মেঘকুমারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মেঘকুমারী
Clipper
Open wing basking of Parthenos sylvia Cramer, 1775 – Clipper WLB DSC 4119.jpg
ডানা খোলা অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Nymphalidae
গোত্র: Parthenini
গণ: Parthenos
প্রজাতি: P. sylvia
দ্বিপদী নাম
Parthenos sylvia
(Cramer, [1776])
Subspecies

Many, see text.

প্রতিশব্দ

Papilio sylvia

মেঘকুমারী (বৈজ্ঞানিক নাম:Parthenos sylvia(Cramer)) নিমফ্যালিডি গোত্র ও লিমেনিটিডিনি[১] উপ-গোত্রের অন্তর্ভুক্ত এক রাজকীয় প্রজাপতি। এটি আকারে বেশ বড় হয়। অত্যন্ত দ্রুত, সুন্দর ও রাজকীয়ভাবে উড়তে পারে। সাধারণত গাছের বেশ উঁচুতে অবস্থান করে। অনেক সময় ভেজা মাটিতে নেমে আসে। ডানা মেলে রোদ পোহায়। মেঘকুমারীর ডানার ওপরের দিক উজ্জ্বল সবুজ। সামনের ডানা লম্বাটে ও ত্রিকোণাকৃতির। ডানার গোড়ার দিকে দুটি বড় কালো আঁকাবাঁকা ডোরা। সামনের ডানায় কয়েক সারি প্রায় স্বচ্ছ বরফসাদা দাগ। আর পেছনের ডানায় থাকে কালো শিরা এবং গোড়ার দিকে কালো আঁকাবাঁকা ডোরা। ডানার নিচের দিকের রং হালকা নীল ও সেখানে কালো ডোরা অনুপস্থিত।[২][৩]

আকার[সম্পাদনা]

মেঘকুমারীর প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৯৫-১৩০ মিলিমিটার দৈর্ঘ্যের হয়।[২][৪]

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

এখনও পর্যন্ত মেঘকুমারী প্রজাপতিদের ৩২টি উপপ্রজাতি চিহ্নিত করা গেছে।

  • P. s. admiralia Rothschild, 1915
  • P. s. apicalis Moore, 1878
  • P. s. aruana Moore, [1897]
  • P. s. bandana Fruhstorfer
  • P. s. bellimontis Fruhstorfer, 1899
  • P. s. borneensis Staudinger, 1889
  • P. s. brunnea Staudinger, 1888
  • P. s. couppei Ribbe, 1898
  • P. s. cyaneus Moore, 1877
  • P. s. ellina Fruhstorfer, 1899
  • P. s. gambrisius (Fabricius, 1787)
  • P. s. guineensis Fruhstorfer, 1899
  • P. s. joloensis Fruhstorfer, 1899
  • P. s. lilacinus Butler, 1879 – blue clipper
  • P. s. nodrica (Boisduval, 1832)
  • P. s. numita Fruhstorfer
  • P. s. obiana Fruhstorfer, 1904
  • P. s. pherekrates Fruhstorfer, 1904
  • P. s. pherekides Fruhstorfer, 1904
  • P. s. philippinensis Fruhstorfer, 1899 – brown clipper
  • P. s. roepstorfii Moore, [1897]
  • P. s. salentia (Hopffer, 1874)
  • P. s. silvicola Fruhstorfer, 1897
  • P. s. sulana Fruhstorfer, 1899
  • P. s. sumatrensis Fruhstorfer, 1899
  • P. s. sylla (Donovan, 1798)
  • P. s. theriotes Fruhstorfer
  • P. s. thesaurinus Grose-Smith, 1897
  • P. s. thesaurus Mathew, 1887
  • P. s. tualensis Fruhstorfer, 1899
  • P. s. ugiensis Fruhstorfer
  • P. s. virens Moore, 1877

ভারতে প্রাপ্ত মেঘকুমারীর এর উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ভারতে প্রাপ্ত মেঘকুমারীর উপপ্রজাতি হল-[৫]

