শিয়ালদহ-বনগাঁ লাইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শিয়ালদহ - বনগাঁ লাইন
KolkataLocalTrain.JPG
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
ধরনযাত্রিবাহি পরিষেবা
সিস্টেমকলকাতা শহরতলি রেল
অবস্থাচালু
অঞ্চলপশ্চিমবঙ্গ
বিরতিস্থলশিয়ালদহ
বনগাঁ
স্টেশনসমূহ২৪
রুটশিয়ালদহ–বারাসাত এবং বারাসাত–বনগাঁ
ওয়েবসাইটপূর্ব রেলওয়ে
ক্রিয়াকলাপ
উদ্বোধন১৮৮৪; ১৩৮ বছর আগে (1884)
মালিকভারতীয় রেল
পরিচালকপূর্ব রেল
বৈশিষ্ট্যভূমিগত
ঘাঁটি(গুলি)শিয়ালদহ
বারাসাত
প্রযুক্তিগত
রেলপথের দৈর্ঘ্য৭৭ কিমি (৪৮ মা)
ট্র্যাক গেজটেমপ্লেট:Track gauge ব্রড গেজ
চালন গতি১০০ কিমি প্রতি ঘন্টা অব্দি
বিদ্যুতায়ন25 kV overhead line
পথের মানচিত্র
টেমপ্লেট:শিয়ালদহ-বনগাঁ লাইন

শিয়ালদহ - বনগাঁ লাইনটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ শিয়ালদহ এবং বনগাঁওকে সংযুক্ত করে। এটি দমদম জংশন, শিয়ালদহ – রানাঘাট লাইন, বারাসাত – হাসনাবাদ লাইন বারাসাত জংশন এবং বনগাঁ-রানাঘাট লাইনের সাথে বনগাঁ জংশন কে যুক্ত করে। এই লাইনটি কলকাতা মেট্রো এবং দমদম জংশন কলকাতা সার্কুলার রেলপথ এবং দমদম ক্যান্টনমেন্ট কলকাতা মেট্রোর সাথে আন্তঃ পরিবর্তনের সুবিধা রয়েছে। এটি কলকাতা শহরতলির রেল ব্যবস্থার অংশ এবং পূর্ব রেলওয়ের এখতিয়ারে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পূর্ববাংলা রেলপথের মূল লাইন শিয়ালদহ থেকে রানাঘাট পর্যন্ত ১৮৬২ সালে খোলা হয়েছিল। এরপর একই বছরে কুষ্টিয়া পর্যন্ত প্রসারিত হয়েছিল, যা বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থিত। [১] ১৮৮২-৮৪ সালে, বেঙ্গল সেন্ট্রাল রেলওয়ে সংস্থাকে দুটি লাইন তৈরির জন্য কমিশন দেওয়া হয়েছিল: একটি দম দম থেকে খুলনা (এখন বাংলাদেশে অবস্থিত), বনগাঁ হয়ে ; এবং অন্যটি রানাঘাট এবং বনগাঁকে সংযুক্ত করে। [১] ১৯৫৭ থেকে ১৯৬২ এর মধ্যে ন্যারো গেজ থেকে ১,৬৭৬ মিলিমিটার (৫ ফুট ৬ ইঞ্চি) -ব্যাপী ব্রডগেজে রূপান্তরিত হয়েছিল। [২] এটি ১৯০৩ সালে পূর্ব বাংলা রেলওয়ের সাথে য়ুক্ত করা হয়।[৩]

বিদ্যুতায়ন[সম্পাদনা]

১৯৬৩-৬৪ সালে শিয়ালদহ-অশোকনগর সেক্টর বিদ্যুতায়িত হয়েছিল। [৪] বাকী লাইনটি ১৯৭০ এর দশকে বিদ্যুতায়িত হয়েছিল।

যাত্রী[সম্পাদনা]

লাইন-ভিত্তিক বা রুট-ভিত্তিক যাত্রী ডেটা উপলভ্য নয়, তবে শিয়ালদা স্টেশনে প্রতিদিন (ইএমইউ লোকাল সহ) ৭০৪ টি চলাচলকারী ট্রেনে ১.৫ মিলিয়ন যাত্রী যাতায়াত করে, এবং প্রধান লাইন হওয়ায়, ভালো অনুপাতে লোক এই লাইনটির ব্যবহার হয়। [৫]

গাড়ি শেড[সম্পাদনা]

শিয়ালদহের নিকটবর্তী নারকেলডাঙা খালের পাশে একটি বিশাল ইএমইউ গাড়ি শেড রয়েছে, এতে লোকোমোটিভগুলি থাকার জন্য অনেক জায়গা রয়েছে এবং বারাসাতে একটি ইএমইউ গাড়ি শেডও রয়েছে যা স্টেশনটির সামগ্রিক কাঠামোর একটি অংশ তৈরি করে, রেল ইঞ্জিন এবং গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ট্রেনের জন্য নকশাকৃত। [৬]

