লি বিয়ং চল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লি বিয়ং চল
Lee Byung-chul (crop).jpg
জন্ম১২ ফেব্রুয়ারি ১৯১০
মৃত্যুনভেম্বর ১৯, ১৯৮৭(1987-11-19) (বয়স ৭৭)
সিউল, [দক্ষিণ কোরিয়া]
জাতীয়তাকোরিয়ান
পেশাব্যবসায়ী

লি বিয়ং চল ইউরিংয়ের এক ধনাঢ্য পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার সবচেয়ে সফল ব্যবসায়ী। তাঁর প্রতিষ্ঠিত স্যামসাং বর্তমানে দক্ষিণ কোরিয়ার সবচেয়ে বড় কোম্পানী।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি টোকিওর ওয়াসেডা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে গিয়ছিলেন। কিন্তু তিনি পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি।[২] বাবার অকালপ্রয়াণে দ্রুত নেমে পড়তে হয় পরিবারিক ব্যবসায়। তাঁর ব্যবসায়িক জীবন শুরু হয় চালকল দিয়ে। ১৯৩৮ সালে ১ মার্চ লি ব্যবসার ধরন পাল্টান। দক্ষিণ কোরিয়ার দায়েগু শহরে প্রতিষ্ঠা করেন নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ট্রেডিং কোম্পানি। তখনকার লোগো থেকে জানা যায় স্যামস্যাং এর অর্থ তিন তারকা।[৩]

সেই সময় স্যামসাং এ কাজ করতেন ৪০ জন কর্মী। মুলত শহরের ভেতর মুদিখানার পণ্য পরিবহন করত স্যামস্যাং। সঙ্গে নিজেরা নুডুলস উৎপাদন করত। একপর্যায়ে লি দেশের বাইরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করলেন। ১৯৪৭ সালে লি প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নিলেন। স্যামসাং এর ঠিকানা হল সিউলেবিশ্বযুদ্ধ আর কোরীয় যুদ্ধের যুদ্ধের কারণে লি সিউল ছাড়তে বাধ্য হন। পুসানে গিয়ে শুরু করেন চিনি শোধানগারের ব্যবসা। তাঁর এই প্রতিষ্ঠানের নাম চেল জেদাং। যুদ্ধ শেষে চিনি শোধনাগারের ব্যবসা লব্ধ টাকা দিয়ে ১৯৫৪ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন কাপড়ের কল চেল মোজিক। এটি দক্ষিণ কোরিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় পশমি কাপড়ের কল।

হো আম পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৯৯১ সাল হতে প্রচলিত হো আম পুরস্কার এর নামকরণ লি এর ছদ্মনাম থেকেই করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.koreaittimes.com/story/7223/hail-father-business-lee-byung-chul
  2. http://blogs.wsj.com/korearealtime/2011/07/22/memorializing-the-company-founder-with-ads-3-d-and-holograms/
  3. http://www.sjsu.edu/faculty/watkins/chaebol.htm#SAMSUNG

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]