শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান


শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমস হল একটি আন্তর্জাতিক বহু-ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, যেখানে শারিরীকভাবে অক্ষম বা প্রতিবন্ধী ক্রীড়াবিদগণ অংশগ্রহণ করে। শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমস শীতকালীন অলিম্পিক গেমসের সমান্তরালে প্রতি চার বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয়। শীতকালীন অলিম্পিক গেমসের স্বাগতিক শহর একইসাথে শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমসেরও স্বাগতিক শহর। আন্তর্জাতিক প্যারালিম্পিক কমিটি শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমস তত্ত্বাবধান করে। প্রত্যেক ক্রীড়ার জন্য এক বা একাধিক বিষয়ে প্রতিযোগিতা হয় এবং প্রতিটি বিষয়ের প্রতিযোগীদেরকে প্রথম স্থান অর্জনের জন্য স্বর্ণ পদক, দ্বিতীয় স্থান অর্জনের জন্য রৌপ্য পদক এবং তৃতীয় স্থান অর্জনের জন্য ব্রোঞ্জ পদক প্রদান করা হয়, যা ১৯০৪ সালে অলিম্পিক গেমসের মাধ্যমে শুরু হয়েছিল।

প্রথম শীতকালীন প্যারালিম্পিক ১৯৭৬ সালে সুইডেনের ওরন্সকোল্ডভিকে শুরু হয়। সেই গেমস প্যারালিম্পিকের প্রথম ছিল, যেখানে হুইলচেয়ার ক্রীড়াবিদের চেয়ে অন্যান্য ক্রীড়াবিদগণ বেশি বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ছিল। এই গেমসটি অলিম্পিক গেমসের পর ( একমাত্র গ্রীষ্মকালীন প্যারালিম্পিক গেমস ছাড়া) সবচেয়ে বড় ও সম্প্রসারিত আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা হয়ে উঠে। তাদের এ সম্প্রসারণের ফলে একটি সুনির্দিষ্ট শ্রেণীবিন্যাস পদ্ধতির প্রয়োজন হয়ে উঠে। এ পদ্ধতি বিতর্ক বৃদ্ধি করে এবং একইসাথে প্রতারণার জন্য দরজা উন্মুক্ত করে। এছাড়াও শীতকালীন প্যারালিম্পিয়ানরা স্টেরোইড ব্যবহারের জন্য এবং প্যারালিম্পিক ক্রীড়াবিদগণ প্রতারণার অন্যান্য ধরন ব্যবহারের জন্য দোষী সাব্যস্ত হয়, যা গেমসের অখণ্ডতা কলুষিত করে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

গ্রীষ্মকালীন প্যারালিম্পিক গেমসের মত করেই শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমসের উদ্ভব হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ হতে ফেরত আহত সৈনিকদের সুস্থ ও সাবলীল জীবন যাপনের পথ হিসাবে এ ক্রীড়া অনুষ্ঠান।[১] ড. লুডভিগ গুডম্যান কর্তৃক সংগঠিত, ব্রিটিশ ক্রম স্বাস্থ্যপুনরুদ্ধারকারী হাসপাতালে চালু হওয়া ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত চলে, যখন ১৯৬০ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের পর রোমে প্যারালাল অলিম্পিক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ ১৯৬০ প্যারালিম্পিক গেমসে ৪০০ জনের বেশি হুইলচেয়ার ক্রীড়াবিদ অংশগ্রহণ করে, যা প্রথম প্যারালিম্পিক গেমস হিসাবে পরিচিত।[১]

প্রতারণা[সম্পাদনা]

ক্রীড়াবিদগণ অতিরিক্ত প্রতিনিধিত্বমূলক বিকলাঙ্গতার মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় সুবিধা গ্রহণ এবং কর্মক্ষমতা বৃদ্ধির ওষুধ নেওয়ার মাধ্যমে প্রতারণা করে।[২][৩] ২০০২ সালে স্টেরোইড পরীক্ষায় পজিটিভ ফলাফলে জার্মান স্কিয়ার থমাস ওয়েল্সনার হলেন প্রথম শীতকালীন প্রতারক প্যারালিম্পিয়ান। তিনি আলপাইন ইভেন্টে দুটি স্বর্ণ পদক জিতেছিলেন, কিন্তু তার পদক কেড়ে নেওয়া হয়েছিল।[৪] প্যারালিম্পিক কর্মকর্তারা আরও একটি উদ্বেগ, রক্তচাপ বাড়ানোর কৌশলের সম্মুখিন, যা অটোনোমিক ডাইস্রেফ্লেক্সিয়া নামে পরিচিত। এটি রক্তচাপ বৃদ্ধি করে ১৫% কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে এবং এটি অধিক সহনশীল ক্রীড়ায় (যেমন: ক্রস কান্ট্রি স্কিং) বেশ কার্যকরি।

অক্ষমতার শ্রেণী[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক প্যারালিম্পিক কমিটি গ্রীষ্মকালীন ও শীতকালীন প্যারালিম্পিক উভয় গেমসের আবেদনের উপর ছয়টি অক্ষমতার শ্রেণী প্রতিষ্ঠিত করেছে। ক্রীড়াবিদগণ এই অক্ষমতার যেকোন একটি বিষয়ে অক্ষম হলে প্যারালিম্পিক গেমসে অংশগ্রহণের উপযুক্ত হয়, যদিও না প্রতিটি ক্রীড়া প্রতিটি অক্ষমতার জন্য অনুমিত।[৫]

