্য যা গ্রীক, তুর্কি, ইংরেজি এবং ফরাসি সহ অন্যান্য ভাষায় রচিত। আধুনিক সাইপ্রিয়ট গ্রীক উপভাষা মূলত আধুনিক গ্রীক উপভাষারই দক্ষিণ-পূর্ব শাখার অন্তর্গত।

প্রাচীন ও মধ্যযুগ[সম্পাদনা]

সাইপ্রিয়ট সাহিত্যের প্রাচীন সাহিত্যকর্মের মধ্যে সাইপ্রিয়া শীর্ষক মহাকাব্য টি অন্যতম যা সম্ভবত খ্রিস্টপূর্ব সপ্তম শতাব্দীর শেষের দিকে রচিত এবং স্টেসিনাসকে উৎসর্গ করা হয়েছিল।[১] সাইপ্রিয়ট জেনো অব সিটিয়াম ছিলেন স্টোইক স্কুল অফ ফিলোসফির প্রতিষ্ঠাতা। তাঁর বন্ধু এবং শিষ্য পার্সিয়াস ছিলেন তাঁর অনুসারী।

সাইপ্রাসের সাহিত্য প্রথম দিককার খ্রিস্টান সাহিত্যকেও ধারণ করে। যেমনঃ অ্যাক্ট অব দ্য আপস্টলস (বাইবেলের নিউ টেস্টামেন্ট)।এটি অনুসরণ করেই বার্নাবাসপল (প্রেরিত দূত) সেই দ্বীপে ধর্ম প্রচার করেছিলেন এবং এটি ছিল সাইপ্রিয়ট সাহিত্যের অন্তর্ভুক্ত। বাইজেন্টাইন/মধ্যযুগীয় সাইপ্রিয়ট লেখকদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেনঃ নেপোলিসের লিওটিওস, আলথিডিস এবং কনস্টান্টিনোপলের দ্বিতীয় প্যাট্রিয়ার্ক গ্রেগরিমধ্যযুগীয় সময়ে সাহিত্যের বাইজেন্টাইন মহাকাব্য, বিশেষত "অ্যাক্রিটিক গান" প্রসার লাভ করেছিল।

মধ্যযুগের অবসান এবং রেনেসাঁ (নবজাগরণ)[সম্পাদনা]

মধ্যযুগে কিংডম অব সাইপ্রাসের আইনসমূহ জেরুজালেমের রায় (অ্যাসাইজেস অব জেরুজালেম) নামে পরিচিত ছিল যা তৎকালীন স্থানীয় উপভাষায় রচিত হয়েছিল এবং তার পাশাপাশি ফ্রেঞ্চ ভাষায়ও রচিত হয়েছিল। বিধানগুলি ১৫৩১ সালের আশেপাশে ইতালীয় ভাষায় অনুবাদ করা হয়েছিল এবং সেটিই এখন পর্যন্ত মধ্যযুগীয় আইনের বৃহত্তম সংগ্রহ।

ইতিহাসের লিখনধারা অনুসারে, মধ্যযুগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রচনাগুলি হল লিওন্টিওস মাখাইরাস এবং জর্জ বোস্ট্রনিয়সের ইতিহাস, গ্রন্থদ্বয় মূলত ফ্রাংকিশ শাসনামল (১১৯১–১৪৮৯) এর সময় রচিত হয়েছিল। আর তাই স্থানীয় উপভাষায় লিখিত হলেও সেগুলিতে বহু ফরাসি শব্দের প্রভাব লক্ষ্য করা যায়।

মধ্যযুগীয় গ্রীক সাইপ্রিয়টে ফ্রাঞ্চেসকো পেত্রারক এবং পোয়েমস ডি’মোর পদ্ধতিতে লিখিত সনেটের বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। ১৬শ শতাব্দী থেকে এগুলো রচনা করা হয়। সেসময় সাইপ্রাস ভেনিস প্রজাতন্ত্রের অধীনে ছিল। এগুলোর মধ্যে বেশ কয়েকটি কবিতা ছিল প্রকৃতপক্ষে পেত্রার্ক, বেমবো, অ্যারিওস্টো এবং সান্নাজ্জারোর লিখিত কবিতার অনুবাদ। [২] উইলিয়াম শেক্সপিয়রের ওথেলো নাটকটির বেশিরভাগ দৃশ্যই ভেনিসের অধীনস্থ সাইপ্রাসের পটভূমিতে রচিত।

