শ্রীলংকার গৃহযুদ্ধ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শ্রীলংকার গৃহযুদ্ধ
ශ්‍රී ලාංකික සිවිල් යුද්ධය
இலங்கை உள்நாட்டுப் போர்
Location Tamil Eelam territorial claim.png
এলটিটিই কর্তৃক তামিল ইলম হিসাবে দাবীকৃত শ্রীলংকার ভূমির মানচিত্র যেখানে প্রধান যুদ্ধগুলি সংগঠিত হয়েছে।
তারিখ২৩ জুলাই ১৯৮৩ – ১৮ মে ২০০৯[১]
(২৫ বছর, ৯ মাস, ৩ সপ্তাহ ও ৪ দিন)
অবস্থানশ্রীলংকা
ফলাফল
  • শ্রীলংকা সরকারের বিজয়
  • বিদ্রোহী দল লিবারেশন টাইগার্স অব তামিল ইলম সামরিকভাবে পরাজিত
  • শ্রীলংকা সরকার পুরো দ্বীপে পুনরায় নিজ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছেন
অধিকৃত
এলাকার
পরিবর্তন
এলটিটিই কর্তৃক দখলকৃত দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চল পুনরায় সরকারি নিয়ন্ত্রণে এসেছে।
যুধ্যমান পক্ষ

শ্রীলঙ্কা শ্রীলংকা


ভারত ভারতীয় শান্তিরক্ষী বাহিনী (১৯৮৭-১৯৯০)
লিবারেশন টাইগার্স অব তামিল ইলম
সেনাধিপতি

শ্রীলঙ্কা J. R. Jayawardene (১৯৮৩–১৯৮৯)
শ্রীলঙ্কা রাণাসিংগে প্রেমাদাসা  (১৯৮৯–১৯৯৩)
শ্রীলঙ্কা D. B. Wijetunga (১৯৯৩–1994)
শ্রীলঙ্কা Chandrika Kumaratunga (1994–2005)
শ্রীলঙ্কা মহীন্দ্র রাজাপক্ষে (২০০৫–২০০৯)


ভারত আর. ভেঙ্কোটরমন (১৯৮৭–১৯৮৯)
ভারত রাজীব গান্ধী (1987–1989) 
ভি. প্রভাকরণ  (১৯৮৩–২০০৯)
বলরাজ
Karuna Amman (1983–2004)
KP
Mahattaya  মৃত্যুদণ্ড
পত্তু আম্মান
শংকর 
শসাই 
শক্তি

শ্রীলঙ্কা শ্রীলংকান সেনাবাহিনী:
৯৫,০০০ (২০০১)
১,১৮,০০০ (২০০২)
১,৫৮,০০০ (২০০৩)
১,৫১,০০০ (২০০৪)
১,১১,৯০০ (২০০৫)
১,৫০,৯০০ (২০০৬)[২]
210,000 (2008)[২]


ভারত ভারতীয় শান্তিরক্ষী বাহিনী:
১,০০,০০০ (সর্বোচ্চ)
লিবারেশন টাইগার্স অব তামিল ইলম
(excluding Auxiliary forces):
6,000 (2001)
7,000 (2003
18,000 (2004)[২][৩])
11,000 (2005)
8,000 (2006)
7,000 (2007)[২][৪]
(including Auxiliary forces):
25,000 (2006)
30,000 (2008)[৫]
হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতি

শ্রীলঙ্কা 23,327+ killed
60,000+ wounded (Sri Lankan military and police)[৬][৭][৮]


ভারত ১,২০০ নিহত
(ভারতীয় শান্তিরক্ষী বাহিনী)[৯]
২৭,০০০+ নিহত[১০][১১][১২][১৩]
১১,৬৪৪ বন্দী[১৪]
100,000+ killed overall (estimate)[১৫]
৮,০০,০০০ উদ্বাস্তু ২০০১ সালের সর্বোচ্চ উত্তেজনা চলাকালীন সময়[১৬]
১৬ মে ২০০৯: শ্রীলংকা সরকার সেনা অভিযানেএলটিটিই'র পতনের ঘোষনা দেয়।[১৭]
১৭ মে ২০০৯: এলটিটিই স্বীকার করে নেয় শ্রীলংকা সরকার কর্তৃক পরাজয়ের দাবীকে।[১৮]
১৯ মে ২০০৯: রাস্ট্রপতি মাহিন্দ্র রাজাপাকশে সংসদে আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহযুদ্ধ অবসানের কথা ঘোষনা করেন।

শ্রীলংকার গৃহযুদ্ধ হলো পুরো শ্রীলংকা দ্বীপ জুড়ে সংঘটিত হওয়া একটি সশস্ত্র সংঘাত। ১৯৮৩ সালের ২৩ জুলাই তারিখ থেকে শুরু হওয়া সরকারের বিরুদ্ধে বিরতিহীন এই বিদ্রোহটি ছিল লিবারেশন টাইগার্স অব তামিল ইলম (এলটিটিই; যারা তামিল টাইগার নামেও পরিচিত) কর্তৃক দ্বীপের উত্তর ও পূর্ব অংশ নিয়ে তামিল ইলম নামে তামিল জাতিগোষ্ঠীর জন্য একটি স্বাধীন তামিল রাষ্ট্র গঠনের লড়াই। ২৬ বছর ধরে সামরিক অভিযান পরিচালনার পর শ্রীলংকার সামরিক বাহিনী ২০০৯ সালের মে মাসে তামিল টাইগারদেরকে পরাজিত করার মাধ্যমে গৃহযুদ্ধের সমাপ্তি ঘটাতে সক্ষম হয়।[১]

