বিষয়বস্তুতে চলুন

শাবানা রেহমান গার্ডার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শাবানা রেহমান গার্দার
২০১৮ সালে শাবানা রেহমান
জন্ম (1976-07-14) ১৪ জুলাই ১৯৭৬ (বয়স ৪৭)
জাতীয়তানরওয়েজীয়
পরিচিতির কারণস্ট্যান্ড আপ কমেডি

শাবানা রেহমান গার্ডার (জন্ম ১৪ জুলাই ১৯৭৬) একজন পাকিস্তানি-নরওয়েজীয় স্ট্যান্ড-আপ কৌতুক অভিনেত্রী, লেখিকা এবং কলামিস্ট। মঞ্চে এবং সংবাদপত্রের কলামে তার মর্মান্তিক রসিকতার অনুভূতি ব্যবহারর মাধ্যমে তিনি নরওয়েতে মুসলিম অভিবাসন এবং একীকরণ সংক্রান্ত আলোচনায় একটি বিতর্কিত কণ্ঠস্বর, যার ফলে তার ব্যক্তিত্ব নিজেই একটি আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে, যাকে "শাবানা বিতর্ক" হিসাবে উল্লেখ করা হয়।[১]

ব্যক্তিগত ইতিহাস[সম্পাদনা]

শাবানা রেহমান তার পরিবারের[২] সাত সন্তানের মধ্যে একজন এবং ১৯৭৭ সালে পরিবারের সাথে নরওয়েতে চলে যান। একজন মুসলিম[১] হিসেবে বড় হলেও তিনি বর্তমানে একজন মুক্তচিন্তাবিদ[৩] হিসাবে পরিচয় দেন।

বিবাহ[সম্পাদনা]

তিনি ২০০৩ সালে লেখক ডাগফিন নার্ডোকে বিয়ে করেন, ১৯৯৯ সালে স্ট্যান্ড-আপ সার্কিটে দুজনের প্রথম দেখা হয়েছিল। ট্যাবলয়েড সংবাদপত্র ড্যাগব্লেডেট এই দম্পতিকে দেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী মতামতের সংগঠকদের মধ্যে তালিকাভুক্ত করেছে।[৪] বিয়ের দুই বছর পর রেহমান পড়াশোনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাওয়ার সাথে সাথে এই দম্পতি আলাদা হয়ে যান। তারপরে আগস্ট ২০০৭ সালে দম্পতি ঘোষণা করেছিলেন যে তারা এখনও বন্ধু থাকা সত্ত্বেও বিবাহবিচ্ছেদ করছেন।[৫]

২০০৮ সালে তিনি নরওয়েজিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনের সাংবাদিক মার্টিন গার্ডারকে বিয়ে করেন।[৬]

পেশাদারিত্ব[সম্পাদনা]

তিনি বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে সক্রিয় এবং ট্যাবু ভাঙতে ও আরও উন্মুক্ততা তৈরি করতে নিবেদিত। মূলত ২০-এর দশকের শুরু থেকে তিনি মুসলিম অভিবাসীদের মানবাধিকার এবং ব্যক্তি স্বাধীনতার মতো পশ্চিমা প্রগতিশীল মূল্যবোধকে গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছেন, এবং বিশেষ করে নারীদেরকে নিজস্ব পছন্দের প্রতি যত্নশীল হতে আহ্বান জানিয়েছেন। উদারপন্থীরা মাঝে মাঝে অভিবাসীদের প্রতি তার আপাত অসংবেদনশীলতা, মুসলিম মনোভাব সম্পর্কে অভিযোগ করে, অন্যদিকে রক্ষণশীল মুসলমানরা দাবি করে যে শাবানা 'তাদের ধর্মকে অবমাননা করে'। শাবানা অভিযোগ করেছেন যে তরুণ অভিবাসীদের কাছ থেকে তিনি প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছেন।[১]

রেহমান ১৯৯৬ সালে ভিজি-তে কলামিস্ট হিসেবে তার কর্মজীবন শুরু করেন, ১৯৯৯ সালে স্ট্যান্ড-আপ কৌতুক অভিনেত্রী হিসেবে তার আত্মপ্রকাশ ঘটে। পরে তিনি ২০ সালে ড্যাগব্লেডেটের কলামিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করেন এবং এখন নিয়মিত সংবাদপত্র এবং ম্যাগাজিনের জন্য লেখেন।

রেহমান আন্তর্জাতিক প্রচার পেয়েছেন এবং টাইম ম্যাগাজিন এবং নিউ ইয়র্ক টাইমস তার সাক্ষাৎকার নিয়েছে। তার অনুষ্ঠান নরওয়ে, ডেনমার্ক, আইসল্যান্ড এবং ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে প্রচারিত হয়েছে। তিনি নরওয়েজীয়, উর্দু এবং ইংরেজিতে সাবলীল এবং জার্মান ভাষায় অভিনয় করেছেন।[৭]

২০০৬ সালে শাবানা নিউ ইয়র্ক সিটির আমেরিকান কমেডি ইনস্টিটিউটে যোগ দেন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Craig S. Smith (১৪ নভেম্বর ২০০৩)। "Skien Journal; Where East Meets West Warily, She Makes Them Laugh"The New York Times=। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৯ 
  2. Shots fired at Pakistani-born comic’s Oslo restaurant, Daily Times, 25 August 2005
  3. Shots fired at Pakistani-born comic’s Oslo restaurant, Daily Times, 25 August 2005
  4. Nice Witch of the North, Time, 22 August 2004
  5. Opsann, Carina (১৪ আগস্ট ২০০৭)। "Shabana Rehman skilles"Seher.no (নরওয়েজীয় ভাষায়)। Se og Hør। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৮-২১ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. Skattebo, Geir Helge (২২ আগস্ট ২০০৮)। "Shabana + Martin = sant"Avisa Valdres (নরওয়েজীয় ভাষায়)। Avisa Valdres। ২৪ আগস্ট ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১১-১৯ 
  7. "Domeneshop"domene.shop (নরওয়েজীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-০৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]