রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(রনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়
রনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়.jpeg
ধরনবেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়
আচার্যরাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
ঠিকানা১২ সাহেব বাপ্পি স্মরণী রোড, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ, বাংলাদেশ
শিক্ষাঙ্গনশহর
সংক্ষিপ্ত নাম RPSU
অধিভুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন

রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়[১]

একাডেমিক সেমিস্টারে[সম্পাদনা]

পিএইচ এর একাডেমিক সময়কাল তিনটি সেমিস্টার বছরে:

অনুষদ[সম্পাদনা]

  • কলা ও মানবিক অনুষদ
  • ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ
  • বিঞ্জান অনুষদ

ক্লাসসমূহ[সম্পাদনা]

এই বিশ্ববিদ্যলয়ের সকল শ্রেণীকক্ষে শিক্ষার্থীদের বসার জন্য সিঙ্গেল ডেক চেয়ার ও ডাবল বেন্স রয়েছে। শ্রেণীকক্ষগুলো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। ও সার্বক্ষণিক বিদূৎ সুবিধা।

ল্যাবসমূহ[সম্পাদনা]

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয়ে ব্যবহারিক শিক্ষা প্রদানের ২টি ল্যাব রয়েছে।

  • কম্পিউটার ল্যাব
  • বিঞ্জান ল্যাব

সমালোচনা[সম্পাদনা]

ভারপ্রাপ্ত ভিসিদের স্বাক্ষরে দেওয়া দেশেররনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সনদ অবৈধ ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। একইসঙ্গে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সংশ্লিষ্টদের জেনে-শুনে সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায়, বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত ভিসি নিয়োগ আইন পরিপন্থী। তাই ভিসিহীন রনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদ গ্রহণযোগ্য হবে না। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সংশ্লিষ্টদের জেনে ও বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

ইউজিসি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের অর্জিত ডিগ্রির মূল সনদ ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক স্বাক্ষরিত হতে হবে। আইন অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি চার বছর মেয়াদে প্রত্যেক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি, প্রো-ভিসি, এবং কোষাধ্যক্ষ পদে নিয়োগ দেবেন। কাজেই এসব পদে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কাউকে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে নিয়োগ দিলে তা হবে আইন পরিপন্থী। বর্তমানে রনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রপতির নিয়োগ করা ভিসি, প্রো-ভিসি ও কোষাধ্যক্ষ পদে কেউ নেই।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২০১০ সালের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের ৩১ (২) ধারা অনুযায়ী ভিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী ও একাডেমিক কর্মকর্তা। মঞ্জুরি কমিশনের একাধিক নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও রনদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি, প্রো-ভিসি এবং কোষাধ্যক্ষ নিয়োগের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এর ফলে শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেটের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে। রাষ্ট্রপতির নিয়োগ করা উপাচার্যের স্বাক্ষর ছাড়া সার্টিফিকেট গ্রহণযোগ্য হবে না। মেয়াদোত্তীর্ণ ভিসির স্বাক্ষরিত সার্টিফিকেট অবৈধ হিসেবে বিবেচিত হবে। [২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]