  • Parthenos sylvia virens Moore, 1877 – Sahyadri Clipper
  • Parthenos sylvia gambrisius Fabricius, 1787 – Bengal Clipper
  • Parthenos sylvia roepstorfii Moore, 1897 – Andaman Clipper
  • Parthenos sylvia nila Evans, 1932 – Nicobar Clipper

বিস্তার[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ ছাড়াও এশিয়ার ভারত (উত্তরাঞ্চল থেকে অরুণাচল প্রদেশ, উত্তর পূর্ব ভারত, দক্ষিণ ভারতের পূর্বঘাট ও পশ্চিমঘাট পর্বত এবং আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ),শ্রীলঙ্কা ও মায়ানমারএ এদের দেখা যায়। এটি বনবাসী প্রজাপতি। মূলত আর্দ্র চিরসবুজ, আধা-চিরসবুজ ও নদী-নালা-ছড়া আছে এমন স্যাঁতসেঁতে পাতাঝরা বনে দেখা যায়।[২][৩]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

প্রজাপতির দেহাংশের পরিচয় বিষদ জানার জন্য প্রজাপতির দেহ এবং ডানার অংশের নির্দেশিকা দেখুন:-

ডানার উপরিতল : স্ত্রী-পুরুষ উভয় প্রকারেই ডানার উপরিতল হালকা নীলচে সবুজ ও কালো দাগ-ছোপ যুক্ত |

সামনের ডানা : সামনের ডানা ত্রিভুজাকৃতি , কোস্টা খুব সামান্য বাঁকানো ও শীর্ষ (apex) গোলাকার | সেল-এর বহিঃপ্রান্ত অবতল (concave)| সেল-এর মধ্যভাগে তির্যক একটি কালো রেখায় ঘেরা পটি ও বহিঃপ্রান্তে একটি কালো লম্বাটে ছোপ বর্তমান যার উপরিভাগ স্ফীত এবং নিচের দিকে ক্রমশ সরু হয়ে গেছে | ডানার গোড়ার ( base ) দিকে সেল-এর নিম্নভাগে ও খানিক নিচে দুটি চওড়া কালো দাগ বা পটি আনুভুমিকভাবে (horizontally) বক্ষদেশ (thorux) পর্যন্ত বিস্তৃত | বিভিন্ন আকৃতির বৃহদাকার ও মাঝারি , অর্ধ-স্বচ্ছ ,সাদা ডিসকাল ছোপের একটি তীর্যক সারি বর্তমান | ডিসকাল ছোপ-সারিটি কোস্টার নিচ থেকে উৎপন্ন হয়ে ডরসামের খানিক উপরে ১ বি নং শিরা পর্যন্ত অসংলগ্নভাবে বিস্তৃত | শীর্ষভাগ (apex) , টারমেন্ ও পোস্ট-ডিসকাল অংশ চওড়াভাবে কালো বা নীলচে কালো | সাব-টার্মিনাল রেখাটি অস্পষ্ট, ফ্যাকাশে ও সাদা; কালো শিরা দ্বারা খণ্ডিত এবং টরনাস পর্যন্ত বিস্তৃত | টার্মিনাল প্রান্তরেখার গা ঘেঁষে কতকগুলি অস্পষ্ট কালো ছোপের সারি চোখে পরে যার মধ্য ও নিম্নভাগের ছোপগুলি গোলাকৃতি | টার্মিনাল প্রান্তরেখা পর্যায়ক্রমে সাদা ও কালো |

