রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে

রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে (তিব্বতী: རང་འབྱུང་རྡོ་རྗེওয়াইলি: rang 'byung rdo rje) (১২৮৪-১৩৩৯) তিব্বতী বৌদ্ধধর্মের অন্যতম প্রধান ধর্মসম্প্রদায় ব্কা'-ব্র্গ্যুদ ধর্মসম্প্রদায়ের কার্মা-ব্কা'-ব্র্গ্যুদ ধর্মীয় গোষ্ঠীর তৃতীয় র্গ্যাল-বা-কার্মা-পা বা প্রধান ছিলেন।

শৈশব[সম্পাদনা]

রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে ১২৮৪ খ্রিষ্টাব্দে তিব্বতের ৎসা-ফু-গাংস-ঝুর-মো নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা ছোস-দ্পাল (ওয়াইলি: chos dpal) ছিলেন র্ন্যিং-মা ধর্মসম্প্রদায়ের একজন সাধক। রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে পাঁচ বছর বয়সে ও-র্গ্যান-পা-রিন-ছেন-দ্পাল নামক বৌদ্ধ ভিক্ষুর নিকট স্বুদ-ত্রা-সাং নামক স্থানের বৌদ্ধবিহারে তন্ত্র সম্বন্ধে শিক্ষালাভ শুরু করেন, যিনি তাকে দ্বিতীয় র্গ্যাল-বা-কার্মা-পা কার্মা-পাক্শির অবতার রূপে চিহ্নিত করেন। রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে নামটি ও-র্গ্যান-পা-রিন-ছেন-দ্পাল দিয়েছিলেন না কুন-ল্দান-শেস-রাব (ওয়াইলি: kun ldan shes rab) নামক বৌদ্ধ ভিক্ষু দিয়েছিলেন, সে নিয়ে অবশ্য দ্বিমত রয়েছে।[১]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

দশ বছর বয়সে রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে ম্ত্শুর-ফু বৌদ্ধবিহারে যাত্রা করে শেস-রাব-দ্পাল (ওয়াইলি: shes rab dpal), গ্ন্যান-রাস-দ্গে-'দুন-'বুম (ওয়াইলি: gnyan ras dge 'dun 'bum) এবং গ্নাম-ম্ত্শো-বা-মি-ব্স্ক্যোদ-র্দো-র্জে (ওয়াইলি: gnam mtsho ba mi bskyod rdo rje) নামক তিনজন বৌদ্ধভিক্ষুর নিকট কালচক্রছেদ সাধনা সম্পর্কে শিক্ষালাভ করেন। ১৩০১ খ্রিষ্টাব্দে তিনি গ্ঝোন-নু-ব্যাং-ছুব (ওয়াইলি: gzhon nu byang chub) নামক ভিক্ষুর নিকট ভিক্ষুর শপথ গ্রহণ করেন। এই সময় তিনি প্রমাণ, প্রজ্ঞাপারমিতা, মধ্যমক, অভিধর্মকোশ ও বিনয় সম্বন্ধে শিক্ষালাভ করেন। পরবর্তীকালে তিনি ৎশুল-খ্রিম্স-রিন-ছেন (ওয়াইলি: tshul khrims rin chen) নামক বৌদ্ধ ভিক্ষুর নিকট গুহ্যসমাজতন্ত্র এবং রি-খোর-রাস-পা (ওয়াইলি: ri khor ras pa) ও রিগ-'দ্জিন-কু-মা-রা-রা-দ্জার নিকট অতিযোগযানের বি-মা-স্ন্যিং-থিগ সম্বন্ধে শিক্ষালাভ করেন।[n ১] ১৩২১ খ্রিষ্টাব্দে দোল-পো-পা-শেস-রাব-র্গ্যাল-ম্ত্শান নামক জো-নাং ধর্মসম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠাতার সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে তিনি গ্ঝান-স্তোং তত্ত্বকে সমৃদ্ধ করেন।[৩] তিব্বতে রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে ছেদ সাধনা তত্ত্বকে সুসংবদ্ধ ও প্রণালীবদ্ধ করার জন্যও বিখ্যাত।

ইউয়ান রাজসভায় প্রভাববিস্তার[সম্পাদনা]

১৩৩১ খ্রিষ্টাব্দে ইউয়ান সম্রাট তোক তেমুরের আমন্ত্রণে তিনি রাজধানী দোদু যাত্রা করে পরের বছর ৬ই নভেম্বর পৌঁছান। সেখানে তিনি সাম্রাজ্যের উত্তরাধিকার নিয়ে এক বিবাদের মধ্যস্থতা করেন। এই সময় তোঘান তেমুর নতুন ইউয়ান সম্রাট হলে তিনি তাঁকে ধর্মীয় শিক্ষা দান করে[n ২] তাঁর শিষ্য কুন-'দ্গা-র্দো-র্জের (ওয়াইলি: kun dga' rdo rje) জন্য সিতু (司徒) এবং গুওশি (國師) নামক দুইটি উপাধি এবং ম্ত্শুর-ফু বৌদ্ধবিহারকে কর প্রদানের আওতাবহির্ভূত করার ব্যবস্থা করেন। ১৩৩৪ খ্রিষ্টাব্দে তিনি তিব্বত ফিরে গেলেও দুই বছর পর আবার চীনে ফিরে যান।[১]

