লে করবুজিয়ে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লে করবুজিয়ে
Le Corbusier (1964).jpg
১৯৬৪ সালে লে করবুজিয়ে
জন্ম
শার্ল-এদুয়ার জেনারে-গ্রিঁ[১]

(১৮৮৭-১০-০৬)৬ অক্টোবর ১৮৮৭
লা শো-দ্যঁ-ফুন্দ, সুইজারল্যান্ড
মৃত্যু২৭ আগস্ট ১৯৬৫(1965-08-27) (বয়স ৭৭)
জাতীয়তাসুইস, ফরাসি
পুরস্কারএআইএ গোল্ড মেডেল (১৯৬১), লেজিওঁ দনরের গ্রান্দ অফিসিঁয়ে (১৯৬৪)
ভবনসমুহভিলা সাভোয়ে, পইসি
ভিলা লা রোশে, প্যারিস
ইউনিতে দ'হাবিতাসন, মার্সেই
নতর দাম দু হত, রশাম
চণ্ডীগড়, ভারতে ভবনসমূহ
উল্লেখযোগ্য প্রকল্পসমূহভিলা রেদিউস

শার্ল-এদুয়ার জেনারে-গ্রিঁ (৬ অক্টোবর ১৮৮৭-২৭ আগস্ট ১৯৬৫), যিনি লে করবুজিয়ে (ইউকে: /lə kɔːrˈbjuːzi/,[২] ইউএস: /lə ˌkɔːrbˈzj, -ˈsj/,[৩][৪] ফরাসি : [lə kɔʁbyzje]; মোটামুটিভাবে অর্থ, "কাকের-সদৃশ জনৈক"[৫]) নামে পরিচিত, ছিলেন একজন সুইস-ফরাসি স্থপতি, নকশাকার, চিত্রশিল্পী, নগর পরিকল্পনাকারী, লেখক, এবং বর্তমানে স্বীকৃত আধুনিক স্থাপত্যকলার একজন অগ্রদূত। তিনি সুইজারল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৩০ সালে ফরাসি নাগরিক হন। তাঁর কর্মজীবন পাঁচ দশকব্যাপী ছিলো এবং তিনি ইউরোপ, জাপান, ভারত এবং উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকায় বিভিন্ন ভবনের নকশা করেন।

জনাকীর্ণ শহরের বাসিন্দাদের জন্য উন্নত জীবনযাত্রার পরিবেশ প্রদানের জন্য নিবেদিত লে করবুজিয়ে নগর পরিকল্পনায় প্রভাবশালী ছিলেন এবং কংগ্রেস ইন্টারন্যাশনাল ডি'আর্কিটেকচার মডার্ন (সিআইএএম) এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন। লে করবুজিয়ে ভারতের চণ্ডীগড় শহরের জন্য প্রধান পরিকল্পনা তৈরি করেন এবং সেখানে বেশ কয়েকটি ভবন, বিশেষ করে সরকারি ভবনের জন্য করা নকশায় অবদান রাখেন।

১৭ জুলাই ২০১৬ সালে ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় লে করবুজিয়ের সাতটি দেশের সতেরোটি প্রকল্পকে লে করবুজিয়ের স্থাপত্য কাজ হিসাবে চিহ্নিত করা হয় যা স্থাপত্যকলার আধুনিক আন্দোলনে অসামান্য অবদান রেখেছে।[৬]

লে করবুজিয়ে এখনও একটি বিতর্কিত ব্যক্তিত্ব। তার কিছু নগর পরিকল্পনা ধারণা পূর্ব-বিদ্যমান সাংস্কৃতিক স্থান, সামাজিক অভিব্যক্তি এবং ন্যায়পরায়ণতার প্রতি উদাসীনতার জন্য সমালোচিত হয়েছে এবং ফ্যাসিবাদ, ইহুদি-বিদ্বেষ এবং স্বৈরশাসক বেনিতো মুসোলিনির সাথে তার সম্পর্ক কিছু চলমান বিতর্কের সৃষ্টি দিয়েছে।[৭][৮][৯][১০]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

