মোমাই তামুলী বরবরুয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মোমাই তামুলী বরবরুয়া (ইংরেজি: Mumai Tamuli Borbarua;অসমীয়া: মোমাই তামুলী বরবরুৱা) ছিলেন আহোম স্বর্গদেউ প্রতাপ সিংহ রাজত্বকালের সময় এজকন দক্ষ বিষয়া। তিনি সল্প দিনের মধ্যেই পদোন্নতি হয়ে বিষয়ার পদে নিযুক্তি লাভ করেছিলেন। রাজ্যের সর্বপ্রধান কার্য্যপালক ও বিচারক ছিলেন মোমাই তামুলী বরবরুয়া। তাঁকে অসমের ইতিহাসে গুনী ও দক্ষ বিষয়া রুপে বর্ননা করা হয়েছে। তিনি আহোম শাসন ব্যবস্থা ও সাধারণ জীবন যাত্রার ক্ষেত্রে যথেষ্ট উন্নতিসাধন করেছিলেন। ইতিহাস বিখ্যাত লাচিত বরফুকন, লালুকসোলা বরফুকন ও পাখরী গাভরু তাঁর সন্তান ছিল। আহোম স্বর্গদেউ প্রতাপ সিংহ বরবরুয়া হিসেবে মোমাই তামুলীকে নিযুক্তি দিয়েছিলেন। তিনি প্রথম আহোম সাম্রাজ্যে বরবরুয়া পদক প্রাপ্ত ব্যক্তি ছিলেন। নামনী অসমের রাজ্যপালের সাদৃশ ছিলেন মোমাই তামুলী বরবরুয়া। প্রথম অবস্থায় তিনি ভাগনার নিকট চার টাকা রুপার বিনিময়ে চাকর হিসেবে কাজ করিতেন। সমন্ধে তিনি ছিলেন মামা । অসমীয়া ভাষায় মামাকে মোমাই ডাকা হয় ফলে তাঁর ভাগনা তাঁকে মোমাই ডাকতেন। অঞ্চলের অন্যান্য ব্যক্তিরাও তাঁকে মোমাই বলে সম্বোধিত করিতেন। তাঁর প্রকৃত নাম ছিল শুকুতি। পরবর্তী সময়ে তিনি মোমাই তামুলী বরবরুয়া নামে বিখ্যাত হন। একদিন রাজা প্রতাপ সিংহ রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় একটি গৃহে কর্মরত ভৃত্যকে দেখলেন। রাজা গৃহটি দেখে আনন্দিত হন। ভৃত্যটিকে তিনি রাজদরবারে তিপমীয়া রাজখোয়া হিসেবে নিযুক্ত করেন। তারপর তাঁকে রাজা বর তামুলী পদে উন্নতি করেন। রাজার বাগানের দেখাশুনা করার দায়িত্ব তামুলী পদের ব্যক্তির হাতে ন্যাস্ত থাকত। নিজের কার্যদক্ষতার ফলে তিনি অল্পদিনের মধ্যে বরবরুয়া পদে উন্নতি হন।১৬৩৯ সনে আহোম ও মোগলদের সীমানা নির্ধারন করার জন্য বরনদী চুক্তি হয়। মোগলের পক্ষ হয়ে আলাহ-ইয়ার-খাঁ ও আহোমের পক্ষ হয়ে মোমাই তামুলী বরবরুয়া এই চুক্তিতে অংশগ্রহন করেন।

মোমাই তামুলী বরবরুয়ার প্রশাসনিক ও সামাজিক সংস্কার[সম্পাদনা]

বরা, শইকীয়া, হাজরিকা, রাজখোয়া,ফুকন ইত্যাদি বিষয়ার পদ মোমাই তামুলী বরবরুয়া সৃষ্টি করেছিলেন।তিনি পাইক প্রথার জনক স্বরুপছিলেন।প্রত্যেক পরিবার থেকে একজন সদস্য রাজ্যের কাজে নিয়োগ করার প্রথাকে পাইক প্রথা বলা হত। যুদ্ধের সময় তাঁদের রনক্ষেত্রে যেতে হত। তাঁদের পাইক বলা হত। প্রত্যেকটি পরিবারকে তাঁত শিল্পে বস্ত্র নির্মাণ করা বাধ্যতামুলক করা হয়েছিল। [১] এইভাবে আহোম সাম্রাজ্যে অর্থনীতি স্ব-নির্ভরশীল করা হয়েছিল। মোমাই তামুলী বরবরুয়ার কার্যদক্ষতা ও সততার কাহিনী ইতিহাসে বর্নিত হয়ে আছে। মোমাই তামুলী সম্পর্কে একজন ফৌজদার প্রশ্ন করায় অধিবক্তা বলেন যে: রাজা প্রতাপ সিংহ হলেন সাক্ষাৎ মহাদেব ও মোমাই তামুলী বরবরুয়া তাঁর প্রধান ভৃত্য নন্দী। অসমে এই দুইজন কার্যপালক থাকা পর্যন্ত আপনি সেখানে নিজের রাজ্য বিস্তার করিতে পারিবেন না।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]