মিইয়ো সেতুপথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মিইয়ো সেতুপথ
স্থানাঙ্ক৪৪°০৪′৪৬″ উত্তর ০৩°০১′২০″ পূর্ব / ৪৪.০৭৯৪৪° উত্তর ৩.০২২২২° পূর্ব / 44.07944; 3.02222স্থানাঙ্ক: ৪৪°০৪′৪৬″ উত্তর ০৩°০১′২০″ পূর্ব / ৪৪.০৭৯৪৪° উত্তর ৩.০২২২২° পূর্ব / 44.07944; 3.02222
বহন করেA75 মহাসড়কের ৪টি উপপথ (লেন)
অতিক্রম করেতার্ন নদীর উপত্যকা
স্থানমিইয়ো-ক্রেসেল,আভেরোঁ, ফ্রান্স
অফিসিয়াল নামle Viaduc de Millau
রক্ষণাবেক্ষককোঁপাইনি এফাজ দ্যু ভিয়াদ্যুক দ্য মিইয়ো
বৈশিষ্ট্য
নকশাবহুসংখ্যক স্প্যানযুক্ত তারের অবলম্বনবিশিষ্ট সেতু
উপাদানকংক্রিট , ইস্পাত
মোট দৈর্ঘ্য২,৪৬০ মি (৮,০৭০ ফু)
প্রস্থ৩২.০৫ মি (১০৫.২ ফু)
উচ্চতা৩৩৬.৪ মি (১,১০৪ ফু) (ভূমির উপর সর্বোচ্চ থামের) mainspan = ৩৪২ মি (১,১২২ ফু)
স্প্যানের সংখ্যা২০৪ মি (৬৬৯ ফু),
6×৩৪২ মি (১,১২২ ফু),
২০৪ মি (৬৬৯ ফু)
নিন্মে অনুমোদিত সীমা২৭০ মি (৮৯০ ফু)
ইতিহাস
নকশাকারঅবকাঠামো প্রকৌশলী মিশেল ভিরলোজো ও ইংরেজ স্থপতি নরম্যান ফস্টার
নির্মাণ শুরু১৬ অক্টোবর ২০০১; ১৯ বছর আগে (2001-10-16)
নির্মাণ ব্যয় 394,000,00
অবস্থান

মিইয়ো সেতুপথ (ইংরেজি: Millau Viaduct, ফরাসি: le Viaduc de Millau) দক্ষিণ ফ্রান্সের মিইয়ো অঞ্চলের কাছাকাছি তার্ন নদীর উপত্যকার উপর দিয়ে অতিক্রমকারী একটি তারের অবলম্বনবিশিষ্ট সেতু। ইঙ্গ-ফরাসি অংশীদারিত্বে ফরাসি অবকাঠামো প্রকৌশলী মিশেল ভিরলোজো ও ইংরেজ স্থপতি নরম্যান ফস্টার এটি নকশা করেন। এটি একই সাথে পৃথিবীর উচ্চতম থামবিশিষ্ট সেতু এবং উচ্চতম তারের অবলম্বনবিশিষ্ট সেতু যার উচ্চতা ৩৩৬.৪ মিটার (১১০৪ ফুট)। তুলনায় আইফেল টাওয়ারের উচ্চতা ৩২৪ মিটার (১০৬৩ ফুট)।

এর নির্মাণকার্জে ব্যায় হয় প্রায় ৩৯৪ মিলিয়ন পাউন্ড। এটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভদন করা হয় ১৪ই ডিসেম্বর ২০০৪ সালে। আর যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় ১৬ই ডিসেম্বর ২০০৪ তারিখে। এই সেতুপথটি ধারাবাহিকভাবে একটি অন্যতম প্রকৌশলগত মহা-অর্জন হিসেবে পদমর্যাদা পেয়ে চলেছে। ২০০৬ সালে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর ব্রিজ অ্যান্ড স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং (সেতু ও অবকাঠামোগত ইঞ্জিনিয়ারিং এর আন্তর্জাতিক সংঘ) থেকে আউটস্ট্যান্ডিং স্ট্রাকচারাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৮০ সালের দিকে মিইয়ো-র কাছের তার্ন নদীর উপত্যকার উচ্চস্তরের যানবাহন চলাচল বেশি যানজট সৃষ্টি করছিল, বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে ছুটির দিনের কারণে প্যারিস থেকে স্পেনের যানচলাচল যানজট সৃষ্টি করত। বাইপাস বা পার্শ্বপথের পদ্ধতিটি মিইয়োতে দীর্ঘকাল ধরে বিবেচনা করা হচ্ছিল, তা শুধু বাধাহীন চলাচলের ও দীর্ঘ যানচলাচলের সময় কমানোরর জন্য নয় বরং মিইয়োর আঞ্চলিক ব্যবসা ও বাসস্থান গুলার কারণে এতে প্রবেশের গুনগত মান বৃদ্ধির জন্য।তখন নদী ও জর্জ উপত্যকার উপর দিয়ে একটা ব্রিজ বানানোকেই অন্যতম সমধান হিসেবে ধরা হয়েছিল। ১৯৮৭ সালে CETE সেতুটির পরিকল্পনার উপরে প্রথম আলোচনা করে। ১৯৯১ সালে তারা তার্ন নদীর উপর দিয়ে অতিক্রমকারী ২৫০০ মিটারের (৮২০০ ফুট) দীর্ঘ অবকাঠামো নির্মাণের সিদ্ধান্তে উপনীত হয়। ১৯৯৩-১৯৯৪ যাবত ৭ জন স্থপতি ও ৮ জন অবকাঠামো প্রকৌশলী এটি নিয়ে সরকারকে পরামর্শ প্রদান করে।

প্রস্তাবিত নানা ধরনের সেতুর মডেল

১৯৯৫ সালে সরকার এটির নকশা প্রতিযোগিতা জন্য জনগণের আগ্রহের একটি ঘোষণা জারি করে। ১৯৯৬ সালে বিচারক একটি বহু স্প্যানসহ ক্যাবল স্টেইড ব্রিজের নকশার ঘোষণা দেয়। এটি মিশেল ভিরলোজো ও নরম্যান ফস্টার দ্বারা চালিত সোগেলার্গ কনসোর্টিয়াম কর্তৃক প্রস্তাবিত ছিল।


[[