মুহাম্মাদ আব্দুল কাইয়ুম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মুহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম
জন্ম (1960-03-01) ১ মার্চ ১৯৬০ (বয়স ৫৯)
চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ
বাসস্থানটাওয়ার হ্যামলেটস, লন্ডন, ইংল্যান্ড
জাতিসত্তাবাংলা
নাগরিকত্বব্রিটিশ
শিক্ষাআরবি ভাষা, মুহাদ্দিছ
যেখানের শিক্ষার্থীইমাম মুহাম্মদ বিন সৌদ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, ছআছ ইউনিভার্সিটি
পেশাইমাম, ধর্মীয় নেতা এবং লেখক
প্রতিষ্ঠানইস্ট লন্ডন মসজিদ

শাইখ মুহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম (জন্ম:১লা মার্চ, ১৯৬০) হলেন একজন মুসলিম স্কলার, বক্তা এবং ইস্ট লন্ডন মসজিদের বর্তমান ইমাম ও খতীব। তিনি হলেন ইউরোপের সবচেয়ে বিখ্যাত স্কলারদের মধ্যে একজন,[১] এবং বিশ্বের ওলামারা তাহাকে শ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ এশিয়ান আলেম হিসাবে মনে করেন। তিঁনি যুক্তরাজ্যের ব্রিটিশ মুসলিমদের সবচেয়ে বড় জামায়েতকে সেবা প্রদান করেন। [২] [৩] পাশাপাশি তিনি বাংলা ভাষার ইসলামিক স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল পিস টিভি বাংলার অনুষ্ঠানে নিয়মিত বক্তব্য রাখেন।

প্রাথমিক বিবরণী[সম্পাদনা]

মুহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলায় জন্মগ্রহণ করেন এবং তরুণ বয়সে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য স্বপরিবারে সৌদি আরব এ চলে যান। এরপর তিনি ফ্রান্সের ইউরোপিয়ান কলেজ অব ইসলামিক স্টাডিজ থেকে এবং পরে ওয়েলসে আরবিশরিয়াহ বিষয়ের উপর পড়াশোনা করেন। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের শিক্ষকদের কাছেও তিনি বেশ কিছুদিন শিক্ষালাভ করেন, এর মধ্যে জর্ডানের শাইখ আহমদ হাওয়া, যার সান্নিধ্যে থেকে তিনি শাফেঈ ফিকহ্ অধ্যয়ন করেন এবং সিরিয়ার শাইখ মুনির আল-জাওয়াদ আল-তিউনিসি যার সান্নিধ্যে থেকে তিঁনি আরবি ব্যাকরণ অধ্যয়ন করেন।[৪] এরপর স্বপরিবারে যুক্তরাজ্যে চলে আসার পর তিনি লন্ডন মুসলিম সেন্টারের খতীব হন। তিনি ২০০৮ সালে স্টিফেন রিচার্ড হাউজের দ্য ফার্স্ট মেড এওয়ার হন এবং ২০১০ সালে তিনি এর প্যাট্রন হন।[৫] আব্দুল কাইয়ুম ন্যাশনাল কাউন্সিল অব ইমামস এ্যান্ড রাব্বিস এর একজন সদস্য, যেটি জোসেফ ইন্টারফেইথ(আন্তঃধর্ম) ফাউন্ডেশনের একটি রেজিস্টার্ড অপারেটিং নাম। এছাড়াও তিনি ব্যাপক আলোচিত ডিক্লারেশন অব ইস্তাম্বুল নামক পরিবেশবাদী ঘোষণাপত্রের একজন স্বাক্ষরকর্তা হিসেবে।

বর্তমান পেশাগত সংশ্লিষ্টতা[সম্পাদনা]

  • ইমাম ও খতীব, ইস্ট লন্ডন মসজিদ[৬][৭]
  • ডিক্লারেশন অব ইস্তাম্বুল ঘোষণাপত্রের স্বাক্ষরকারী
  • ন্যাশনাল কাউন্সিল অব ইমামস অ্যান্ড রাব্বিস এর সদস্য
  • স্টিফেন রিচার্ড হাউজের প্যাট্রন

পূর্ববর্তী পেশাগত সংশ্লিষ্টতা[সম্পাদনা]

  • ১৯৯০-১৯৯২: প্রভাষক, ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি, কুয়ালালামপুর, মালয়শিয়া
  • ১৯৮৮-১৯৯০: প্রভাষক ও খতীব, জামিয়া ইসলামিয়া, গাজীপুর, ঢাকা

শিক্ষা[সম্পাদনা]

  • এম.এ. টিচিং অ্যারাবিক টু নন অ্যারাবস, ১৯৮৭, ইমাম মুহাম্মাদ ইবনে সৌদ ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, রিয়াদ, সৌদি আরব
  • বি.এ. (অনার্স), আরবি ভাষা ও সাহিত্য, ইমাম মুহাম্মাদ ইবনে সৌদ ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, রিয়াদ, সৌদি আরব
  • উচ্চ মাধ্যমিক (এইচ.এস.সি.), ১৯৭৮, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা
  • কামিল (মুহাদ্দিস), ১৯৭৮, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা
  • ফাজিল, ১৯৭৬, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা
  • আলিম ১৯৭৪, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা[৮]
  • দাখিল, ১৯৭২, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা

ব্যক্তিগত তথ্য[সম্পাদনা]

শাইখ মুহাম্মাদ আব্দুল কাইয়ুম বর্তমানে তাঁর স্ত্রী শাইখা লায়লা বেগম ও সন্তানসহ লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসে বসবাস করছেন। বর্তমানে তিঁনি শাইখ আকরাম নাদভির সঙ্গে হাদিস এবং ইসলামিক সাইন্সের উপর স্টাডি করছেন।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Shaykh Abdul Qayyum"। AL-QALAM। সংগ্রহের তারিখ 2013  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. "Religious Figure 2014"। BRITISH BANGLADESHI POWER INSPIRATION। ১৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ 2014  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৩ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০১৪ 
  4. "Board of Directors"। ihsan-centre। ২৬ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ 2014  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  5. "About us"। Richard House। ২ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ 2014  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  6. "UK: The Interfaith Industry"। Gatestone Institute। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৩, ২০১৩ 
  7. "Independent Shariah" (PDF)। Etfsecurities। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৮, ২০১২ 
  8. "SHAIKH MUHAMMAD ABDUL QAIYUM"। Peace TV Bangla। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]