শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়াম

স্থানাঙ্ক: ২৫°১৯′৫০.৯৬″ উত্তর ৫৫°২৫′১৫.৪৪″ পূর্ব / ২৫.৩৩০৮২২২° উত্তর ৫৫.৪২০৯৫৫৬° পূর্ব / 25.3308222; 55.4209556
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শারজাহ ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম
SharjahCricket.JPG
১৯৯৮ সালের শারজায় অনুষ্ঠিত (ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া) দলের মধ্যে ওয়ানডে ম্যাচের দৃশ্য
স্টেডিয়ামের তথ্যাবলী
অবস্থানশারজাহ, সংযুক্ত আরব আমিরাত
স্থানাঙ্ক২৫°১৯′৫০.৯৬″ উত্তর ৫৫°২৫′১৫.৪৪″ পূর্ব / ২৫.৩৩০৮২২২° উত্তর ৫৫.৪২০৯৫৫৬° পূর্ব / 25.3308222; 55.4209556
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৮২
ধারন ক্ষমতা২৭,০০০
প্রান্ত
প্যাভিলিয়ন এন্ড
শারজা ক্লাব এন্ড
আন্তর্জাতিক তথ্যাবলী
প্রথম টেস্ট৩১ জানুয়ারী ২০০২: পাকিস্তান বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট৩–৭ নভেম্বর ২০১১: পাকিস্তান বনাম শ্রীলঙ্কা
প্রথম ওডিআই৬ এপ্রিল ১৯৮৪: পাকিস্তান বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই২২ ডিসেম্বর ২০১৩: পাকিস্তান বনাম শ্রীলঙ্কা
১ম টি২০ আন্তর্জাতিক৩ মার্চ ২০১৩: আফগানিস্তান বনাম স্কটল্যান্ড
শেষ টি২০ আন্তর্জাতিক৮ ডিসেম্বর ২০১৩: আফগানিস্তান বনাম পাকিস্তান
১ জানুয়ারী ২০১৪ অনুযায়ী
উৎস: ক্রিকইনফো: শারজাহ স্টেডিয়াম প্রোফাইল

শারজাহ ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম (ইংরেজি: Sharjah Cricket Association Stadium); (Arabic:لشارقة جمعية ملعب الكريكيت) সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ একটি মাঠ। এটি মূলত ১৯৮০ সালের প্রথম দিকে নির্মিত হয়েছিল এবং অনেক বছর ধরে আরও উন্নত করা হয়।[১] ২০১০ সালে স্থানীয় ক্রিকেট পৃষ্ঠপোষক আব্দুল রহমান বুখাতির আদেশে শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে একদিনের আন্তর্জাতিক এবং প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ জন্য আফগানিস্তান ক্রিকেট দলের জন্য স্থানীয় মাঠে পরিণত হয়।[২]

২০০৯ এ দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম-এর উদ্বোধন এর সাথে আরব আমিরাত এর প্রধান মাঠের খেতাব হারায়।

টেস্ট ম্যাচ[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক স্তরে পাকিস্তানে গিয়ে ম্যাচ খেলতে অনেক দেশ অপারগ হওয়ায় পাকিস্তান তাদের কিছু ঘরের ম্যাচ এই মাঠে আয়োজন করে।

একদিনের আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

১৯৮৪ এবং ২০১৭ সালের মধ্যে শারজার মাটিতে মোট ২৩১টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় । সবচেয়ে বেশি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে এ মাঠে। [৩] তিন বা চারটি আন্তর্জাতিক দলের সমন্বয়ে বাণিজ্যিকভাবে স্পন্সর একদিন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় ।[২] সংযুক্ত আরব আমিরাত এর শারজাহ এই মাঠটি মধ্য প্রাচ্যের জনপ্রিয় আকর্ষনীয় মাঠ। ২০০৩ সাল থেকে ক্রমবর্ধমান ব্যস্ত ক্রিকেট ক্যালেন্ডার শারজাহে কোনো বড় আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। অনুমান ভারতের ক্রিকেট পরিকাঠামোর ক্রমাগত বিশ্বস্তরীয় উন্নয়ন এখানে আয়োজনকে অনেকটা ম্লান করে দেয়। যদিও পরবর্তীতে নিরাপত্তাজনিত কারণে পাকিস্তানের ও পরিকাঠামো সহযোগিতায় আফগানিস্তানের বেশ কিছু ম্যাচ এখানে আয়োজিত হতে থাকে। ২০১১ সালে, গিনেস বুক অফ রেকর্ডস[8] শারজাহ স্টেডিয়ামটিকে সর্বাধিক সংখ্যক একদিনের ম্যাচের হোস্ট হিসাবে রেকর্ড করেছে।