২৫ বছরেরও অধিক সময় ধরে চলা এই যুদ্ধে দেশের জনসংখ্যা, পরিবেশ ও অর্থনীতির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য পরিমাণের ক্ষতির সৃষ্টি হয়েছে, যা প্রাথমিক হিসাব অনুসারে ৮০,০০০-১,০০,০০০ জন মানুষের জীবনহানির কারণ হয়েছে।[১৫] ২০১৩ সালে জাতিসংঘের প্রেরিত দল যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে অতিরিক্ত মৃত্যুর ঘটনা ঘটার বিষয়েটি উল্লেখ করেছে: "প্রায় ৪০,০০০-এরও বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে, যদিও অন্যান্য স্বাধীন প্রতিবেদনগুলি আনুমানিক মৃত্যুর সংখ্যা ১,০০,০০০ অতিক্রম করার কথা দাবী করছে।"[১৯] সংঘর্ষের প্রাথমিক পর্যায়ে শ্রীলংকার সেনাবাহিনী এলটিটিই কর্তৃক দখলকৃত এলাকা পুনর্দখলের করার জন্য প্রচেষ্টা চালায়। সরকারি বাহিনীগুলোর বিরুদ্ধে নেয়া লিবারেশন টাইগারস অব তামিল ইলমের কর্মপন্থার কারণে এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, কানাডা এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলি সহ ৩২টি দেশে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভূক্ত গোষ্ঠীতে পরিণত হয়।[২০] শ্রীলংকার সরকার বাহিনীকেও মানবাধিকারের অপব্যবহার, নিয়মিত শাস্তি প্রদানের দ্বারা গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন, আটকদের প্রতি মানবিক সন্মান প্রদর্শনের অভাব এবং জোরপূর্বক অন্তর্ধান সম্পর্কিত অভিযোগসমূহের দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে।[২১]

ভারতীয় সেনাবাহিনীর অসফল চেষ্টার অংশ হিসাবে ১৯৮৭ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ভারতীয় শান্তি রক্ষী বাহিনীর উপস্থিতি সহ দুই দশকের যুদ্ধ এবং শান্তি আলোচনার চারটি প্রচেষ্টা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হলে, এই সংঘর্ষের একটি স্থায়ী সফল নিষ্পত্তির সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছিল যখন ২০০১ সালের ডিসেম্বর মাসে একটি যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করা হয় এবং ২০০২ সালে আন্তর্জাতিক মধ্যস্থতাকারীদের সহায়তায় একটি যুদ্ধবিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।[২২] পরবর্তীতে, ২০০৫ সালের শেষের দিকে সীমিত শান্তির অবসান ঘটিয়ে যুদ্ধের পুনরাবৃত্তি ঘটে এবং জুলাই ২০০৬ সালে সরকার পর্যায়ক্রমে ধাপে ধাপে এলটিটিই'র বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি প্রধান সামরিক অভিযান শুরুর দ্বারা সমগ্র পূর্বাঞ্চল থেকে এলটিটিইকে সরিয়ে দেয়ার জন্য অভিযান চালানো শুরু না-করা পর্যন্ত তা বজায় থাকে। এলটিটিই তখন ঘোষণা করে যে তারা "নিজেদের জন্য একটি পৃথক রাজ্য অর্জনের জন্য তাদের স্বাধীনতা সংগ্রাম পুনরায় শুরু করবে"।[২৩][২৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "LTTE defeated; Sri Lanka liberated from terror"Ministry of Defence। ১৮ মে ২০০৯। ২১ মে ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০০৯ 
  2. International Institute for Strategic Studies, Armed Conflicts Database. ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১১ মে ২০০৬ তারিখে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "iiss1" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  3. [১].
  4. Opposition leader rebutts [sic] Sri Lankan government claims.
  5. "Humanitarian Operation – Factual Analysis, July 2006 – May 2009" (PDF)Ministry of Defence (Sri Lanka)। ১ আগস্ট ২০১১। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  6. "Psychological Management of Combat Stress—A Study Based on Sri Lankan Combatants" (PDF)। ১৩ ডিসেম্বর ২০০৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০০৮ 
  7. "Sri Lanka Assessment 2007"। Satp.org। ১৬ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মে ২০০৯ 
  8. "Sri Lankan army deaths revealed"। BBC News। ২২ মে ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১০ 
  9. Nakkawita, Wijitha (৩ জুন ২০০৯)। "LTTE killing spree"Daily News। ১১ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১২ 
  10. "Sri Lanka Database – Casualties of Terrorist violence in Sri Lanka"। Satp.org। ৩ জুন ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০০৯ 
  11. Eelam War IV: Imminent End ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১২ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে.
  12. Tamils mark 25-years of Tiger sacrifice Tamilnet .
  13. 4073 LTTE cadres killed in ongoing battle.
  14. "Sri Lankan experience proves nothing is impossible"The Sunday Observer। ৫ জুন ২০১১। ৮ জুন ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০১১ 
  15. "Up to 100,000 killed in Sri Lanka's civil war: UN"ABC Australia। ২০ মে ২০০৯। 
  16. "UNHCR Overview: IDPs in Sri Lanka" 
  17. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; voas নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  18. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; tonline1 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  19. Mahr, Krista। "Sri Lanka to Start Tally of Civil-War Dead" – world.time.com-এর মাধ্যমে। 
  20. See here for related references.
  21. "International Commission of Jurists Submission to the Universal Periodic Review of Sri Lanka" (PDF)International Commission of Jurists। এপ্রিল ২০১২। ২৫ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০১২ 
  22. "Ceasefire raises Sri Lankan peace hopes"The Guardian। London। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১০ 
  23. "Sri Lanka's war seen far from over"Amal Jayasinghe। Agence France-Presse। ১৪ জুলাই ২০০৭। 
  24. "Sri Lankan Government Finds Support From Buddhist Monks"The New York Times। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৭। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]