সময়ের প্রসারণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভিন্ন ভিন্ন ত্বরণে ঘড়ি কেন ভিন্ন ভিন্ন সময় পরিমাপ করে তা সময়ের প্রসারণ ব্যাখ্যা করে। যেমন, প্রতিবছর আইএসএস এর সময় পৃথিবী থেকে ০.০১৪ সেকেন্ড কমে যায়। পৃথিবীর ব্যাবস্থার সাথে তাল মিলিয়ে কাজ করতে, জিপিএস স্যাটেলাইটগুলিকে অবশ্যই স্থান-কাল স্থান-কালের বক্রতার জন্য সমন্বয় করতে হয়।[১]

সময়ের প্রসারণ বা টাইম ডাইলেশন হলো দুইটি ঘড়ি, যারা একে অপরের সাথে আপেক্ষিক বেগ সম্পন্ন বা মহাকর্ষীয় বিভব পার্থক্য সম্পন্ন অবস্থানে অবস্থান করছে, তাদের পরিমাপকৃত অতিক্রান্ত সময়ের পার্থক্য। কোনো পর্যবেক্ষক তার নিজের প্রসঙ্গ কাঠামোয় অবস্থিত কোনো ঘড়ির চেয়ে গতিশীল কোনো ঘড়িকে ধীরে চলতে দেখবে। আবার, কোনো বিশাল বস্তুর কাছাকাছি (এবং এর ফলে নিম্ন মহাকর্ষীয় বিভবে অবস্থিত) অবস্থিত কোনো ঘড়ি বস্তুটি থেকে দূরে (এবং এর ফলে উচ্চ মহাকর্ষীয় বিভবে অবস্থিত) অবস্থিত কোনো ঘড়ির চেয়ে ধীরে সময় পরিমাপ করবে।

আপেক্ষিকতা তত্ত্বের এই প্রস্তাবনাকে বহুবার পরীক্ষণের মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে। জিপিএস বা গ্যালিলিওর মত স্যাটেলাইট ন্যাভিগেশনের ক্ষেত্রে এই সময় প্রসারণ একটি সমস্যাও বটে।[১][২] সময়ের প্রসারণ বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনিরও বিষয় যেহেতু এটি টেকনিক্যালি সম্মুখমূখি সময় ভ্রমণ সময় ভ্রমণের প্রমাণ দেয়।[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

২০ শতকের কাছাকাছি সময়ে বেশ কিছু প্রণেতা লেরেন্টজ গুণক দ্বারা সময় প্রসারণের প্রস্তাবনা করেন।[৪][৫] জোসেফ লারমার (১৮৯৭), অন্তত নিউক্লিয়াসকে কেন্দ্র করে ঘূর্ণয়মান ইলেক্ট্রনের জন্য লেখেন, "...(অবশিষ্ট) ব্যাবস্থার জন্য কম সময়ে স্বতন্ত্র ইলেক্ট্রন সমূহ অনুপাতে তাদের কক্ষপথের অনুরূপ অংশের বর্ণনা দেয়"।[৬] এমিল কোন (১৯০৪) এই সূত্রকে ঘড়ির হারের সাথে বিশেষভাবে সম্পর্কীত করেন।[৭] বিশেষ আপেক্ষিকতার ক্ষেত্রে আলবার্ট আইন্সটাইন (১৯০৫) দেখান যে এই প্রভাব সময়ের প্রকৃতির সাথে সংস্রব রাখে, এবং তিনিই প্রথম এর ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া বা প্রতিসাম্য দেখান।[৮] পরবর্তীকালে, হারম্যান মিনকৌসকি (১৯০৭) প্রকৃত সময়ের ধারণা সামনে আনেন যা সময়ের প্রসারণের অর্থকে আরো পরিষ্কার করে।[৯]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ashby, Neil (২০০৩)। "Relativity in the Global Positioning System" (PDF)Living Reviews in Relativity6 (1): 16। doi:10.12942/lrr-2003-1PMID 28163638পিএমসি 5253894অবাধে প্রবেশযোগ্যবিবকোড:2003LRR.....6....1A 
  2. Lu, Ed। "Expedition 7: Relativity"Ed's Musing from SpaceNASA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-০৮ 
  3. "Is time travel possible?"NASA Space Place। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-০৩ 
  4. Miller, Arthur I. (১৯৮১)। Albert Einstein's Special Theory of Relativity: Emergence (1905) and Early Interpretation (1905–1911)বিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন। Reading, Massachusetts: Addison–Wesley। আইএসবিএন 978-0-201-04679-3 .
  5. Darrigol, Olivier (২০০৫)। The Genesis of the Theory of Relativity (PDF)Séminaire Poincaré1। পৃষ্ঠা 1–22। doi:10.1007/3-7643-7436-5_1আইএসবিএন 978-3-7643-7435-8 
  6. Larmor, Joseph (১৮৯৭)। "On a Dynamical Theory of the Electric and Luminiferous Medium, Part 3, Relations with Material Media"। Philosophical Transactions of the Royal Society190: 205–300। doi:10.1098/rsta.1897.0020অবাধে প্রবেশযোগ্যবিবকোড:1897RSPTA.190..205L 
  7. Cohn, Emil (১৯০৪), "Zur Elektrodynamik bewegter Systeme II" [On the Electrodynamics of Moving Systems II], Sitzungsberichte der Königlich Preussischen Akademie der Wissenschaften, 1904/2 (43): 1404–1416 
  8. Einstein, Albert (১৯০৫)। "Zur Elektrodynamik bewegter Körper"Annalen der Physik322 (10): 891–921। doi:10.1002/andp.19053221004বিবকোড:1905AnP...322..891E . See also: English translation.
  9. Minkowski, Hermann (১৯০৮) [1907], "Die Grundgleichungen für die elektromagnetischen Vorgänge in bewegten Körpern" [The Fundamental Equations for Electromagnetic Processes in Moving Bodies], Nachrichten von der Gesellschaft der Wissenschaften zu Göttingen, Mathematisch-Physikalische Klasse: 53–111 

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]