মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ৩৪°০৩′২৪.৯″ উত্তর ৪°৫৯′৩৮.৬″ পশ্চিম / ৩৪.০৫৬৯১৭° উত্তর ৪.৯৯৪০৫৬° পশ্চিম / 34.056917; -4.994056
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদ
Moulay abdallah mosque minaret.jpg
মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদের মিনার
ধর্ম
ফেরকাসুন্নি ইসলাম (মালিকি)
অবস্থান
অবস্থানমরক্কো ফেজ, মরক্কো
মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদ মরক্কো-এ অবস্থিত
মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদ
মরক্কোতে অবস্থান
স্থানাঙ্ক৩৪°০৩′২৪.৯″ উত্তর ৪°৫৯′৩৮.৬″ পশ্চিম / ৩৪.০৫৬৯১৭° উত্তর ৪.৯৯৪০৫৬° পশ্চিম / 34.056917; -4.994056
স্থাপত্য
ধরনমসজিদ
স্থাপত্য শৈলীমরক্কান, ইসলামি
প্রতিষ্ঠাতামৌলে আবদুল্লাহ
প্রতিষ্ঠার তারিখঅষ্টাদশ শতাব্দী
মিনার

মৌলে আবদুল্লাহ মসজিদ মরক্কোর ঐতিহাসিক প্রাসাদ-শহর ফেজের ফেস আল-জেদীদ অবস্থিত একটি মসজিদ ও রাজকীয় কবরস্থান কমপ্লেক্স। এর প্রতিষ্ঠাতা অ্যালৌউত সুলতান মৌলে আবদুল্লাহ (রাজত্বকাল ১৭২৯-১৭৫৭) রাজবংশের পরবর্তী সদস্যদের সাথে এই মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে সমাধিস্থ হন।[১][২][৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মসজিদটি ফেস আল-জেদীদে অবস্থিত। ফেস আল-জেদীদ মূলত একটি রাজকীয় দুর্গ ও প্রশাসনিক শহর ছিল যা মেরিনিড রাজবংশ কর্তৃক ১২৭৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।[১] সপ্তদশ শতাব্দীতে অ্যালৌউত সুলতান মৌলে রশিদ তার উপজাতি সৈন্যদের বাসস্থানের জন্য ফেস আল-জেদীদের উত্তরে বৃহত্তর কাসবাহ শোররিদা নির্মাণ করেন,[১] যা পরবর্তীতে শহরে নতুন স্থান বিমুক্ত করে। এর মধ্যে ফেস আল-জেদীদের উত্তর-পশ্চিম অঞ্চল অন্তর্ভুক্ত ছিল যা পরবর্তীতে অষ্টাদশ শতাব্দীর শুরুর দিকে মৌলে আবদুল্লাহ পাড়ায় পরিণত হয়।[৪] এখানেই সুলতান মৌলে আবদুল্লাহ (রাজত্বকাল ১৭২৯-১৭৫৭) এই মসজিদ ও রাজকীয় কবরস্থান নির্মাণ করেন যেখানে তার মৃত্যুর পর তাকে সমাধিস্থ করা হয়। পরবর্তীতে কবরস্থানটি অ্যালৌউত পরিবারের কবরস্থান হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে এবং উনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে মুহাম্মদ ইবনে আব্দুর রহমান এটিকে বর্তমান গঠনে পুনর্নির্মাণ করেন (১৮৫৯ সালে সিংহাসনে আরোহণের পূর্বে যখন তিনি তার পিতার অধীনে ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন)। পরে এখানে সুলতান মৌলে ইউসুফ, মৌলে আব্দুল হাফিদমৌলে আব্দুলাজিজকে যথাক্রমে ১৯২৭, ১৯৩৭ ও ১৯৪৩ সালে সমাধিস্থ করা হয়।[৩][৫]

মসজিদটিতে একটি মাদ্রাসাও ছিল যেখানে নিম্ন-শিক্ষিত শিক্ষার্থীদের আল-কারাওইন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা শুরু করার আগে প্রাথমিক প্রশিক্ষণ (কুরআন-সংক্রান্ত শিক্ষা) দেওয়া হতো।[১] একটি পুরোনো ঐতিহাসিক হাম্মাম মসজিদের ঠিক পশ্চিমে অবস্থিত (বা ছিল)।[৩]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Le Tourneau, Roger (১৯৪৯)। Fès avant le protectorat: étude économique et sociale d'une ville de l'Occident musulman. (ফরাসি ভাষায়)। Casablanca: Société marocaine de librairie et d'édition। ওসিএলসি 761131028 
  2. Marçais, Georges (১৯৫৪)। L'architecture musulmane d'occident: Tunisie, Algérie, Maroc, Espagne et Sicile (ফরাসি ভাষায়)। Paris: Arts et métiers graphiques। ওসিএলসি 24824827 
  3. Maslow, Boris (১৯৩৭)। Les mosquées de Fès et du Nord du Maroc (স্পেনীয় ভাষায়)। Paris: Les Éditions d'Art et d'Histoire। ওসিএলসি 954521986 
  4. Maṭālsī, Muḥammad (২০০৩)। Fès : la ville essentielle। Cécile Tréal, Jean-Michel Ruiz। Courbevoie: ACR édition। আইএসবিএন 2-86770-152-Xওসিএলসি 52385967 
  5. Bressolette, Henri (২০১৬)। À la découverte de Fès। Paris। আইএসবিএন 978-2-343-09022-1ওসিএলসি 949331845