শাহরাম শাবপারেহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শাহরাম শাবপারেহ
Shahram Shabpareh 2018.jpg
২০১৮ সালে শাবপারেহ
প্রাথমিক তথ্য
স্থানীয় নামشهرام شب‌پره
আরো যে নামে
পরিচিত
ফার্সি পপ সম্রাট
জন্ম (1948-02-06) ৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৮ (বয়স ৭১)
তেহরান, ইরান
উদ্ভবতেহরান, ইরান
ধরন
পেশা
  • গায়ক
  • গীতিকার
  • সুরকার
  • অভিনেতা
বাদ্যযন্ত্রসমূহ
কার্যকাল১৯৬৪–বর্তমান
লেবেল
ওয়েবসাইটwww.shahramshabpareh.com

শাহরাম শাবপারেহ (ফার্সি: شهرام شب‌پره‎‎, জন্ম: ৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৮, তেহরান) একজন ইরানি পপ গায়ক, গীতিকার, সুরকার এবং অভিনেতা।[১] ১৯৬০-এর দশকে তার সঙ্গীতপেশার গোড়াপত্তন হলেও ১৯৭৭ সালে প্রকাশ করলেন তার প্রথম একক অ্যালবাম রক অ্যান্ড রোল। প্রায় পাঁচ দশকের সঙ্গীতজীবনে তার পঁচিশের অধিক একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও রয়েছে একাধিক নিজস্ব সঙ্গীত সংকলন। শাবপারেহকে ফার্সি পপ সঙ্গীতের সম্রাট আখ্যা দেয়া হয়। ১৯৭০-এর দশকে অভিনয় শুরু করেন তিনি, এবং অরোজ দেজলে (১৯৭৪), শব-ই গরিবান (১৯৭৫), আলাফা-ই হার্জ (১৯৭৬), মাহিহা দার খাক মিমিরান্দ (১৯৭৭), এবং বুয়ি গন্দম (১৯৭৭) ইরানি চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। পাশাপাশি তিনি টেলিভিশন ধারাবাহিকেও কাজ করেছেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৬০-এর দশকে "ব্ল্যাক ক্যাট"

শাহরাম শাবপারেহ ৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৮ সালে ইরানে তেহরানের এক সঙ্গীতপ্রিয় পরিবারে জন্ম নেন। তার বাবা মোহাম্মদ, একজন সামরিক কর্মকর্তা এবং মা, ফুরোজ্জামান, একজন শিক্ষাবিদ। এরা দুজনেই বাদ্যযন্ত্র বাজাতেন। শাহরামের দুই ভাই শাহবল ও শাহনাম এবং বোন শাহনাজ সঙ্গীত পেশায় জড়িত ছিলেন। শাহবল, একজন ক্যারিনেট বাদক, যিনি ১৯৬০-এর দশকে হাসান শামীমাজাদ, শাহরাম শাবপারেহ এবং ফরহাদ মেহরাদ সহযোগে "ব্ল্যাক ক্যাট", কিংবদন্তি ফার্সি পপ সঙ্গীত ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা।[২][৩] শাহনাম টেক্সাসে বসবাসরত একজন পেশাদার গিটারবাদক এবং বোন শাহনাজ পিয়ানোয় সম্মানিত ভিয়েনা সঙ্গীত সংরক্ষণ বিষয়ে স্নাতক।[৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৬০-এর দশকের গোড়ার দিকে ১৩ বছর বয়সে তিনি ড্রাম বাদক হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। ১৬ বছর বয়সে তিনি কাস্পিয়ান সমুদ্রের নিকটবর্তী উত্তর ইরানের রিসর্ট মোটেল ঘো-তে প্রথম ফার্সি পপ শৈলীতে বিটলসের "আই স হার স্ট্যান্ডিং দেয়ার" গানের পুনর্নির্মাণের মাধ্যমে পেশাদার সঙ্গীত পরিবেশন করেছিলেন। ১৯৬০-এর মাঝামাঝি সময়ে, ১৭ বছর বয়সে তিনি "রেবল্স" নামে নিজের একটি ব্যান্ড গঠন করেছিলেন। পরবর্তীতে ব্যান্ডটিতে তরুণ ইবি (ইব্রাহিম হামেদি) এবং শিয়াবাশ ঘোমায়শি এই ব্যন্ডে বাজিয়েছিলেন।[৪]

পরে শাহরাম গায়ক হিসাবে খ্যাতি লাভ করে এবং ইরানে ইসলামি বিপ্লবের আগে ইরান থেকে অভিবাসনে ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেস চলে যান।[৪] এযাবৎ তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। ৫০ বছরের কর্মজীবনে, তিনি ইরানি সমাজের একজন জনপ্রিয় শিল্পী এবং তার কনসার্টগুলো বিশ্বজুড়ে ইরানিদের দ্বারা প্রশংসিত হয়েছে। তিনি পার্সিয়ান ট্যালেন্ট শো'র একজন বিচারক।[৫]

১৯৭৭ সাল থেকে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন, তার প্রথম চলচ্চিত্র অরোজ দেজলে সে বছরই মুক্তি পায়।

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

ফার্সি নববর্ষ কনসার্টে শাবপারেহ, অ্যারিনা ওবারহাউসেন, মার্চ ২০১৪

স্টুুডিও অ্যালবাম[সম্পাদনা]

  • রক অ্যান্ড রোল (১৯৭৭)
  • গর্গ বা বাড়ে (১৯৭৭)
  • দিওয়ার (১৯৭৯)
  • মোসাফের (১৯৮১)
  • ইরান ইরান (১৯৮২)
  • শহরে ইশঘ? (১৯৮৩)
  • তেলেস্ম (১৯৮৪)
  • মাদ্রেসে (পারিয়াহ) (১৯৮৫)
  • স্পার্ক (১৯৮৬)
  • বাঘে আলেফবা (১৯৮৭)
  • হিচ কোডযা ইরান নিমিশে (১৯৮৬)
  • খেজালাটি (১৯৮৮)
  • শাগের্ড-এ-আভাল (১৯৯০)
  • সামার অব নাইন্টিটু (১৯৯২)
  • সামার অব নাইন্টিফোর (১৯৯৪)
  • স্টোরি (১৯৯৫)
  • দো রাহি (১৯৯৬)
  • রিদম অব দ্য নাইট (১৯৯৮)
  • দিদার (১৯৯৯)
  • দোনিয়া (২০০১)
  • ফায়ার (২০০৫)
  • তাপেস (২০০৮)
  • তার তা গীতার (২০১২)

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

  • অরোজ দেজলে (১৯৭৪)
  • শব-ই গরিবান (অনু.বিদেশীদের রাত) (১৯৭৫)
  • আলাফা-ই হার্জ (অনু.আগাছা) (১৯৭৬)
  • মাহিহা দার খাক মিমিরান্দ (অনু.মাটিতে মাছে মারা যায়) (১৯৭৭)
  • বুয়ি গন্দম (অনু.গমের ঘ্রাণ) (১৯৭৭)

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Shahram Shabpareh on Bolour Banafsh"। bbcpersian.com। ১৫ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 
  2. "Starting with Shabpareh – Iranican"। iranican.com। ২০১৬-০৩-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-০৬ 
  3. "Farhad Mehrad's Official Website"। farhadmehrad.org। ২০১৯-১০-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-০৬ 
  4. "শাহরাম শাবপারেহ"। Kodoom LLC। ১৫ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 
  5. "Persian talent Show in Dubai"। kodoom। ৩০ মে ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]