রিটা টুশিংহাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রিটা টুশিংহাম
Rita Tushingham crop.jpg
২০১৪ সালে কারলভি ভ্যারি চলচ্চিত্র উৎসবে টুশিংহাম
স্থানীয় নাম
Rita Tushingham
জন্ম (1942-03-14) ১৪ মার্চ ১৯৪২ (বয়স ৭৭)
পেশাঅভিনেত্রী
দাম্পত্য সঙ্গীটেরি বিকনেল
(বি. ১৯৬২; বিচ্ছেদ. ১৯৮০)

অসামা রাউই
(বি. ১৯৮১; বিচ্ছেদ. ১৯৯৬)
সঙ্গীহান্স-হাইনরিখ জিরমান (১৯৯৪-)
সন্তান

রিটা টুশিংহাম (ইংরেজি: Rita Tushingham; জন্ম: ১৪ মার্চ ১৯৪২)[১] হলেন একজন ইংরেজ অভিনেত্রী। তিনি আ টেস্ট অব হানি (১৯৬১) ছবিতে তার কাজের জন্য কান চলচ্চিত্র উৎসবের সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেন এবং সেরা সম্ভাবনাময় নবাগত বিভাগে গোল্ডেন গ্লোববাফটা পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া তিনি গার্ল উইথ গ্রিন আইজ (১৯৬৪), দ্য লেদার বয়েজ (১৯৬৪), দ্য ন্যাক ...অ্যান্ড হাউ টু গেট ইট (১৯৬৫), ডক্টর ঝিভাগো (১৯৬৫), ও স্ম্যাশিং টাইম (১৯৬৭) চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য পরিচিত। দ্য ন্যাক ...অ্যান্ড হাউ টু গেট ইট ছবিতে তার কাজের জন্য তিনি সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোবশ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ অভিনেত্রী বিভাগে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অন্যান্য উল্লেখযোগ্য কাজ হল অ্যান অফুলি বিগ অ্যাডভেঞ্চার (১৯৯৫), আন্ডার দ্য স্কিন (১৯৯৭), ও বিয়িং জুলিয়া (২০০৪)।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

টুশিংহাম ১৯৪২ সালের ১৪ই মার্চ ইংল্যান্ডের ল্যাঙ্কাশায়ারের লিভারপুলে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি লিভারপুলের হান্ট্‌স ক্রস এলাকায় বেড়ে ওঠেন। তিনি অ্যালারটনের হিদারলি স্কুলে, গ্রাসেন্ডেলের লা সাগেস কনভেন্ট স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং পরে সেক্রেটারিয়াল স্কুলে শর্টহ্যান্ড ও টাইপিং শিখেন। তিনি অল্প বয়স থেকেই অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলেন এবং শেলাঘ এলিয়ট-ক্লার্ক স্কুলে অভিনয়ের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে লিভারপুল প্লেহাউজে সহকারী মঞ্চ ব্যবস্থাপক হিসেবে কাজ করতেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

টুশিংহাম ১৯৬০-এর দশকের শুরুতে ইংলিশ স্টেজ কোম্পানির প্রযোজনায় রয়্যাল কোর্ট থিয়েটারে কয়েকটি মঞ্চনাটকে অভিনয় করেন, সেগুলো হল দ্য চেঞ্জলিং (১৯৬১), দ্য কিচেন (১৯৬১), আ মিডসামার নাইটস ড্রিম (১৯৬২), টুয়েলফথ নাইট (১৯৬২), ও দ্য ন্যাক (১৯৬২)।

২০০৬ সালে টুশিংহাম।

টুশিংহামের চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে টনি রিচার্ডসনের আ টেস্ট অব হানি (১৯৬১) ছবি দিয়ে। শেলাঘ ডেলানির একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত এই ছবিতে তাকে কিশোরী জো চরিত্রে দেখা যায়।[২] তার এই কাজের জন্য তিনি কান চলচ্চিত্র উৎসবের সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেন; তিনি প্রথম ইংরেজ অভিনেত্রী, যিনি এই পুরস্কার লাভ করেন।[৩] এছাড়া তিনি সেরা সম্ভাবনাময় নবাগত বিভাগে গোল্ডেন গ্লোববাফটা পুরস্কার লাভ করেন। টুশিংহামের পরবর্তী চলচ্চিত্র ছিল গার্ল উইথ গ্রিন আইজ (১৯৬৪)। ছবিটি ডাবলিন ও উইকলো হিলসে চিত্রায়িত হন এবং এর গল্প বিন্যাসে ফরাসি নবকল্লোলের প্রভাব ছিল। এতে টুশিংহামের চরিত্রটির তার চেয়ে অনেক বয়স্ক ব্যক্তির (পিটার ফিঞ্চ অভিনীত) সাথে সম্পর্ক দেখানো হয়, কিন্তু তার নিজের জীবনের উপর তার নিয়ন্ত্রণ দেখানো হয়।[৩] এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ অভিনেত্রী বিভাগে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

তিনি লন্ডনের রকার উপ-সংস্কৃতি নিয়ে নির্মিত দ্য লেদার বয়েজ (১৯৬৪) ও বরিস পাস্তের্নাকের উপন্যাস অবলম্বনে ডেভিড লিনের ডক্টর ঝিভাগো (১৯৬৫) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তিনি দ্য ন্যাক ...অ্যান্ড হাউ টু গেট ইট (১৯৬৫) ছবিতে তার কাজের জন্য তিনি সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোবশ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ অভিনেত্রী বিভাগে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। পরবর্তী বছরগুলোতে তিনি দ্য ট্র্যাপ, স্ম্যাশিং টাইম (১৯৬৭), দ্য বেড সিটিং রুম (১৯৬৯), ও দ্য হিউম্যান ফ্যাক্টর (১৯৭৫) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

তিনি ১৯৭২ সালে ২২তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ও ১৯৯০ সালে ৪০তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের জুরি বোর্ডের সদস্য ছিলেন।[৪][৫]

১৯৯০-এর দশকে তিনি মাইক নিওয়েলের অ্যান অফুলি বিগ অ্যাডভেঞ্চার (১৯৯৫), ডাফির দ্য বয় ফ্রম মার্কারি (১৯৯৬) ও ক্যারিন অ্যাডলারের আন্ডার দ্য স্কিন (১৯৯৭) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Overview for Rita Tushingham"টার্নার ক্লাসিক মুভিজ। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  2. হ্যাস্টেড, নিক (১২ এপ্রিল ২০১৮)। "Whatever happened to the working-class heroes of British film?"দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  3. ডোড, ভিনসেন্ট (৪ এপ্রিল ২০১৮)। "The company that 'revolutionised' British cinema"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  4. "Juries 1990"বার্লিনালে (ইংরেজি ভাষায়)। বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  5. "Juries 1972"বার্লিনালে (ইংরেজি ভাষায়)। বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]