মুক্তারপুর সেতু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মুক্তারপুর সেতু
Trivuz munshiganj bridge.jpg
মুক্তারপুর সেতু
স্থানাঙ্ক২৩°২০′২৮″ উত্তর ৯০°১৮′১৬″ পূর্ব / ২৩.৩৪১০° উত্তর ৯০.৩০৪৪° পূর্ব / 23.3410; 90.3044স্থানাঙ্ক: ২৩°২০′২৮″ উত্তর ৯০°১৮′১৬″ পূর্ব / ২৩.৩৪১০° উত্তর ৯০.৩০৪৪° পূর্ব / 23.3410; 90.3044
বহন করেযানবাহন এবং পথচারী
অতিক্রম করেধলেশ্বরী নদী
স্থানমুন্সিগঞ্জ, বাংলাদেশ
অফিসিয়াল নাম৬ষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু
অন্য নামমুক্তারপুর ব্রীজ
ওয়েবসাইটমুক্তারপুর-সেতু
বৈশিষ্ট্য
নকশাবক্স গার্ডার
উপাদানপ্রিস্ট্রেস কনক্রিট
মোট দৈর্ঘ্য১,৫২১ মিটার (৪,৯৯০ ফু ২ ইঞ্চি)
প্রস্থ১০ মিটার (৩২ ফু ১০ ইঞ্চি)
উচ্চতা১৮.২৯ মিটার (৬০ ফু ০ ইঞ্চি)
স্প্যানের সংখ্যা৩৭টি
ইতিহাস
নির্মাণকারীচায়না রোড এন্ড ব্রীজ কর্পোরেশন (সিআরবিসি)
নির্মাণ শেষজানুয়ারী ২০০৮
নির্মাণ ব্যায়২০৮.৩৫ কোটি টাকা
উদ্বোধন হয়১৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৮ (2008-02-18)

মুক্তারপুর সেতু বাংলাদেশের একটি সড়ক সেতু। এটি ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নামেও পরিচিত।

অবস্থান[সম্পাদনা]

ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু মুন্সিগঞ্জ জেলার জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ন সেতু। এটি ৬ষ্ঠ মুক্তারপুর সেতু নামেও পরিচিত। মুন্সীগঞ্জ জেলা সদর থেকে প্রায় চার কিমি দূরে মুক্তারপুর নামক স্থানে ধলেশ্বরী নদীর উপর দিয়ে  নির্মিত এ ব্রীজটি ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ এবং মুন্সীগঞ্জ এর যোগাযোগ ব্যবস্থায় একটি গুরুত্বপূর্ন মাইলফলক। [১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সেতুটি নির্মিত হবার আগে এই অঞ্চলের মানুষ নদীটি ট্রলারে পার হত আর যানবাহন ফেরিতে পারাপার করতে হত।[২] ঢাকা ও মুন্সীগঞ্জ জেলার মধ্যে সরাসরি যাতায়াত ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ সড়কে ধলেশ্বরী নদীর ওপর ১৫২১ মিটার দীর্ঘ মুক্তারপুর সেতুর নির্মাণ কাজ ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সম্পন্ন হয়।[৩]

স্থাপত্য[সম্পাদনা]

ব্রিজটির দৈঘ্য ১৫১ মিটার এবং প্রস্থ ১০ মিটার। সেতুটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ২০৮.৩৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়ন ৭৯.১৫ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ১২৯.২০ কোটি টাকা। সেতুটির নির্মান কাজ শেষ হয় জানুয়ারী ২০০৮ সালে। সেতুটিতে মোট স্প্যান রয়েছে ৩৭টি এবং পাইল রয়েছে ১২৬ টি। বাংলাদেশ ব্রীজ অথরিটি এবং চায়না রোড় এন্ড ব্রীজ করপোরেশন এর যৌথ উদ্যোগে ব্রীজটি নির্মিত হয়।[৪]

অর্থনৈতিক প্রভাব[সম্পাদনা]

সেতুটি নির্মিত হওয়ায় মুন্সীগঞ্জ ও তার আশেপাশের অঞ্চলগুলো হতে ঢাকা মহানগরীতে শাক-শবজি ফলমূলসহ অন্যান্য কৃষিপণ্য সহজেই পরিবহন করা সম্ভব হচ্ছে।[৩]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (মুক্তারপুর সেতু)"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ৩০ অক্টোবর ২০১৯ 
  2. "Munshiganj: Muktarpur bridge over river Dhaleswari"Lonely Traveler। ৩১ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৯ 
  3. "সেতু কর্তৃপক্ষ/৬ষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (মুক্তারপুর সেতু)"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৯ 
  4. "ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (মুক্তারপুর সেতু)"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তারপুর সেতুর টোল হার বাড়লো[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তারপুর সেতুর টোল বাড়ছে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