রচনা[সম্পাদনা]

রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে বহু উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ রচনা করেন, যার মধ্যে অনুত্তরযোগতন্ত্রের ওপর জাব-মো-নাং-দোন[৬] এবং মহামুদ্রা তত্ত্বের ওপর ঙ্গে-দোন-ফ্যাগ-র্গ্যা-ছেন-পো'ই-স্মোন-লাম-গ্যি-'গ্রেল-পা-গ্রুব-পা-ম্ছোগ-গি-ঝাল-লুং (ওয়াইলি: nge don phyag rgya chen po'i smon lam gyi 'grel pa grub pa mchog gi zhal lung) চিরায়ত তিব্বতী গ্রন্থের মর্যাদা লাভ করেছে। এছাড়া তার র্নাম-শেস-য়ে-শেস-'ব্যেদ-পা (ওয়াইলি: rnam shes ye shes ‘byed pa)[৭] ও দে-ব্ঝিন-গ্শেগ্স-পা'ই-স্ন্যিং-পো-গ্তান-লা-দ্বাব-পা (ওয়াইলি: de bzhin gshegs pa'i snying po gtan la dbab pa)[৮] গ্রন্থগুলিও উল্লেখযোগ্য। রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে মা-গ্চিগ-লাব-স্গ্রোন দ্বারা প্রচারিত ছেদ সাধনাকে সুশৃঙ্খল করেন। তিনি মা-গ্চিগ-লাব-স্গ্রোন দ্বারা রচিত শেস-রাব-ক্যি-ফা-রোল-তু-ফ্যিন-পা-জাব-মো-গ্চোদ-ক্যি-মান-ঙ্গাগ-গি-গ্ঝুং-ব্কা'-ত্শোম্স-ছেন-মো (ওয়াইলি: Shes rab kyi pha rol tu phyin pa zab mo gcod kyi man ngag gi gzhung bka' tshoms chen mo) গ্রন্থের টীকাভাষ্য রূপে গ্চোদ-ব্কা'-ত্শোম্স-ছেন-মো'ই-সা-ব্চাদ (ওয়াইলি: Gcod bka' tshoms chen mo'i sa bcad) গ্রন্থটি রচনা করেন। এছারাও তিনি ছেদ সাধনার ওপর গ্চোদ-ক্যি-খ্রিদ-য়িগ (ওয়াইলি: Gcod kyi khrid yig), ত্শোগ্স-লাস-য়োন-তান-কুন-'ব্যুং (ওয়াইলি: Tshogs las yon tan kun 'byung), গ্চোদ-ক্যি-ত্শোগ্স-লাস-রিন-পো-ছে'ই-ফ্রেন্ব-বা-'দোন-ব্স্গ্রিগ্স-ব্ল্তাস-ছোগ-তু-ব্দোদ-পা-গ্চোদ-ক্যি-লুগ্স-সোর-ব্ঝাগ (ওয়াইলি: Gcod kyi tshogs las rin po che'i phrenb ba 'don bsgrigs bltas chog tu bdod pa gcod kyi lugs sor bzhag), মা-লাব-স্গ্রোন-লা-গ্সোল-বা-'দেব-পা'ই-ম্গুর-মা (ওয়াইলি: Ma lab sgron la gsol ba 'deb pa'i mgur ma), জাব-মো-ব্যুদ-ক্যি-গ্চোদ-য়িল-ক্যি-খ্রিদ-য়িগ (ওয়াইলি: Zab mo bdud kyi gcod yil kyi khrid yig) এবং গ্চোদ-ক্যি-ন্যাম্স-লেন (ওয়াইলি: Gcod kyi nyams len) উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ রচনা করেন।[n ৩]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. The third Karmapa Lama, Rangjung Dorje, was a disciple of Nyingma Kumaradza. The latter taught Rangjung Dorje the nying-thig, "heart-essence," teachings transmitted by Padmasambhava [the Khandro Nyingtik] and Vimalamitra [the Vima Nyingtik]. Therefore, Rangjung Dorje belongs to the nying-thig lineage of the Nyingma school. As a group, the Karmapa Lamas were among the earliest recognized Tulku, or lamas reincarnated as deities or lineage of deceased teachers. They were particularly influential at the Yuan and Ming courts of China.[২]
  2. The first several Karmapas are distinguished by their important status at the Yuan and Ming courts of China where they served as the spiritual guides to princes and emperors. Their influence also extended to the court of the Tangut Xia Kingdom where a disciple of Dusum Khyenpa was given the title "Supreme Teacher" by a Tangut Xixia King...[৪][৫]
  3. Rang byung was renowned as a systematizer of the Gcod teachings developed by Ma gcig lab sgron. His texts on Gcod include the Gcod kyi khrid yig; the Gcod bka' tshoms chen mo'i sa bcad which consists of a topical outline of and commentary on Ma gcig lab sgron's Shes rab kyi pha rol tu phyin pa zab mo gcod kyi man ngag gi gzhung bka' tshoms chen mo ; the Tshogs las yon tan kun 'byung ; the lengthy Gcod kyi tshogs las rin po che'i phrenb ba 'don bsgrigs bltas chog tu bdod pa gcod kyi lugs sor bzhag; the Ma lab sgron la gsol ba 'deb pa'i mgur ma; the Zab mo bdud kyi gcod yil kyi khrid yig, and finally the Gcod kyi nyams len.[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ Gardner, Alexander (২০১১-০৪)। "The Third Karmapa, Rangjung Dorje"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগৃহীত ২০১৩-১২-১৩ 
  2. Suchan, Tom (1998). The Third Karmapa Lama, Rangjung Dorje (1284-1338). Source: [১] (accessed: January 29, 2008)
  3. Stearns, Cyrus (1999). The Buddha from Dolpo: A Study of the Life and Thought of the Tibetan Master Dolpopa Sherab Gyaltsen, pp. 17, 47-48, 51-52, 61. State University of New York Press. ISBN 0-7914-4191-1 (hc); ISBN 0-7914-4192-X (pbk).
  4. Rhie, Marylin & Thurman, Robert (1991). Wisdom and Compassion. New York: Harry N. Abrams. p.236.
  5. Suchan, Tom (1998). The Third Karmapa Lama, Rang Jung Dorje (T: Rang 'Byung rDo rJe). Source: [২] (accessed: January 29, 2008)
  6. Dharma Dictionary (2008). zab mo nang don. Source: [৩] (accessed: January 29, 2008)
  7. Rangjung Dorje (root text); Venerable Khenchen Thrangu Rinpoche (commentary); Peter Roberts (translator) (2001). Transcending Ego - Distinguishing Consciousness from Wisdom (Wylie: rnam shes ye shes ‘byed pa). Source: [৪] (accessed: Wednesday April 1, 2009)
  8. Schaeffer, Kurtis R. (1995). The Englightened Heart of Buddhahood: A Study and Translation of the Third Karma pa Rang byung rdo rje's Work on Tathagatagarbha. (Wylie: de bzhin pa'i snying po gtan la dbab pa). University of Washington. Source: [৫] (accessed: Friday February 12, 2010), p.1.
  9. Schaeffer, Kurtis R. (1995). The Englightened Heart of Buddhahood: A Study and Translation of the Third Karma pa Rang byung rdo rje's Work on Tathagatagarbha. (Wylie: de bzhin pa'i snying po gtan la dbab pa). University of Washington. Source: [৬] (accessed: Friday February 12, 2010), p.15.