টুর্নামেন্টগুলি "দ্য ক্রিকেটার্স বেনিফিট ফান্ড সিরিজ (CBFS)" দ্বারা সংগঠিত হয়েছিল যা ১৯৮১ সালে আবদুল রহমান বুখাতির দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং যার মূল লক্ষ্য ছিল ভারত ও পাকিস্তানের অতীত এবং বর্তমান প্রজন্মের ক্রিকেটারদের সম্মানিত করা, স্বীকৃতিতে বেনিফিট পার্স সহ ক্রিকেট খেলায় তাদের সেবা। শারজা আমির সুলতান বিন মুহাম্মদ আল-কাসিমি এই ব্যাপারে সহায়ক পৃষ্ঠপোষক ভূমিকা নেন।

বহুদেশীয় প্রতিযোগিতা
টুর্নামেন্ট মরসুম অংশগ্রহণকারী বিজয়ী সেরা খেলোয়াড়
রথম্যানস এশিয়া কাপ ১৯৮৪  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  ভারত ভারত সুরিন্দর খান্না
রথম্যানস ফোর-নেশন্স কাপ ১৯৮৪-৮৫  ভারত , পাকিস্তান ,  অস্ট্রেলিয়া ,  ইংল্যান্ড  ভারত ভারত সুনীল গাভাস্কার
রথম্যানস শারজাহ কাপ ১৯৮৫-৮৬  ভারত , পাকিস্তান ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ রিচি রিচার্ডসন
অস্ট্রেলিয়া-এশিয়া কাপ ১৯৮৬  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা ,  অস্ট্রেলিয়া ,  নিউজিল্যান্ড  পাকিস্তান ভারত সুনীল গাভাস্কার
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৮৬-৮৭  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ কোর্টনি ওয়ালশ
শারজাহ কাপ ১৯৮৬-৮৭  ভারত , পাকিস্তান ,  অস্ট্রেলিয়া ,  ইংল্যান্ড  ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়া ডেভিড বুন
শারজাহ কাপ ১৯৮৭-৮৮  ভারত , নিউজিল্যান্ড ,  শ্রীলঙ্কা  ভারত ভারত নরেন্দ্র হিরওয়ানি
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৮৮-৮৯  ভারত , পাকিস্তান ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ গর্ডন গ্রীনিজ
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৮৯-৯০  ভারত , পাকিস্তান ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  পাকিস্তান পাকিস্তান সেলিম মালিক
অস্ট্রেলিয়া-এশিয়া কাপ ১৯৯০  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা ,  অস্ট্রেলিয়া ,  নিউজিল্যান্ড ,  বাংলাদেশ  পাকিস্তান পাকিস্তান ওয়াকার ইউনুস
উইলস ট্রফি ১৯৯১-৯২  ভারত , পাকিস্তান ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  পাকিস্তান পাকিস্তান আকিব জাভেদ
উইলস ট্রফি ১৯৯২-৯৩  জিম্বাবুয়ে , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  পাকিস্তান পাকিস্তান সাঈদ আনোয়ার
পেপসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৩-৯৪  ওয়েস্ট ইন্ডিজ , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফিল সিমন্স
পেপসি অস্ট্রেলিয়া-এশিয়া কাপ ১৯৯৪  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা ,  অস্ট্রেলিয়া ,  নিউজিল্যান্ড ,  সংযুক্ত আরব আমিরাত  পাকিস্তান পাকিস্তান আমির সোহেল
পেপসি এশিয়া কাপ ১৯৯৫  ভারত , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা ,  বাংলাদেশ  ভারত ভারত নবজ্যোত সিং সিধু
সিঙ্গার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৫-৯৬  ওয়েস্ট ইন্ডিজ , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  শ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা রোশন মহানামা