শার্ল-এদুয়ার জেনারে-গ্রিঁ ৬ অক্টোবর ১৮৮৭ সালে লা শো-দ্যঁ-ফুন্দে জন্মগ্রহণ করেন যা সুইজারল্যান্ডের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তবর্তী একটি ছোট ফরাসি-ভাষী শহর। তাঁর বাবা ছিলেন একজন কারিগর যিনি বাক্স এবং ঘড়িতে নকশা করতেন এবং তাঁর মা পিয়ানো শেখাতেন। তাঁর বড়ো ভাই, অ্যালবার্ট, ছিলেন একজন অপেশাদার বেহালাবাদক।[১১] তিনি একটি কিন্ডারগার্টেনে পড়েছিলেন যেখানে ফ্রোবেলীয় পদ্ধতি ব্যবহার করা হতো।[১২][১৩][১৪]

তাঁর সমসাময়িক ফ্র্যাঙ্ক লয়েড রাইট এবং মিস ভ্যান ডার রোর মতো লে করবুজিয়ের স্থপতি হিসাবে আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ ছিলো না। তিনি দৃশ্যকলায় আগ্রহী ছিলেন এবং পনেরো বছর বয়সে তিনি লা শো-দ্যঁ-ফুন্দের পৌর আর্ট স্কুলে ভর্তি হন। সেখানে ঘড়ি বানানোর সাথে সম্পর্কিত ফলিত বিদ্যা শেখানো হতো।

ভ্রমণ এবং প্রথম স্থাপনা[সম্পাদনা]

লে করবুজিয়ে লাইব্রেরিতে গিয়ে স্থাপত্য ও দর্শন সম্পর্কে পড়াশোনা করে, যাদুঘর পরিদর্শন করে, ভবনের স্কেচ করে এবং সেগুলি নির্মাণ করে নিজেকে শেখানো শুরু করেন। ১৯০৫ সালে তাঁর শিক্ষক রেনে শাপালার তত্বাবধায়নে তিনি ও তাঁর দুই বন্ধু মিলে তাঁর প্রথম ভবন ভিলা ফালের নকশা এবং নির্মাণ করেন। এটি তাঁর শিক্ষক শার্ল লে'প্লেতেনিয়ের খোদাইকরক বন্ধু লুই ফালের জন্য নির্মিত হয়েছিলো। শো-দ্যঁ-ফুন্দের বন ঘেরা পাহাড়ের ধারে অবস্থিত কাঠের এই বড়ো বাড়িটির ছাদ স্থায়ীয় আলপাইন শৈলীতে তৈরি ছিলো এবং সম্মুখভাগে যত্নশীল রঙ্গিন নকশা ছিলো। এই বাড়ির সাফল্যের পর তিনি একই এলাকায় একইরকম আরো দুটি বাড়ি নির্মাণ করেন।[১৫]

১৯০৭ সালের তিনি সর্বপ্রথম সুইজারল্যান্ডের বাইরে ইতালি ভ্রমণে যান। তারপর সেই শীতকালেই তিনি বুদাপেস্ট থেকে ভিয়েনাতে ভ্রমণ করে সেখানে চার মাস অবস্থান করেন। সেখানে তাঁর দেখা হয় গুস্তাভ কিম্ত এর সাথে এবং জোসেফ হফম্যানের সাথে সাক্ষাতের চেষ্টা ব্যর্থ হয়।[১৬] তিনি প্যারিসে ভ্রমণ করেন এবং ১৯০৮ থেকে ১৯১০ সালের মধ্যে চৌদ্দ মাস স্থপতি অগাস্ট পেরেটের অফিসে ড্রাফ্টসম্যান হিসেবে কাজ করেন। দুই বছর পর, ১৯১০ সালের অক্টোবর থেকে ১৯১১ সালের মার্চের মধ্যে, তিনি জার্মানিতে যান এবং পিটার বেরেন্সের অফিসে চার মাস কাজ করেন, যেখানে লুডভিগ মিস ভ্যান ডার রো এবং ভাল্টার গ্রোপিয়াসও কাজ করছিলেন এবং শিখছিলেন।

চিত্রশিল্প, কিউবজম, পিউরিজম এবং লে'স্প্রিত[সম্পাদনা]

লে করবুজিয়ে ১৯১৭ সালে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য প্যারিসে চলে আসেন এবং তার চাচাতো ভাই পিয়ের জেনারের সাথে মিলে নিজস্ব স্থাপত্য কাজ শুরু করেন। এই অংশীদারত্ব ১৯৫০-এর দশক পর্যন্ত বজায় ছিলো।[১৭]

