লূরদে রাণী গীর্জা, বনপাড়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লূরদে রাণী গির্জা
লুর্দের রাণী গির্জা
লুর্দের রাণী মা মারীয়ার গির্জা
Bonpara church daniel.jpg
দেশBangladesh
প্রশাসন
যাজকীয় বিভাগবনপাড়া ক্যাথলিক প্যারিস
ধর্মপাল রাজ্যরাজশাহী ডায়োসিস
যাজকমণ্ডলী
ধর্মপাল (গণ)বিশপ জের্ভাস রোজারিও
তত্ত্বাবধায়ক যাজকফাঃ বিকাশ হিউবার্ট রিবেরু
যাজকফাঃ নবীন পিউস কস্তা

লূরদে রাণী গীর্জা, বনপাড়া গীর্জাটি নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলাবনপাড়ায় অবস্থিত। ১৯৪০ সালে এটি স্থাপিত হয়। এখানকার বেশির ভাগ খ্রীস্টানই প্রায় ৭০ থেকে ৮০ বছরে আগে ঢাকা বিভাগের গাজীপুরের কালিগঞ্জ থেকে এসে বসতি স্থাপন করেন।পুরাতন গীর্জার ভবনটি জীন্ন হয়ে পড়ায় পাশ্বে আরেকটি নতুন গির্জা স্থাপন করা হয়েছে ২০১০ সালে।একই সাথে স্থাপন করা হয়েছে বাংলাদেশের সব চেয়ে বড় মা মারীয়ার (যীশুর মাতা)একটি মূতি।ব্যয় বহুল এই গীর্জায় ব্যবহার করা হয়েছে উন্নত মানের কারুকার্য যা দশনার্থীদের হৃদয় মন জয় করে।দূর দূরান্ত থেকে দশনার্থীরা এটি দেখতে এবং তীর্থের উদ্দেশে এখানে আসেন। লূরদে রাণী গীর্জা, বনপাড়ার প্রতিষ্ঠার ৭৫ বছর পূর্তি পালন করা হয়েছে ২৬ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে।

গীর্জার তত্বাবধান[সম্পাদনা]

গীর্জাটি রোমান কাথলিক রাজশাহী ধমপ্রদেশের অধীনে।এর দায়িত্বে রয়েছেন পুরোহিত বিকাশ বিরেরু। তার সহকারী হিসেবে কাজ করছেন নবীন পিউস কস্তা। এর আগে ইতালীয় দীনো জাকোমেনেল্লী, পিমে ২৩ বছর এখানে সেবা দিয়েছেন। এই গীর্জার প্রায় ৩,৫৩৩ খ্রীস্ট ভক্তের আধ্যাত্মিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। তাকে সহযোগিতা পরামশ, মতামত দিয়ে সহযোগিতা করে স্থানীয় প্যারিস কাউন্সিল।গীর্জাটি প্রতিষ্ঠার পর থেকেই পিমে ধর্মপ্রচারকগণ এখানে অক্লান্তভাবে সেবা দিয়ে জাতি-ধর্ম-বর্ণ সবাইকে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অথনৈতিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

গীর্জার অধিনে রয়েছে একটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি কলেজ, প্রাথমিক বিদ্যালয়, সেমিনারী (পুরোহিতপ্রাথীদের গঠনগৃহ)। এছাড়া মিশন মাকেট, একটি খেলার মাঠ, কারিগরী বিদ্যালয়, ক্লাব ঘর, সন্ন্যাসিনীদের বাড়ি, ২টি বোডিং ।

বিশেষ ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

• বিশপ জের্ভাস রোজারিও, রাজশাহীর বিশপ (উচ্চপদস্ত ধর্ম যাজক)

• গাব্রিয়েল কস্তা, অবসরপ্রাপ্ত উন্নয়ন কর্মী ও প্রধান শিক্ষক

উইলিয়াম অতুল কুলুন্তুনু, অতিরিক্ত সচিব, সংস্থাপন মন্ত্রণালয় ও মুক্তিযোদ্ধা

• মৃত সিলভেষ্টার কস্তা, মুক্তিযোদ্ধা ও উন্নয়ন কর্মী

• টমাস কস্তা, উন্নয়ন কমী, কানাডা প্রবাসী

• দীপক পিরিছ, সমবায়ী নেতা এবং ব্যবসায়ী

• সুবল এল রোজারিও, লেখক ও উন্নয়ন কর্মী

  • অমল গমেজ, র‌্যাব কর্মকর্তা, উত্তরা, ঢাকা

• ফাঃ শংকর ডমিনিক গমেজ, অধ্যক্ষ, সেন্ট যোসেফ উচ্চ বিদ্যালয়, বনপাড়া

• বাবলু রেনেতাস কোড়াইয়া, চেয়ারম্যান, বনপাড়া খ্রীস্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:

• এন্টনিও প্রদীপ রিবেরু, প্রেসিডেন্ট, বনপাড়া বহুমুখী সমবায় সমিতি, ঢাকা

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

[১] [২]