পেপসি শারজাহ কাপ ১৯৯৬  ভারত , পাকিস্তান ,  দক্ষিণ আফ্রিকা  দক্ষিণ আফ্রিকা দক্ষিণ আফ্রিকা গ্যারি কার্স্টেন
সিঙ্গার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৬-৯৭  নিউজিল্যান্ড , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  পাকিস্তান পাকিস্তান ওয়াকার ইউনুস
সিঙ্গার আকাই কাপ ১৯৯৬-৯৭  জিম্বাবুয়ে , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  শ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা অরবিন্দ ডি সিলভা
সিঙ্গার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৭-৯৮  ভারত , পাকিস্তান ,  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ,  ইংল্যান্ড  ইংল্যান্ড ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ কার্ল হুপার
কোকাকোলা কাপ ১৯৯৭-৯৮  ভারত , নিউজিল্যান্ড ,  অস্ট্রেলিয়া  ভারত ভারত শচীন তেন্ডুলকর
কোকাকোলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৮-৯৯  ভারত , জিম্বাবুয়ে ,  শ্রীলঙ্কা  ভারত ভারত শচীন তেন্ডুলকর
কোকাকোলা কাপ ১৯৯৮-৯৯  ভারত , পাকিস্তান ,  ইংল্যান্ড  পাকিস্তান পাকিস্তান শোয়েব আখতার
কোকাকোলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ১৯৯৯  ওয়েস্ট ইন্ডিজ , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  পাকিস্তান পাকিস্তান ইনজামাম-উল-হক
কোকাকোলা কাপ ১৯৯৯-০০  ভারত , পাকিস্তান ,  দক্ষিণ আফ্রিকা  পাকিস্তান পাকিস্তান ওয়াকার ইউনুস
কোকাকোলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০০০-০১  ভারত , জিম্বাবুয়ে ,  শ্রীলঙ্কা  শ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা সনাথ জয়াসুরিয়া
এআরওয়াই গোল্ড কাপ ২০০০-০১  নিউজিল্যান্ড , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  শ্রীলঙ্কা পাকিস্তান ইনজামাম-উল-হক
খালিজ টাইমস ট্রফি ২০০১  জিম্বাবুয়ে , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা মাহেলা জয়াবর্ধনে
শারজাহ কাপ ২০০২  নিউজিল্যান্ড , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা  পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা মারভান আতাপাত্তু
চেরি ব্লসম শারজাহ কাপ ২০০৩  জিম্বাবুয়ে , পাকিস্তান ,  শ্রীলঙ্কা,  কেনিয়া  পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা কুমার সাঙ্গাকারা

২০০০ দশকে নাগাদ ভারতবিরোধী পক্ষপাতের ফলে ভারত CBBS- এর প্রতিশ্রুতি থেকে সরে আসে। শারজায় ক্রিকেট পরিচালনার বিরুদ্ধে বিসিসিআই এর পক্ষ থেকে আপত্তি উঠে। শারজাতে ভারতের প্রত্যাবর্তনের জন্য বেশ কিছু শর্ত পরিবর্তিত হয়। অনেকক্ষেত্রে বলা হয় আন্তর্জাতিক সিরিয়াস ক্রিকেটের পরিবর্তে বোম্বাই এবং পাকিস্তানি ফিল্মডোমের ঝলকানির জন্য শারজাহ ক্রিকেট বেশি জনপ্রিয়।[৪]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

ম্যাচ ফিক্সিং[সম্পাদনা]

শারজা ছিল ক্রিকেট দুর্নীতির জন্য স্যার পল কনডন এর তদন্ত কেন্দ্র।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]