রেড হট চিলি পেপার্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
রেড হট চিলি পেপার্স
Rhcp2013.jpg
২০১৩ সালে পোর্টল্যান্ড, অরেগন এনভায়রনমেন্টাল সামিটে রেড হট চিলি পেপার্স. বাম থেকে ডানে: চ্যাড স্মিথ (ভ্রমন সঙ্গী মাউরো রফস্কল এর সাথে), ফ্লী, এন্থনি কিডিস, এবং জশ ক্লিংহফার.
প্রাথমিক তথ্য
উদ্ভব লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া, যুক্তরাষ্ট্র
ধরন ফাঙ্ক রক, অল্টারনেটিভ রক, ফাঙ্ক মেটাল
কার্যকাল ১৯৮৩ (১৯৮৩)–বর্তমান
লেবেল ইএমআই, ওয়ার্নার ব্রস.
সহযোগী শিল্পী এটাক্সিয়া, জেইন'স এডিকশন, পার্লামেন্ট-ফাঙ্কাডেলিক, হোয়াট ইজ দিস?, ফিয়ার, থেলনিয়াস মনস্টার, দ্য মার্স ভোল্টা
ওয়েবসাইট redhotchilipeppers.com
সদস্যবৃন্দ অ্যান্থনি কিডেস
ফ্লী
চ্যাড স্মিথ
জশ ক্লিংহফার
প্রাক্তন সদস্যবৃন্দ হিল্লেল স্লোভাক
জ্যাক শেরমান
ডুয়েইন ম্যাকনাইট
জন ফ্রুশ্যান্টে
এরিক মার্শাল
জেসি টোবিয়াস
ডেভ নাভারো
জ্যাক আয়রন্স
ক্লিফ মার্টিনেয
ডি এইচ পেলিগ্রো

রেড হট চিলি পেপার্স (সংক্ষেপে "দ্য চিলি পেপার্স" বা "আরএইচসিপি") একটি আমেরিকান রক ব্যান্ড যা গঠিত হয়েছিল ১৯৮৩ সালে লস অ্যাঞ্জেলেসে। দলটির সঙ্গীতের ধরন মুলত ফাঙ্করকের মিশ্রণ, এছাড়াও অন্যান্য জেনার যেমন পাঙ্ক রক এবং সাইকেডেলিক রক। বর্তমানে সদস্যরা হলেন, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এন্থনি কিডিস (কন্ঠ) এবং ফ্লী (বেজ), দীর্ঘদিনের ড্রামার চ্যাড স্মিথ, গীটারবাদক জশ ক্লিংহফার। রেড হট চিলি পেপার্স ৭ টি গ্র্যামি এ্যাওয়ার্ড জিতেছে, এবং সারাবিশ্বে ৮০ মিলিওনের অধিক রেকর্ড বিক্রি করে সর্বকালের সর্বাধিক বিক্রিত ব্যান্ড তালিকায় অবস্থান করে নিয়েছে।[১] ২০১২ সালে তারা রক এ্যন্ড রোল হল অব ফেইমে নিজেদের নাম লেখায়।

ব্যান্ডের মুল সদস্যদের মাঝে ছিলেন গিটারবাদক হিল্লেল স্লোভাক, ড্রামার জ্যাক আয়রন্স এবং সাথে ছিলেন কিডিস এবং ফ্লী। অন্যান্য ব্যান্ডের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকায়, ১৯৮৪ সালে ব্যান্ডের প্রথম দ্য রেড হট চিলি পেপার্স এলবামে ছিলেন না স্লোভাক ও আয়রন্স। প্রথম দুটি রেকর্ডের ড্রামার ছিলেন ক্লিফ মার্টিনেয (আয়রন্স বাজান তৃতীয়টিতে), এবং গীটারবাদক জ্যাক শেরমান বাজান প্রথমটিতে। স্লোভাক বাজান ব্যান্ডের ২য় ও ৩য় ফ্রিকি স্টাইলি (১৯৮৫) ও দ্য আপলিফট মোফ পার্টি প্ল্যান (১৯৮৭) অ্যালবামে। স্লোভাক ১৯৮৮ সালে অতিমাত্রায় হিরোইন সেবনের ফলে মারা যান। বন্ধুর মৃত্যুর কারনে ড্রামার আয়রন ব্যান্ড ত্যাগ করেন। পার্লামেন্ট-ফাঙ্কাডেলিকের গীটারবাদক ডুয়েইন ম্যাকনাইটকে স্লোভাকের পরিবর্তে আনা হয়। ব্যান্ডে তার অবস্থান ছিল স্বল্পকালীন এবং ১৯৮৮ সালেই তার পরিবর্তে আনা হয় জন ফ্রুশ্যান্টেকেডেড কেনেডি'স এর প্রাক্তন ড্রামার ডি এইচ পেলিগ্রোকে আনা হয় আয়রন্স এর পরিবর্তে যদিও একই বছরেই তার পরিবর্তে আনা হয় চ্যাড স্মিথকে। ফ্লী, কিডিস , ফ্রুশ্যান্টে ও স্মিথ সমন্বিত লাইন-আপ ব্যান্ডের সরবাধিক দীর্ঘকালীন লাইন-আপ। তারা একসাথে পাঁচটি স্টুডিও এলবাম করেন যার শুরু হয় ১৯৮৯ সালের মাদার'স মিল্ক দিয়ে। ১৯৯০ সালে ব্যান্ডটি ওয়ার্নার ব্রস. এর সাথে চুক্তি করে এবং রিক রুবিন এর অধীনে কাজ করে। ১৯৯১ সালের ব্লাড সুগার সেক্স ম্যাজিক ছিল প্রথম ব্যাবসাসফল এলবাম। ফ্রুশ্যান্টে ব্যান্ডের সফলতায় অস্বচ্ছন্দ বোধ করতে থাকেন এবং হঠাত করেই ১৯৯২ সালে ওয়ার্ল্ড ট্যুর মাঝখানে তে ব্যান্ড ত্যাগ করেন।