আধুনিক যুগ[সম্পাদনা]

সাইপ্রাসের আধুনিক সাহিত্য়িক যারা গ্রীক, তুর্কি এবং ইংরেজিতে তাদের সাহিত্য রচনা করেছেন তাদের উপর একটি বিস্তৃত গবেষণা পাওয়া যায় বাহরিয়ে কামালের লেখা গ্রন্থ- সাইপ্রাস: পোস্টকলোনিয়াল অ্যান্ড পার্টিশন্ড লিটরেচারস অব প্লেস অ্যান্ড স্পেস (সাইপ্রাস: ঔপনিবেশিক পরবর্তী এবং স্থান ও ভাষায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সাহিত্য) এ।

গ্রীক ভাষায় রচিত সাইপ্রাসের সাহিত্যের রচয়িতাদের মধ্যে আধুনিক সাহিত্যিকরা হলেনঃ কবি ও লেখক কোস্টাস মন্টিস, কবি কিরিয়াকোস কারালাম্বাইডস, ঔপন্যাসিক প্যানোস আইওনাইডস, কবি মিশালিস প্যাসার্ডিস, কবি / অনুবাদক স্টেফানোস স্টিফানাইডস, লেখক নিকোস নিকোলাইডস, ভৌতিক বিষয়ের লেখক ফিভোস কিপ্রিয়ানো, স্টাইলিয়ানোস অ্যাটেশলিস, লুকিস আক্রিটাস [৩] এবং ডিমেট্রিস থ. গটসিস। ডিমিত্রি লিপার্টিস, ভ্যাসিলিস মাইকেলাইডস এবং পাভলোস লিয়াসাইড প্রমুখ হলেন লোককবি যারা মূলত সাইপ্রিয়ট-গ্রীক উপভাষায় কবিতা লিখেছিলেন। [৪][৫] স্থানীয় উপভাষাটি লোকগীতি এবং কবিতার জন্য বহুকাল আগে থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে যার উদাহরণ হিসেবে উল্লেখযোগ্য হলোঃ τσιαττιστά (যুদ্ধের কবিতা, দ্য ডজন খেলার একটি রূপ) এবং ποιητάρηες (কবি) দের ঐতিহ্য।

তুর্কি ভাষায় রচিত সাইপ্রাসের সাহিত্যের রচয়িতাদের মধ্যে আধুনিক সাহিত্যিকরা হলেনঃ ওসমান তুর্কি, ওজকার ইয়াসিন, নিসা ইয়াসিন, নরমান চাহিত এবং মেহমেত ইয়াসিন। নিসা ইয়াসিন হলেন একজন সাইপ্রিয়ট তুর্কি কবিলেখক। তিনি মূলত তুর্কি ভাষায় লেখেন, যদিও তাঁর রচিত বেশিরভাগ গদ্য গ্রীক ও ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয়েছে। ২০০২ সালে তাঁর উপন্যাস সিকরেট হিস্টোরি অব স্যাড গার্লস উত্তর সাইপ্রাস এবং তুরস্কে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল এবং তাঁকে তুর্কি জাতীয়তাবাদীরা একাধিকবার হুমকি দেয়।[৬][৭] সেভগাল উলুদাগ একজন তদন্তকারী সাংবাদিক [৮] যিনি তাঁর পেশায় ভূমিকা রাখার পাশাপাশি হাজার হাজার হারিয়ে যাওয়া সাইপ্রিওটস এর তথ্য উন্মোচনে ভূমিকা রাখেন।[৯] তিনিও বেশ কয়েকটি বই রচনা করেছেন। [১০] উর্কিয়ে মাইন বালমান বিভিন্ন ঘরানার সাহিত্য লিখেছেন, তবে তাঁর রচনাগুলি বেশিরভাগ রোমান্টিক কবিতা যা কখনো একাকী গ্রামের মেয়ের কাহিনী আবার কখনো গ্রামীণ জীবন এবং দীর্ঘ-দূরত্বের প্রেমের বর্ণনা নিয়ে লিখিত। বালমান তাঁর রচনাগুলো তুরস্কের ইয়েসিলাদা, তুর্ক দিলি, আর তুরকে ডোগ্রু প্রভৃতি সাহিত্য পত্রিকায় প্রকাশ করেছেন। [১১]

