লুৎফুন নাহার লতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লুৎফুন নাহার লতা
জন্ম
বাংলাদেশ
বাসস্থাননিউ ইয়র্ক সিটি
জাতীয়তাবাংলাদেশি
নাগরিকত্ববাংলাদেশি
পেশা
  • অভিনেত্রী
  • মঞ্চ ব্যক্তিত্ব
  • নাট্য পরিচালক
কার্যকাল১৯৮৫-১৯৯৭, ২০১৬-বর্তমান
পরিচিতির কারণএইসব দিনরাত্রি (১৯৮৫)
দাম্পত্য সঙ্গী
  • নাসির উদ্দিন (–১৯৯৭)
  • মার্ক ওয়েনবার্গ (বি. ২০১৪)

লুৎফুন নাহার লতা একজন বাংলাদেশি অভিনেত্রী, মঞ্চ ব্যক্তিত্ব এবং নাট্য পরিচালক।[১] তিনি এইসব দিনরাত্রি (১৯৮৫), বহুব্রীহি (১৯৮৮), একা একা (১৯৮৫) নাটকের জন্য পরিচিত। আশির দশকের শেষের দিকে তিনি অভিনয় শুরু করেন, এবং ১৯৯৭ সালের পর অভিনয় পেশা থেকে দীর্ঘ বিরতি নেন।[২] ১৯৯৮ সালে একাত্তরের লাশ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে তার চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ হয়।

জীবনী[সম্পাদনা]

লতা বাংলাদেশে জন্ম নেন। তিনি ১৯৯৭ সাল থেকে নিউ ইয়র্কে বসবাস শুরু করেন। অবসরপ্রপ্ত মেজর নাসির উদ্দিনের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পর ২০০৪ সালে সুইজারল্যান্ডীয় বংশদ্ভুত মার্কিন ব্যবসায়ী মার্ক ওয়েনবার্গকে বিয়ে করেন তিনি।[২] ২০০৭ সালে তিনি জীবন ও যুদ্ধের কোলাজ শিরোনামে একটি বই প্রকাশ করেন।[৩] তিনি যুক্তরাষ্ট্রের বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ছিলেন। কর্মরত ছিলেন নিউইয়র্ক সিটি ডিপার্টমেন্ট অব এডুকেশনে।[৪]

কাজ[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র তালিকা[সম্পাদনা]

অভিনেত্রী হিসেবে

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

টেলিভিশন[সম্পাদনা]

বছর শিরোনাম চরিত্র টিকা
১৯৮৫ একা একা নিশাত
এইসব দিনরাত্রি শারমিন
১৯৮৭ দ্বিতীয় জন্ম
১৯৮৮ সৈকতে সারস জেবিন
বহুব্রীহি মিলি
১৯৯৭ ঘটনা সামান্য রুমকি লতা নাসির উদ্দিন হিসেবে
পরিচালক হিসেবে
  • তুমি আসবে বলে (২২১৬)[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Jyotika Jyoti - Full gear ahead"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ মে ১৮, ২০১৮ 
  2. ডেস্ক প্রতিবেদন (১৬ আগস্ট ২০১৭)। "২০ বছর ধরে অভিনয়ের বাইরে জনপ্রিয় এই বাংলাদেশি অভিনেত্রী!"priyo.com (অনলাইন)। Priyo.com। সংগ্রহের তারিখ মে ১৮, ২০১৮ 
  3. সাবেদ সাথী (২৭ নভেম্বর ২০১৭)। "লুৎফুন নাহার লতা'র 'জীবন ও যুদ্ধের কোলাজ' বই নিয়ে আলোচনা"দৈনিক কালের কণ্ঠ। নিউ ইয়র্ক। সংগ্রহের তারিখ মে ১৮, ২০১৮ 
  4. ডেস্ক প্রতিবেদন (১৬ আগস্ট ২০১৭)। "নিউইয়র্কে দ্বিতীয় বিয়ে করলেন লুৎফুন নাহার লতা"priyo.com (অনলাইন)। Priyo.com। সংগ্রহের তারিখ মে ১৮, ২০১৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]