পিছনের ডানা : পিছনের ডানা ছোট, খুব চওড়া ও খানিকটা চৌকো (quadrate ) | টার্মেন মধ্যভাগের নিচে সামান্য অভিক্ষিপ্ত (outwardly produced) |ডানার গোড়ায় (base) সামনের ডানার অনুরূপ দুটি আনুভূমিক চওড়া কালো দাগ বা পটি বর্তমান | কালো ডিসকাল ছোপের সারির নিম্নভাগের ছোপ ৩ টি তুলনামূলক বড়ো | পোস্ট-ডিসকাল অংশে শিরাগুলি অধিকতর বলিষ্ঠ ও কালো এবং প্রতিটি শিরামধ্যে (inter -space) দুটি করে শঙ্কু-আকৃতি লম্বাটে কালো দাগ লক্ষ্য করা যায় | সাব-টার্মিনাল কালো ছোপের সারিটির ছোপগুলি বড় ; প্রায় অর্ধচন্দ্রাকৃতি ও শঙ্কু-আকৃতি বিশিষ্ট |সাদা বা ঈষদ হলদে সাব-টার্মিনাল রেখাটি টরনাস পর্যন্ত বিস্তৃত | সাব-টার্মিনাল রেখা ও টার্মিনাল প্রান্তরেখার মধ্যবর্তী অংশ কালো | সামনের ডানার ন্যায় পিছনের ডানায়ও টার্মিনাল প্রান্তরেখার গা ঘেঁষে কতকগুলি অস্পষ্ট কালো ছোপের সারি চোখে পরে এবং টার্মিনাল প্রান্তরেখা পর্যায়ক্রমে সাদা ও কালো | ডরসাম লোমশ ও ফ্যাকাশে বাদামি |

ডানার নিম্নতল : ডানার নিম্নতল ফ্যাকাশে সবজে বাদামি | সামনের ডানার উপরিতলের ডিসকাল ছোপগুলি স্বচ্ছতার কারণে নিম্নতলে দৃশ্যমান | উভয় ডানাতেই শিরাগুলি বলিষ্ঠভাবে প্রকট | সামনের ডানার সেল-এর প্রান্তভাগে হাতির শুঁড়ের ন্যায় বা ফানেলাকৃতি একটি ফ্যাকাশে সাদা ছোপ ও মধ্যভাগে কালো রেখায় আবৃত অপর একটি বাদাম আকৃতির ফ্যাকাশে সাদা ছোপ দেখা যায় | পিছনের ডানার গোড়ার অংশ (besal) ধূসর সাদা | ডানার মধ্যবর্তী আঁকাবাঁকা সরু কালো ডিসকাল রেখাটি সংক্ষিপ্ত এবং পোস্ট-ডিসকাল অংশে কোস্টার নিচ থেকে ডরসামের উপর পর্যন্ত অস্পষ্ট কালো ছোপের একটি অসংলগ্ন ও আঁকাবাঁকা সারি চোখে পরে | পুরুষ প্রকারের ডানা তুলনামূলক বড় ও চওড়া | শুঙ্গ কালো ও শীর্ষভাগে হালকা কমলা | মাথা ,বক্ষদেশ ও উদর উপরিতলে ফ্যাকাশে বাদামি বা কালচে বাদামি এবং নিম্নতলে ধূসর সাদা | উদর দেহের আনুপাতিক ছোট ও উপরিতলে কালো পুরু রেখা দ্বারা ডোরাকাটা |

পুরুষ প্রকারের ডানা তুলনামূলক বড় ও চওড়া | শুঙ্গ কালো ও শীর্ষভাগে হালকা কমলা | মাথা ,বক্ষদেশ ও উদর উপরিতলে ফ্যাকাশে বাদামি বা কালচে বাদামি এবং নিম্নতলে ধূসর সাদা | উদর দেহের আনুপাতিক ছোট ও উপরিতলে কালো পুরু রেখা দ্বারা ডোরাকাটা |[৪]

আচরণ[সম্পাদনা]

