শার্লত এডওয়ার্ডস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শার্লত এডওয়ার্ডস
Charlotte Edwards09.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামশার্লত মেরি এডওয়ার্ডস
জন্ম (1979-12-17) ১৭ ডিসেম্বর ১৯৭৯ (বয়স ৩৯)
হান্টিংডন, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ স্পিন
ভূমিকাব্যাটসম্যান, অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১২৩)
১২ জুলাই ১৯৯৬ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টেস্ট১১ আগস্ট ২০১৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৮০)
১৫ আগস্ট ১৯৯৭ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ ওডিআই২৭ জুলাই ২০১৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই শার্ট নং২৩
টি২০আই অভিষেক৫ আগস্ট ২০০৪ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টি২০আই৩১ আগস্ট ২০১৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০০–বর্তমানকেন্ট
২০০০–২০০৩নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্ট ওম্যান
১৯৯৪–১৯৯৯ইস্ট অ্যাঙ্গিলা ওম্যান
২০১৬-বর্তমানসাউদার্ন ভাইপার্স
২০১৪-বর্তমানওয়েস্টার্ন ফিওরি
২০১৫পার্থ স্কর্চার্স
২০১৬-বর্তমানঅ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০আই
ম্যাচ সংখ্যা ২৩ ১৯১ ৯৫
রানের সংখ্যা ১৬৭৬ ৫৯৯২ ২৬০৫
ব্যাটিং গড় ৪৪.১০ ৩৮.১৬ ৩২.৯৭
১০০/৫০ ৪/৯ ৯/৪৬ ০/১২
সর্বোচ্চ রান ১১৭ ১৭৩* ৯২*
বল করেছে ১১১৮ ১৬২৭ ৩০৩
উইকেট ১২ ৫৪
বোলিং গড় ৪৮.০৮ ২১.৭৪ ৩৬.৬৬
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ২/২৮ ৪/৩০ ৩/২১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১০/– ৫২/– ১৬/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২২ জুন ২০১৫

শার্লত মেরি এডওয়ার্ডস, সিবিই (ইংরেজি: Charlotte Marie Edwards; জন্ম: ১৭ ডিসেম্বর, ১৯৭৯) ক্যামব্রিজশায়ারের হান্টিংডনে জন্মগ্রহণকারী সাবেক ইংরেজ মহিলা ক্রিকেটার। তিনি ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন।[১] মে, ২০১৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজের অবসরের কথা ঘোষণা করেন তিনি।[২][৩]

বিশ্বের একমাত্র মহিলা ক্রিকেটার হিসেবে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে দুই সহস্রাধিক রান সংগ্রাহক তিনি।[৪][৫]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৫ সালে ইংল্যান্ড দলে অভিষিক্ত হন। ঐ সময়ে তিনি ইংল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ নারী ক্রিকেটার ছিলেন যা পরবর্তীকালে হলি কলভিন ভেঙ্গে ফেলেন। ১৯৯৭ সালে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিরুদ্ধে ১২ সেঞ্চুরি করেন। নিজস্ব অষ্টাদশ জন্মদিনের পূর্ব-দিন ক্রিকেট বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায় আয়ারল্যান্ড দলের বিরুদ্ধে তৎকালীন অপরাজিত ১৭৩* রানের বিশ্বরেকর্ড গড়েন।

২০০০ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে ক্লেয়ার টেলরকে সাথে নিয়ে ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ে নেতৃত্ব দেন। উভয়ে সম্মিলিতভাবে তিন সহস্রাধিক রান সংগ্রহ করেন।[৬]

অধিনায়কত্ব[সম্পাদনা]

২০০৫ সালের পূর্ব পর্যন্ত তিনি দলের সহকারী অধিনায়ক ছিলেন। এরপর তৎকালীন ইংরেজ অধিনায়ক ক্লেয়ার কনর আহত হলে দলের চলতি অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। মার্চ, ২০০৬ সালে কনর অবসর নিলে তিনি পূর্ণাঙ্গভাবে অধিনায়ক নিযুক্ত হন। এছাড়াও, শার্লত নিজ কাউন্টি দল কেন্টের অধিনায়ক হিসেবে আসীন রয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়া সফরে তিনি শততম একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নেন। বোর‌্যালে অনুষ্ঠিত একমাত্র টেস্টে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে অ্যাশেজ পুণরায় দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন।

অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত ২০০৯ সালের প্রমিলা বিশ্বকাপে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি অর্ধ-শতকসহ নিজস্ব সেরা ৪/৩৭ করে দলকে সুপার সিক্স পর্বে উত্তরণ ঘটান। পরে সিডনিতে অনুষ্ঠিত ফাইনালে একই দলের বিপক্ষে ৪ উইকেটে বিজয়ী হয় তার দল।

১৭ নভেম্বর, ২০১০ তারিখে তিনি ১৪২তম একদিনের আন্তর্জাতিকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অংশ নেন।[৭] এরফলে তিনি অস্ট্রেলীয় কারেন রোল্টনের সর্বাধিক ওডিআইয়ের রেকর্ড ভেঙ্গে ফেলেন। ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের মহিলা ক্রিকেটের প্রধান ক্লেয়ার কনর তার এ অর্জনকে ঘিরে বলেছেন, শার্লত বৈশ্বিকভাবে মহিলাদের ক্রিকেটকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছেন এবং নিজ দেশের নারীদের আদর্শ হয়ে রয়েছেন।

সম্মাননা[সম্পাদনা]

Charlotte Edwards.jpg

দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত ২০০৮ সালের আইসিসি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে শার্লত এডওয়ার্ডস আইসিসি মহিলা বর্ষসেরা খেলোয়াড় মনোনীত হন। ২০০৯ সালে রাণীর জন্মদিনের সম্মানে তিনি মেম্বার অব দি অর্ডার অব দ্য ব্রিটিশ এম্পায়ার (এমবিই) মনোনীত হন।[৮] ২০১৪ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটার মনোনীত হন। ২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ মৌসুমে ইসিবি'র বর্ষসেরা ক্রিকেটার হন তিনি।[৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Charlotte Edwards | England Cricket | Cricket Players and Officials"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৫-০৮ 
  2. "Edwards brings end to 20-year career"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৬ 
  3. "Charlotte Edwards: England captain retires from international cricket"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৬ 
  4. "Records | Women's Twenty20 Internationals | Batting records | Most runs in career | ESPN Cricinfo"। Stats.espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৫-০৮ 
  5. "Charlotte Edwards becoming first cricketer to score 2,000 T20I runs goes unnoticed – Latest Cricket News, Articles & Videos at"। Cricketcountry.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৫-০৮ 
  6. "Statistics / Statsguru / Women's One-Day Internationals / Batting records". ESPNcricinfo. Retrieved 2 May 2012.
  7. http://www.espncricinfo.com/women/content/story/487633.html
  8. The London Gazette: (Supplement) no. 59090. p. 16. 13 June 2009.
  9. "England Cricketer of Year Awards 2013–2014"ECB। ৯ জুন ২০১৪। ৮ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  10. "Root and Edwards scoop England awards"ECB। ১৮ মে ২০১৫। ২৮ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী
ক্লেয়ার কনর
ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক
২০০৬-২০১৬
উত্তরসূরী
হিদার নাইট
পূর্বসূরী
ঝুলন গোস্বামী
আইসিসি প্রমিলা বর্ষসেরা ক্রিকেটার
২০০৮
উত্তরসূরী
ক্লেয়ার টেলর