১৯১৮ সালে লে করবুজিয়ে কিউবীয় চিত্রশিল্পী আমেদি ওজনফোর সাথে পরিচয় হয়। ওজনফো তাঁকে আঁকতে উৎসাহিত করেছিল এবং দুজন একসাথে কাজ করা শুরু করেন। কিউবিজমকে অযৌক্তিক এবং "রোমান্টিক" হিসাবে প্রত্যাখ্যান করে, এই জুটি যৌথভাবে তাদের ইশতেহার আপ্রেঁ লে কিউবিজমে প্রকাশ করে এবং একটি নতুন শৈল্পিক আন্দোলন, শুদ্ধবাদ প্রতিষ্ঠা করেন। ওজনফো এবং লে করবুজিয়ে একটি নতুন জার্নাল, লে'স্প্রিত নুভো-এর জন্য লিখতে শুরু করেন এবং শক্তি ও কল্পনার সাথে স্থাপত্য সম্পর্কে তার ধারণাগুলি প্রচার করেন।

১৯২০ সালে জার্নালের প্রথম সংখ্যায় শার্ল-এদুয়ার জেনারে একটি ছদ্মনাম হিসাবে লে করবুজিয়ে (তাঁর নানা, লেকরবেসিয়ে, এর নামের একটি পরিবর্তিত রূপ) গ্রহণ করেছিলেন, যা তার বিশ্বাসকে প্রতিফলিত করে যে কেউ নিজেকে পুনরাবিষ্কার করতে পারে।[১৮][১৯] সেই যুগে, বিশেষ করে প্যারিসে, অনেক ক্ষেত্রে শিল্পীদের নিজেকে চিহ্নিত করার জন্য একটি একক নাম গ্রহণ করতে দেখা যেতো।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ministère de la Culture et de la Communication, Archives nationales; site de Fontainebleau, Légion d'honneur recipient, birth certificate. Culture.gouv.fr. Retrieved on 27 February 2018.
  2. "Le Corbusier"লেক্সিকো ইউকে ডিকশনারি (ইংরেজি ভাষায়)। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৯ 
  3. টেমপ্লেট:Cite American Heritage Dictionary
  4. "Corbusier, Le"মেরিয়াম-ওয়েবস্টার ডিকশনারি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৯ 
  5. "Steve Rose on Le Corbusier, one of the most iconic architects of the 20th century"the Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৮-০৭-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৫ 
  6. "The Architectural Work of Le Corbusier, an Outstanding Contribution to the Modern Movement"। সংগ্রহের তারিখ ১৪ অক্টোবর ২০১৬ 
  7. "BBC Four - A History of Art in Three Colours, White"BBC (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৫ 
  8. "The profound anti-Semitism of Le Corbusier"Haaretz (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৫ 
  9. Donadio, Rachel (২০১৫-০৭-১২)। "Le Corbusier's Architecture and His Politics Are Revisited"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৫ 
  10. Antliff,Mark, "Avant-Garde Fascism: The Mobilization of Myth, Art, and Culture in France, 1909–1939"
  11. Journel 2015, পৃ. 32।
  12. Marc Solitaire, Le Corbusier et l'urbain – la rectification du damier froebelien, pp. 93–117.
  13. Actes du colloque La ville et l'urbanisme après Le Corbusier, éditions d'en Haut 1993 – আইএসবিএন ২-৮৮২৫১-০৩৩-০.
  14. Marc Solitaire, Le Corbusier entre Raphael et Fröbel, pp. 9–27, Journal d'histoire de l'architecture N°1, Presses universitaires de Grenoble 1988 – আইএসবিএন ২-৭০৬১-০৩২৫-৬.
  15. Journel 2015, পৃ. 49।
  16. Journel 2015, পৃ. 48।
  17. Larousse, Éditions। "Encyclopédie Larousse en ligne – Charles Édouard Jeanneret dit Le Corbusier"larousse.fr 
  18. Corbusier, Le; Jenger, Jean (১ জানুয়ারি ২০০২)। Le Corbusier: choix de lettres। Springer Science & Business Media। আইএসবিএন 978-3-7643-6455-7 – Google Books-এর মাধ্যমে। 
  19. Repères biographiques, Fondation Le Corbusier ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২ অক্টোবর ২০০৯ তারিখে. Fondationlecorbusier.asso.fr. Retrieved on 27 February 2018.