সাইপ্রাসভিত্তিক লেখক যারা অন্যান্য ভাষায় লিখেছেন তাদের মধ্যে রয়েছে আর্মেনিয়ান সাইপ্রিয়ট কবি নোরা নাদজারিয়ান। বিভিন্ন দেশে স্থায়ী ও অস্থায়ী রাজনৈতিক প্রবাসী সাইপ্রিয়ট লেখকদের বিশ্বে সাহিত্যে বেড়েই চলেছে। পাশাপাশি বিদেশে জন্ম নেয়া বা বেড়ে ওঠা দ্বিতীয় এবং তৃতীয় প্রজন্মের সাইপ্রিয়ট লেখকরাও নিয়মিতভাবে ইংরেজিতে লেখালেখি করছেন। এদের মধ্যে আন্দ্রিস কউমি, মিরান্ডা হপলারোস, স্টিফেন লাফটন, ক্রিস্টি লেফ্টেরি, ইভ ম্যাকিস, মাইকেল প্যারাসকোস, স্টেল পাভলো এবং স্টেফানোস স্টেফানিডসের মতো লেখকরা রয়েছেন। [১২] পল স্টেনিং, লেখক এবং তৃতীয় আর্চবিশপ ম্যাকারিওস ক্রোনিকার পাফোসে থাকেন।

অন্যান্য[সম্পাদনা]

বিংশ শতাব্দীতে সাইপ্রাস প্রবাসী লেখকদের জন্য অনুপ্রেরণা এবং সাহিত্য়কর্ম সৃষ্টির স্থান ছিল।

লরেন্স ডুরেল ১৯৫২ সাল থেকে ২৬ আগস্ট থেকে ১৯৫৬ সাল অবধি সাইপ্রাসে ছিলেন এবং সেখানে তাঁর অবস্থানকাল সম্পর্কে বিটার লেমনস বইটি লেখেন, যা ১৯৫৭ সালে তাকে দ্বিতীয় ডাফ কুপার প্রাইজ এনে দেয়।

গ্রীসের নোবেল বিজয়ী লেখক জর্গোস সেফেরিস ভীষণভাবে সাইপ্রাস দ্বারা অনুপ্রাণিত ছিলেন। তিনি এই দ্বীপে গ্রীক কূটনৈতিক মিশনের জন্য কাজ করার সময় তাঁর অন্যতম বিখ্যাত রচনা (লগ বুক তৃতীয় - প্রথমে যার নাম ছিল- সাইপ্রাস, হোয়্যার ইট ওয়াজ অরডেইনড ফর মি...) লিখেছিলেন। ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক পল স্টুয়ার্ট ইতোপূর্বে সাইপ্রাসে অবস্থান করেছিলেন এবং এই দ্বীপটি ভিক্টোরিয়া হিসলপের 2015 উপন্যাস দ্য সানরাইজের পটভূমি ছিল। [১৩]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "An indication that at least the main contents of the Cypria were known around 650 BCE is provided by the representation of the Judgment of Paris on the Chigi vase" (Burkert 1992:103). On the proto-Corinthian ewer of ca. 640 BCE known as the Chigi "vase"[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ], Paris is identified as Alexandros, as he was apparently called in Cypria.
  2. Th. Siapkaras- Pitsillidés, Le Pétrarchisme en Cypre. Poèmes d' amour en dialecte Chypriote d' après un manuscript du XVIe siècle, Athènes 1975 (2ème édition)
  3. "Cyprus Stamp Issue: Loukis Akritas" 
  4. "Cyprus Stamp Issue: Cyprus Poets" 
  5. "Cyprus Stamp Issue: Centenary Birthday Anniversary of Poet Pavlos Liasides" 
  6. "Poet battles abuse from Turkish nationalists"। ২ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  7. "Goodbye to Freedom"। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  8. "Archived copy"। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৪-২৪ 
  9. missing Memories of Cyprus
  10. "Archived copy"। ২১ নভেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৪-২৪ 
  11. http://www.stwing.upenn.edu/~durduran/newpage/culture/poetry/toncul/onculpaper.html
  12. Alexander Davidian, 'A literary resilience' in The Cyprus Weekly (Cyprus newspaper), 10 January 2016
  13. Victoria Hislop, The Sunrise (London: Headline Review, 2015)