ম্যারি সেলেস্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Mary Celeste as Amazon in 1861.jpg
একজন অজানা (সম্ভবতঃ হুনেরু পেলেগ্রিন) শিল্পির আঁকা ১৮৬১ সালের আমাজনের (পরেঃ ম্যারি সেলেস্ট) একটি চিত্র।[১]
ইতিহাস
Civil Ensign of the United Kingdom.svgব্রিটিশ উত্তর আমেরিকা
নাম: আমাজন
স্বত্তাধিকারী: জসুয়া ডিউস, উইলিয়াম হেনরি বিগাল ও ছয়জন স্থানীয় লগ্নীকারী[২]
নিবন্ধনকৃত বন্দর: পার্সবোরো, নোভা স্কটিয়া
নির্মাতা: জসুয়া ডিউস
নির্মাণের সময়: ১৮৬০
অভিষেক: মে ১৮৬১
শনাক্তকরণ: list error: <br /> list (help)
আইসিএস: জেএফডব্লিউএন[৩]
ICS Juliet.svgICS Foxtrot.svgICS Whiskey.svgICS November.svg
নিয়তি: ১৮৬৭ সালে নোভা স্কটিয়ার গ্লেস উপসাগরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, উদ্ধার করে আমেরিকান মালিকের কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়।
টীকা: অফিসিয়াল নাম্বার ৩৭৬৭১২
ইতিহাস
Flag of the United States (1867–1877).svgযুক্তরাষ্ট্র
স্বত্তাধিকারী: জেমস এইস. উইনচেস্টার (প্রথম আমেরিকান মালিক); জি.সি. পার্কার (শেষ মালিক)
নিবন্ধনকৃত বন্দর: নিউইয়র্ক
নির্মাতা: রিবিল্ট নিউইয়র্ক ১৮৭২
নিয়তি: আজোরাসের কাছে ১৮৭২ সালে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়; ১৮৮৫ সালে হাইতিতে ডোবানো হয়।
সাধারণ বৈশিষ্ট্য
টনিজ:

১৮৬১ সালে তৈরি করার পর ১৯৮ টন[৪]

১৮৭২ সালে ২৮২ টন[৫]
দৈর্ঘ্য: ৯৯.৩ ফু (৩০.৩ মি) তৈরির সময়, ১০৭ ফু (৩৩ মি) পুনরায় তৈরির পরে
প্রস্থ: ২২.৫ ফু (৬.৯ মি) তৈরির সময়, 26.6 পুনরায় তৈরির পরে
গভীরতা: ১১.৭ ফু (৩.৬ মি)তৈরির সময়, ১৬.২ ফু (৪.৯ মি) পুনরায় তৈরির পরে
পাটাতন: ১ তৈরির সময়, ২ পুনরায় তৈরির পরে
Sail plan: ব্রাজেনটাইন

ম্যারি সেলেস্ট (ইংরেজি: Mary Celeste) ব্রিটিশ-আমেরিকার বিশ্ব বিখ্যাত জাহাজ। ১৮৭২ সালের ৪ ডিসেম্বর ম্যারি সেলেস্টকে আটলান্টিক মহাসাগরে মনূষ্যহীন ও যাত্রার জন্য তৈরী অবস্থায় পাওয়া যায়। জাহজের ৭ জন নাবিকের একজনকেও খোঁজে পাওয়া যায় নি এবং একটি লাইফবোট পাওয়া যায় নি যদিও সেদিনের আবহাওয়া ভাল ছিল ও জাহাজের প্রত্যেকে অভিজ্ঞ নাবিক ছিলেন। ম্যারি সেলেস্টও যাত্রার উপযোগী ছিল এবং যখন পাওয়া যায় তখন জাহাজটি জিব্রাল্টার অভিমূখে যাত্রার জন্য তৈরী অবস্থায় ছিল। জাহাজটি যখন পাওয়া যায় তার এক মাস আগে সমুদ্রে নামানো হয়েছিল এবং তখনো জাহাজের ডেকে ছয় মাসের খাবার মজুত ছিল। জাহাজের মালামাল ও নাবিকদের অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্রও ঠিক জায়গায় ছিল। কিন্তু জাহাজে কোন মানুষ ছিল না। তাদের অন্তর্ধান পৃথিবীর সর্বকালের রহস্যের মধ্যে একটি।

সময়কাল[সম্পাদনা]

  • ১৮৬১ – আমাজন কানাডার নোভা স্কোশিয়ায় তৈরি করা হয়
  • ১৮৬৭ – নোভা স্কোশিয়ার গেলসি উপসাগরে ঝড়ের কবলে পরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
  • ১৮৬৯ – উদ্ধার করে ও মেরামত করে মার্কিন মালিকের কাছে বিক্রি করা হয়। নাম বদল করে ম্যারি সেলেস্ট রাখা হয়।
  • ১৮৭২ – ৭ নভেম্বর নিউইয়র্ক থেকে ইতালির জিওনায় যাত্রা করে।
  • ১৮৭২ – ২৪ নভেম্বর সর্বশেষ ক্যাপ্টেন তার লগবুকে লেখেন।
  • ১৮৭২ – ২৫ নভেম্বর জাহাজের শ্লেটে শেষ লেখা হয়।
  • ১৮৭২ – ৪ ডিসেম্বর জাহাজটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।
  • ১৮৮৫ – জানুয়ারি ৩ এ ক্যাপ্টেন পার্কার জাহাজ নিয়ে ফিরে আসেন।

জাহাজের তথ্যাদি[সম্পাদনা]

জাহাজের সে সময়কার যাত্রী, ক্রু ও নাবিকদের সম্পর্কে ওয়াশিংটনের জাতীয় সংগ্রহশালায় তথ্য আছে।[৬]

ক্রু[সম্পাদনা]

নাম অবস্থা জাতীয়তা বয়স
বেঞ্জামিন এস. ব্রিগস ক্যাপ্টেন আমেরিকান ৩৭
আলবার্ট জি. রিচার্ডসন ম্যাট (যারা পদমর্যাদায় ক্যাপ্টেনের নিচে) আমেরিকান ২৮
এন্ড্রো গিলিং সেকেন্ড ম্যাট ডাচ ২৫
এডোয়ার্ড ডব্লিওএম হেড স্টুয়ার্ড ও কুক আমেরিকান ২৩
ভলকার্ট লোরেনজেন সীম্যান জার্মান ২৯
আরিয়ান মার্টিন সীম্যান জার্মান ৩৫
বয় লোরেনজেন সীম্যান German ২৩
গোডলিয়েক গোডেসিয়েভ সীম্যান জার্মান ২৩

যাত্রী[সম্পাদনা]

নাম অবস্থা বয়স
সারা এলিজাবেথ ব্রিগস ক্যাপ্টেনের স্ত্রী ৩০
সোফিয়া ম্যাটিল্ডা ব্রিগস ক্যাপ্টেনের মেয়ে

তথ্যমূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Art gallery of Nova Scotia, "Tall Ships of Atlantic Canada", Ship Portrait Information "Amazon""। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৩ 
  2. "Art Gallery of Nova Scotia, "Tall Ships of Atlantic Canada", Amazon Registry Information"। ২৫ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৩ 
  3. ""On the Rocks Shipwreck Database", Maritime Museum of the Atlantic, "Amazon-1867"। ২৮ আগস্ট ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৩ 
  4. Registry of Nova Scotia, 1866, p. 177
  5. Registry of American & Foreign Shipping, 1873
  6. Fay, Charles E. (১৯৪৩)। Mary Celeste - Odyssey of an Abandoned Ship, Appendix J। Peabody Museum। 

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]