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Lama Kunsang, Lama Pemo, Marie Aubèle (2012). History of the Karmapas: The Odyssey of the Tibetan Masters with the Black Crown. Snow Lion Publications, Ithaca, New York. ISBN 1-55939-390-4.
  • Thinley, Karma (২০০৮)। The History of Sixteen Karmapas of Tibet (ইংরেজি ভাষায়)। USA: Prajna Press। পৃ: 150। আইএসবিএন 1-57062-644-8 
  • Douglas, Nik, and Meryl White. 1976. Karmapa - The Black Hat Lama of Tibet. London: Luzac & Company LTD.
  • Jackson, David. 2009. "The Black Hats of the Karmapas." In Patron and Painter; Situ Paṇchen and the Revival of the Encampments Style, pp. 39–69. New York: Rubin Museum of Art.
  • Karma Thinley. 1980. The History of the Sixteen Karmapas of Tibet. Boulder: Prajna Press.
  • Petech, Luciano. 1990. Central Tibet and the Mongols—The Yuan- Sa-skya Period of Tibetan History. Istituto Italiano per il Medio ed Estremo Oriente, Rome, pp. 86–87.
  • Richardson, H.E. 1958-1959. "The Karma-pa Sect. A Historical Note." Journal of the Royal Asiatic Society, no. 3-4, pp. 139–164; no. 1-2, pp. l-18.
  • Roerich, George, trans. 1996. The Blue Annals. 2nd ed. Delhi: Motilal Banarsidas, pp. 488–493.
পূর্বসূরী
কার্মা-পাক্শি
রাং-'ব্যুং-র্দো-র্জে
তৃতীয় র্গ্যাল-বা-কার্মা-পা
উত্তরসূরী
রোল-পা'ই-র্দো-র্জে