এই প্রজাতির উড়ান ভীষণ শক্তিশালী, দ্রুত ও খামখেয়ালিপূর্ণ এবং বাতাসে ডানা ভাসিয়ে উড়ে বেড়ায়। এদের উড়ান সার্জেণ্ট (Sergeant) প্রজাতিদের মতো আকর্ষণীয় ও মহিমাপূর্ণ (graceful)। গাছের উঁচুতে ডালে বা পাতায় প্রায়শই এদের বসে থাকা লক্ষ্য করা যায়, তবে মাঝেমধ্যে মাটিতেও অবস্থান করে। উঁচুতে বিশেষ পছন্দের পাতায় এই প্রজাপতিদের ডানা মেলে বসা চোখে পরে; এই অবস্থান থেকে গাছের চারিধারে স্বল্পদৈর্ঘ্যের উড়ান দেয় অথবা দ্রুতবেগে ছোঁ-মেরে মাটির কাছাকাছি নিচে নেমে আসে এবং সাধারণতঃ আবার সেই উঁচুতে অবস্থিত পাতায় ফিরে যায়। মাঝেমধ্যে এদের ফুলে বসে মধুপান ও রোদ পোহাতে এবং মাটির ভিজে ছোপে বসে রসপান করতে দেখা যায়। এই প্রজাতি সাধরনত ভারী বৃষ্টিপাত যুক্ত পাহাড়ি ঘন জঙ্গলে আবদ্ধ থাকে। পশ্চিমঘাট পর্বতে অনুরূপ পরিবেশে ১০০০ থেকে ৩০০০ ফুট উচ্চয়তায় ফেব্রুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এদের দর্শন মেলে। অন্যান্য অঞ্চলে নিচু উচ্চতা বিশিষ্ট ঘন বনাঞ্চলে এদের দেখা পাওয়া যায় প্রায় সারাবছরই যদিও দর্শনপ্রাপ্তির নথিভুক্ততা খুবই কম। [৪][৬]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ডিম[সম্পাদনা]

মেঘকুমারীরা ফেব্রুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বেশ সক্রিয় থাকে। স্ত্রী মেঘকুমারী পাতার ওপর দিকে একটি করে ডিম পাড়ে। ডিমের আকার গম্বুজের মতো ও সাদাটে বর্নের। ডিমের গায়ে কাঁটা বা চুলের মতো অংশ দেখা যায়।[২]

শূককীট[সম্পাদনা]

শুককীট (larva) বেলনাকার; মাথা ও পায়ুখন্ড (anal) ছোট সাধারণ কাঁটা (spine) যুক্ত | ৩ থেকে ১২ নং দেহখন্ডের কাঁটাগুলি শাখাযুক্ত, দীর্ঘতর ও লালচে বাদামি | শূককীটের গায়ের রঙ হালকা সবুজ বা কালচে হলুদ; দেহের দুপাশে আনুভূমিক লম্বা সাদা বা হলুদ দাগযুক্ত |[৩]

মূককীট[সম্পাদনা]

মুককীট (pupa) প্রথমাবস্থায় সবুজ ও পরে নীলচে বাদামি এবং নৌকার মতো আকৃতি বিশিষ্ট। [৩]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Wynter-Blyth, M.A. (1957) Butterflies of the Indian Region, pg 379.
  2. অনিন্দ্যসুন্দর মেঘকুমারী,আ ন ম আমিনুর রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৯-০৩-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  3. R.K., Varshney; Smetacek, Peter (২০১৫)। A Synoptic Catalogue of the Butterflies of India। New Delhi: Butterfly Research Centre, Bhimtal & Indinov Publishing, New Delhi। পৃষ্ঠা 206। doi:10.13140/RG.2.1.3966.2164আইএসবিএন 978-81-929826-4-9 
  4. Isaac, Kehimkar (২০০৮)। The book of Indian Butterflies (ইংরেজি ভাষায়) (1st সংস্করণ)। নতুন দিল্লি: অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস। পৃষ্ঠা ৩৭৯। আইএসবিএন 978 019569620 2 
  5. "Parthenos sylvia Cramer, 1775 – Clipper"। ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. Kunte, Krushnamegh (২০১৩)। Butterflies of The Garo Hills। Dehradun: Samrakshan Trust, Titli Trust and Indian Foundation of Butterflies। পৃষ্ঠা ১০৬।