মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি
মুন্সীগঞ্জ পবিস
প্রাতিষ্ঠানিক লোগো
প্রাতিষ্ঠানিক লোগো
নীতিবাক্যগ্রাম পর্যায়ে বিদ্যুৎ পৌঁছানো এবং উন্নয়ন
গঠিত২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯৮; ২৩ বছর আগে (1998-09-29)
ধরনসরকারি
পেশাগত উপাধি
পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি
সদরদপ্তরমুন্সীগঞ্জ জেলা
অবস্থান
যে অঞ্চলে
মুন্সীগঞ্জ জেলা
পরিষেবাবিদ্যুৎ
দাপ্তরিক ভাষা
বাংলা, ইংরেজি
অনুমোদনবাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড
ওয়েবসাইটhttp://pbs.munshiganj.gov.bd/

মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি হচ্ছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড কর্তৃক পরিচালিত ৮০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মধ্যে একটি। মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ঢাকা বিভাগের মুন্সীগঞ্জ জেলায় ৫টি জোনাল অফিস, ৫টি সাব-জোনাল অফিস, ৪টি এরিয়া অফিস এবং ১৪টি অভিযোগ কেন্দ্রের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সেবা প্রদান করে থাকে। মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি প্রতিষ্ঠিত হয় ২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯ সালে ।[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নিবন্ধন পায় ২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯৮ সালে এবং যাত্রা শুরু হয় ৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯ সালে। এ সমিতির অধীনে ১২টি উপজেলা, ৭৭টি ইউনিয়ন, ৮৮২টি গ্রাম রয়েছে। এর সদর দপ্তর সিপাহীপাড়া, মুন্সীগঞ্জ জেলায় অবস্থিত।[১]

জোনাল অফিসসমূহ[সম্পাদনা]

এ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অধীনে থাকা জোনাল অফিসগুলো হচ্ছে:

  • মুন্সীগঞ্জ সদর জোনাল অফিস
  • চঙ্গীবাড়ি জোনাল অফিস,
  • লৌহজং জোনাল অফিস।
  • শ্রীনগর জোনাল অফিস
  • সিরাজজদিখান জোনাল অফিস।[১]

সাব-জোনাল অফিসসমূহ[সম্পাদনা]

  • নওপাড়া সাব জোনাল অফিস
  • নিমতলা সাব জোনাল অফিস
  • ভাগ্যকুল সাব জোনাল অফিস
  • চরডুমুরিয়া সাব জোনাল অফিস
  • ডিগ্র্রিরচর সাব জোনাল অফিস।[১]

এরিয়া অফিসসমূহ[সম্পাদনা]

০৪টি  : মীরকাদিম, মাঠপাড়া, বাংলাবাজার ও আলদী।[১]

গ্রাহক সংখ্যা[সম্পাদনা]

মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এর প্রায় ৪,৭৩,৮১১০ জন গ্রাহক রয়েছে।[১]

অন্যান্য তথ্য[সম্পাদনা]

  • মোট আয়তন: ১০৬৯ বর্গকিলোমিটার
  • সিষ্টেম লস: ৭.৫০%
  • উপকেন্দ্র: ২৩টি
  • উপকেন্দ্রের ক্ষমতা: ৪৩০ এমভিএ।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মুন্সীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি"pbs.munshiganj.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৮-০৫ 
  2. "বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড"www.reb.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৮-০৫