ট্যুর শেষ করার জন্য নিয়োগ করা হয় এরিক মার্শালকে। এরপর আসেন জেসি টোবিয়াস এবং কয়েক সপ্তাহ পর তাদের পরবর্তী এলবাম ওয়ান হট মিনিট (১৯৯৫) এর জন্য আনা হয় জেইন'স এডিকশনের ডেভ নাভারোকে। যদিও ব্যাবসাসফল, তবুও ব্লাড সুগার সেক্স ম্যাজিক এর অর্ধেক সংখ্যক রেকর্ড বিক্রি করে এর জনপ্রিয়তার হিসেবে নগন্যই থাকে এলবামটি। ১৯৮৮ সালে নাভারো কে বহিষ্কার করা হয়।[২] একই বছর ফ্লীর অনুরোধে মাদকাসক্তি পুনর্বাসনের পর ফ্রুশ্যান্টে পুনরায় ব্যান্ডে যোগ দেন। এরপর এই চতুষ্টয় ফিরে আসেন ক্যালিফোর্নিক্যাশন (১৯৯৯) এর মধ্য দিয়ে। এই এলবামটি ছিল ব্যান্ডের সব'চে বড় বাণিজ্যিক সাফল্য, যার প্রায় ১৬ মিলিওন কপি বিশ্বজুড়ে বিক্রি হয়। এর তিন বছর প আসে বাই দ্য ওয়ে (২০০২), এবং তার চার বছর পর আসে স্টেডিয়াম আর্কেডিয়াম (২০০৬)। এরপর ২০০৯ সালে ফ্রুশ্যান্টে ব্যান্ড ত্যাগের ঘোষণা দেন। এরপর ব্যান্ডে যোগ দেন জশ ক্লিংহফার, যিনি স্টেডিয়াম আর্কেডিয়াম ট্যুরব্যান্ড সহশিল্পী হিসেবে ছিলেন। পরবর্তিতে ব্যান্ডটি তাদের দশম এলবাম আ'ম উইথ ইউ এর কাজ করে প্রায় দেড় বছর ধরে এবং ২০১১ সালে তা প্রকাশ করে। এলবামটি ১৮টি দেশে টপ চার্টে স্থান করে নেয় এবং এর ওয়ার্লড ট্যুর ২০১৩ এর এপ্রিল পর্যন্ত স্থায়ী হয়। এরপর ব্যান্ডটি আরেকটি ট্যুরে অংশ নেয় যা ২০১৪ এর মাঝামাঝি পর্যন্ত চলে এবং এটি সারা পৃথিবীতে রেকর্ডসংখ্যক ১১৫.৩ মিলিওন দর্শক উপভোগ করেন। ব্যান্ডের একাদশ এলবামের কাজ ২০১৪ এর ডিসেম্বরে শুরু হয় এবং ২০১৫ সালে তা প্রকাশ হওয়ার কথা।

ব্যান্ড সদস্য[সম্পাদনা]

বর্তমান সদস্য

ট্যুর সদস্য

  • ক্রিস ওয়ারেন – কি-বোর্ড্‌স (২০০৭-বর্তমান)[৩][৪]
  • মাউরো রুফো – পারকুশন (২০১১-বর্তমান)

প্রাক্তন সদস্য

সময়রেখা[সম্পাদনা]

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

স্টুডিও অ্যালবাম

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা
  1. Serba, John (২০১৪-০২-০৩)। "Red Hot Chili Peppers play Super Bowl 2014: Anthony Kiedis' mom is proud of performance"Booth Newspapers। সংগৃহীত ২০১৪-০৪-০৩ 
  2. Kiedis, Anthony (২০০৪)। Scar Tissue। New York: Hyperion। পৃ: ৩৯৪। আইএসবিএন 978-1-4013-0745-5 
  3. "Red Hot Chili Peppers Europe 1999 Tour"। Ratsound.com। সংগৃহীত ২০১৪-০৪-১৯ 
  4. YouTube এর Remo + Chris Warren + Chad Smith + Quicklock Hi-Hat Clutch
গ্রন্থতালিকা

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]