  • অ্যাপুটি/অঙ্গছেদ: কমপক্ষে একটি উপাঙ্গের সম্পূর্ণ বা আংশিক অংশ হারানো ক্রীড়াবিদ।
  • হুইলচেয়ার: মেরুদন্ডে আঘাত এবং অন্যান্য অক্ষমতা যার জন্য প্রতিদ্বন্দিতা করতে তাদের হুইলচেয়ার আবশ্যক এমন ক্রীড়াবিদ।

শ্রেণীবিন্যাসকরণ[সম্পাদনা]

ক্রীড়াবিদদের আজও ছয়টি অক্ষমতা শ্রেণীর মধ্যে তাদের বৈকল্যের স্তর অনুযায়ী বিভক্ত করা প্রয়োজন হয়। এই শ্রেণীবিন্যাস পদ্ধতি ক্রীড়া হতে ক্রীড়া পৃথক করে। যত বেশি সম্ভব তত বেশি ক্রীড়াবিদের নিকট প্যারালিম্পিক ক্রীড়াসমূহ উন্মুক্ত করতে এই পদ্ধতি ডিজাইন করা হয়, যাতে সমপর্যায়ের সামর্থ্যবান ক্রীড়াবিদ পরস্পরের সাথে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারে। নিকটতম সমকক্ষ সুস্থ প্রতিযোগিতায় বয়সের শ্রেণীবিন্যাস হয় কনিষ্ঠ ক্রীড়ায় এবং ওজনের শ্রেণীবিন্যাস হয় কুস্তি, মুষ্টিযুদ্ধ ও ভারোত্তোলনে।

ক্রীড়াসমূহের তালিকা[সম্পাদনা]

      অনিয়মিত ক্রীড়া নির্দেশকারী রঙ

ক্রীড়া বছর
আলপাইন স্কিং সকল
আইস স্লেজ হকি ১৯৯৪ থেকে
আইস স্লেজ রেসিং ১৯৮০–১৯৮৮, ১৯৯৪–১৯৯৮
নোর্ডিক স্কিং বায়াথলন ১৯৮৮ থেকে
নোর্ডিক ক্রস কান্ট্রি স্কিং সকল
প্যারা স্নোবোর্ডিং ২০১৪ থেকে
হুইলচেয়ার কার্লিং ২০০৬ থেকে

গেমস সমূহ[সম্পাদনা]

শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমস[৬]
বছর গেমস স্বাগতিক শহর দেশ
১৯৭৬ শীতকালীন প্যারালিম্পিক I ওরন্সকোল্ডভিক  সুইডেন
১৯৮০ শীতকালীন প্যারালিম্পিক II গেইলো  নরওয়ে
১৯৮৪ শীতকালীন প্যারালিম্পিক III ইন্সব্রুক  অস্ট্রিয়া
১৯৮৮ শীতকালীন প্যারালিম্পিক IV ইন্সব্রুক  অস্ট্রিয়া
১৯৯২ শীতকালীন প্যারালিম্পিক V টিগনেসআলবার্টভিল  ফ্রান্স
১৯৯৪ শীতকালীন প্যারালিম্পিক VI লিলেহামার  নরওয়ে
১৯৯৮ শীতকালীন প্যারালিম্পিক VII নাগানো  জাপান
২০০২ শীতকালীন প্যারালিম্পিক VIII সল্ট লেক সিটি  যুক্তরাষ্ট্র
২০০৬ শীতকালীন প্যারালিম্পিক IX তুরিন  ইতালি
২০১০ শীতকালীন প্যারালিম্পিক X ভ্যানকুভার  কানাডা
২০১৪ শীতকালীন প্যারালিম্পিক XI সোচি  রাশিয়া
২০১৮ শীতকালীন প্যারালিম্পিক XII পিয়ংচ্যাঙ  দক্ষিণ কোরিয়া
২০২২ শীতকালীন প্যারালিম্পিক XIII বেইজিং  গণচীন

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "History of the Paralympics" (ইংরেজি ভাষায়)। BBC Sport। ২০০৮-০৯-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-২১ 
  2. Slot, Owen (২০০১-০২-০৩)। "Cheating shame of Paralympics"The Daily Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। London: Telegraph Media Group। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৭ 
  3. Grey-Thompson, Tanni (২০০৮-০৯-১১)। "Cheating does happen in the Paralympics"The Daily Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। London: Telegraph Media Group। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৭ 
  4. Maffly, Bryan (২০০২-০৩-১৩)। "Skier Fails Drug Test" (ইংরেজি ভাষায়)। Salt Lake 2002 Paralympics। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৭ 
  5. "Making sense of the categories" (ইংরেজি ভাষায়)। BBC Sport। ২০০০-১০-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৭ 
  6. "Past Games" (ইংরেজি ভাষায়)। International Paralympic Committee। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:শীতকালীন প্যারালিম্পিক গেমসের স্বাগতিক শহর