মির্জা মেহদী ইস্পাহানি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মির্জা মেহদী ইস্পাহানি
সাদরি ইস্পাহানি
মির্জা মেহদী ইস্পাহানি
মির্জা মেহদী ইস্পাহানি
জন্ম
সাদরি ইস্পাহানি

১৯২৩
মৃত্যু২০ জানুয়ারি ২০০৪
বুমরুনগ্রাদ হাসপাতাল, ব্যাংকক, থাইল্যান্ড
মৃত্যুর কারণহৃৎযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হওয়া (কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট)
জাতীয়তা ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
পেশাব্যবসা, এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেড বা ইস্পাহানি গ্রুপের চেয়ারম্যান।
কর্মজীবন১৯৪৮-২০০৪
প্রতিষ্ঠানএম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেড
পূর্বসূরীমির্জা আহমেদ ইস্পাহানি
উত্তরসূরীমির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি
রাজনৈতিক দলন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীরাজিয়া ইস্পাহানি
সন্তানমির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি
পিতা-মাতা
পরিবারইস্পাহানি পরিবার

মির্জা মেহদী ইস্পাহানি (১৯২৩-২০০৪) ছিলেন মির্জা আহমেদ ইস্পাহানির পুত্র এবং ১৯৪৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান। তিনি সাদরি ইস্পাহানি নামেও পরিচিত ছিলেন। তার মৃত্যুর পর ২০০৪ সালে তার পুত্র মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেড বা ইস্পাহানি গ্রুপের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ব্যবসায় নীতি[সম্পাদনা]

১৯৪৭ সালের আগ পর্যন্ত ইস্পাহানি গ্রুপ ভারতীয় উপমহাদেশের শীর্ষ পাট রপ্তানিকারক ছিল। [১] ১৯৪৭ সালে এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেডের কর্ণধার মির্জা আহমেদ ইস্পাহানির ছেলে মির্জা মেহেদী ইস্পাহানির সাথে চট্টগ্রামে কর্পোরেট সদর দপ্তর স্থানান্তরিত করেন। এরপরেই ইস্পাহানি গ্রুপ বৃহত্তর সিলেটের চা-বাগানে বিনিয়োগ করেছিল।

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

মির্জা মেহদী ইস্পাহানি ইস্পাহানি গ্রুপের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি সমাজকল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডে নিযুক্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাগুলিকে তিনি সাহায্য-সমর্থন করতেন। [২] তিনি চট্টগ্রাম শহরের পাহাড়তলীতে মির্জা আহমেদ ইস্পাহানি উচ্চ বিদ্যালয় নামে একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। [৩] মির্জা মেহদী ইস্পাহানি বাংলাদেশের রাজনীতিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি ১৯৫৭ সালে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা কোষাধ্যক্ষ ছিলেন।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

২০০৪ সালের ২০ জানুয়ারিতে হৃৎযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হওয়ার ফলে থাইল্যান্ডের ব্যাংককের বুমরুনগ্রাদ হাসপাতালে তিনি মারা যান। মৃত্যুর সময় তিনি তার স্ত্রী, পাঁচ ছেলে এবং তিন মেয়ে রেখে যান। [৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ispahani Group boss Mirza Ali Behrouze Ispahani passes away"bdnews24.com। ২০২১-০৩-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-২৬ 
  2. "In memoriam"The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-২৬ 
  3. "Mehdy Ispahani remembered"The Daily Star। ২০১৩-০১-২১। ২০২১-০৩-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-১৮ 
  4. "Mirza Mehdy Ispahani passes away"The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-১৮