ট্র্যাক[সম্পাদনা]

শিয়ালদহ – বনগাঁ লাইনে বর্তমানে দুটি ট্র্যাক রয়েছে; যদিও কয়েকটি স্টেশনে, কিছু স্থানীয় ট্রেনের উৎস এবং গন্তব্যর জন্য একটি অতিরিক্ত প্ল্যাটফর্ম এবং ট্র্যাক তৈরি করা হয়েছে।

বর্ডার[সম্পাদনা]

বনগাঁ এই নির্দিষ্ট রুটের শেষ স্টেশন হলেও লাইনটি ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এবং এর বাইরেও প্রসারিত। [৭]

পেট্রাপোল, যা আন্তর্জাতিক সীমান্তের ভারতীয় পাশে অবস্থিত, একটি ল্যান্ড কাস্টম স্টেশন রয়েছে এবং ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে প্রায় বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্যর অর্ধেকের ও বেশি পরিচালনা করে। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে যাওয়ার অত্যন্ত সংকীর্ণ রাস্তাগুলির উন্নতির দূরবর্তী সম্ভাবনা থাকার কারণে, ভূমি অধিগ্রহণের সমস্যার কারণে মূল রেলপথ ব্যবস্থার উন্নতির দিকে এখন প্রধান দৃষ্টি নিবদ্ধ রয়েছে। [৮]

ট্রেন[সম্পাদনা]

এই ট্র্যাকটি ব্যবহার করে একমাত্র এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ট্রেনটি হল বন্ধন এক্সপ্রেস যা কলকাতা থেকে ঢাকা অবধি চলে। এছাড়াও এই রুটে প্রচুর লোকাল ট্রেন চলাচল করে যা এই রুটগুলিতে: [৯] [১০]

  • শিয়ালদহ – বনগাঁ লোকাল
  • শিয়ালদহ – ঠাকুরনগর লোকাল
  • শিয়ালদহ – গোবরডাঙ্গা লোকাল
  • শিয়ালদহ – হাবড়া লোকাল
  • শিয়ালদহ – দত্তপুকুর লোকাল
  • শিয়ালদহ – বারাসত লোকাল
  • শিয়ালদহ -- মধ্যমগ্রাম লোকাল
  • শিয়ালদহ -- দমদম ক্যান্টনমেন্ট লোকাল
  • শিয়ালদহ – হাসনাবাদ লোকাল
  • শিয়ালদহ – বসিরহাট লোকাল

স্টেশন[সম্পাদনা]

এই রুটের রেল স্টেশনগুলি হ'ল:

স্টেশন নং ট্রেন স্টেশন
শিয়ালদহ
বিধাননগর রোড
দম দম জংশন
দম দম ক্যান্টনমেন্ট
দূর্গানগর
বিরাটি
বিশারপাড়া কোদালিয়া
নিউ ব্যারাকপুর
মধ্যমগ্রাম
১০ হৃদয়পুর
১১ বারাসাত জংশন
১২ বামনগাছি
১৩ দত্তপুকুর
১৪ বিড়া
১৫ গুমা
১৬ অশোকনগর রোড
১৭ হাবড়া
১৮ সনহাতি হল্ট
১৯ Machlandapur
২০ গোবরডাঙ্গা
২১ ঠাকুরনগর
২২ চাদপাড়া
২৩ বিভূতি ভূষণ হল্ট
২৪ বনগাঁ জংশন

গ্যালারী[সম্পাদনা]


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The Chronology of Railway development in Eastern Indian"। Rail India। ২০১২-০৮-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-১০ 
  2. "Non-IR Railways in India"IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-১০ 
  3. "Bengal Central Railway"। fibis। সংগ্রহের তারিখ ২ মে ২০১৩ 
  4. "History of Electrification"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৩ 
  5. "Few Toilets at Howrah, Sealdah"The Times of India। ২৮ নভেম্বর ২০০১। ৮ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-১০ 
  6. "Sheds and Workshops"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৩ 
  7. "Capexil plea to convert Petrapole LCS into port"The Hindu Business Line। ২৬ মার্চ ২০০৪। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ মে ২০১৩ 
  8. Pratim Ranjan Bose and Abhisek Law (৩ এপ্রিল ২০১৩)। "Customs wants better rail link through Petrapole"The Hindu Business Line। সংগ্রহের তারিখ ২ মে ২০১৩ 
  9. "Trains from Dum Dum to Bangaon"India Rail Info 
  10. "Trains from Dum Dum to Dum Dum Cantonment"erail.in