মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
গঠিত২০১৭
ধরনসুন্দরী প্রতিযোগিতা
সদরদপ্তরঢাকা
অবস্থান
সদস্যপদ
মিস ওয়ার্ল্ড
দাপ্তরিক ভাষা
বাংলা
ওয়েবসাইটmissworldbangladesh.com

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হচ্ছে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতা। ইভেন্টটি বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো ও প্রধান আন্তর্জাতিক সুন্দরী প্রতিযোগিতা, মিস ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশকে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ার জন্য তৈরি করা হয়েছিল।[১] মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের বিজয়ী মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগীতায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করে।

অক্টোবর ২০১৭ সালে, জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল প্রথমবারের মতো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নির্বাচিত হন। এক সপ্তাহ পরে এভ্রিলের মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ খেতাব বাদ দেওয়া হয়। পরবর্তীতে জানা গিয়েছিল যে তার বয়স ১৬ বছর নয়, ২৩ বছর এবং তিনি বিবাহিত। তার বিরুদ্ধে বিয়ের তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয়। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় জান্নাতুল নাঈমকে দেওয়া এই খেতাব বাতিল করা হয়। পরবর্তীতে প্রতিযোগিতার পাঁচ দিন পর, প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয়-স্থান অধিকার করা জেসিয়া ইসলামকে “মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ” হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। মিস ওয়াল্ড প্রতিযোগিতায়, তিনি ষষ্ঠ গ্রুপে হেড টু হেড চ্যালেঞ্জ পর্বে বিজয়ী হন ও শীর্ষ ৪০-এ যান।[২]

ইভেন্ট সম্পর্কে[সম্পাদনা]

এন্টার শোবিজ ও ওমিকন এন্টারটেইনমেন্ট মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশকে দেশের প্রথম জাতীয় প্রতিযোগিতায় পরিণত করেছে। ইভেন্টেটির লক্ষ্য হচ্ছে নারীর ক্ষমতায়ন এবং আন্তর্জাতিক স্তরে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগকে সমর্থন করা।

বিজয়ী এবং রানার্স-আপ[সম্পাদনা]

বছর মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ আদি শহর মিস ওয়ার্ল্ডে স্থান বিশেষ পুরস্কার
২০১৭
জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল তিনি পূর্বে বিবাহিত জানার পর মুকুট বাতিল
জেসিয়া ইসলাম ঢাকা শীর্ষ ৪০
২০১৮ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী বরিশাল শীর্ষ ৩০
২০১৯ রাফাহ নানজীবা তোরসা চট্টগ্রাম স্থানবিহীন
২০২০

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "'Miss World Bangladesh 2017' launched"theindependentbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-১২ 
  2. "মিস ওয়ার্ল্ডের ফাইনালে জেসিয়া"দৈনিক প্রথম আলো। ১২ নভেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]