মার্তণ্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মার্তণ্ড
আলোকরশ্মি
দেবনাগরীमार्तण्ड
সংস্কৃত লিপ্যন্তরMārtaṇḍa
বাংলা - Mārtônḍo
অন্তর্ভুক্তিদেবতা
আবাসস্বর্গলোক
অস্ত্রধনুক
বাহনঅরুণরথ ও ঘোটকসমূহ
সঙ্গীবিবিধ

হিন্দুধর্মে মার্তণ্ড হলেন একজন দেবতা৷ বেদে উল্লিখিত আটজন সৌরদেবতা তথা আদিত্যের অষ্টমজন হলেন মার্তণ্ড৷ দেবী অদিতির সন্তান হওয়ায় তিনি কনিষ্ট বা অষ্টম আদিত্য নামে পরিচিত৷

নামকরণ[সম্পাদনা]

মার্তণ্ড শব্দটির অক্ষর বিশ্লেষণ করলে বোঝা যায় যে এটি মৃত শব্দের রূপ ভেদ থেকে এসেছে৷ মৃত শব্দে মার্ত রূপ ভেদের অর্থ মৃৃত্যু সম্বন্ধীয়, যা অতীত ঘটিত হয়েছিলো এমন৷ আবার অণ্ড অর্থ ডিম্ব বা পাখি৷ আবার কুসুম অর্থে অণ্ড ব্যবহৃত হয়, একইভাবে সূর্যের মৃৃদু বা কমে আসা আভাকেও কুসুম আভা বলা হয়ে থাকে৷ অর্থাৎ মার্তণ্ড শব্দের বিশ্লেষিত অর্থ দাঁড়ায় মৃত সূর্য বা দিগন্তের দিকে অস্তমিত সূর্য৷[১]

উল্লেখ[সম্পাদনা]

খ্রিস্টীয় অষ্টম শতাব্দীতে মার্তণ্ডের উদ্দেশ্যে নির্মিত মার্তণ্ড সূর্য মন্দির, যা বর্তমানে জম্মু ও কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলাতে অবস্থিত

ঋগ্বেদের দশম অধ্যায়ে বর্ণিত রয়েছে যে,

অদিতির যথাক্রমে আটটি সন্তান রয়েছে যারা তারই দেহোদ্ভুত৷
সাত সন্তানকে নিয়ে তিনি দেবতাদের দর্শন করতে যান ও মার্তণ্ডকে দূরে নিক্ষেপ করেন৷
সাত সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে অদিতি যৌবন দর্শনে অগ্রসর হন৷ তিনি মার্তণ্ডকে নিয়ে জীবন ও বসন্তের দিক অগ্রসর হলে তিনি আবার মৃৃত্যুমুখযাত্রী হয়ে পড়েন৷[২]

অদিতি যৌবনকালে সাত সন্তানের মাতা ছিলেন এবং পরবর্তীকালে তার মার্তণ্ড নামে একটি পুত্রসন্তান জন্মলাভ করে৷ যদিও ঋকবেদের একাধিক স্তবশ্লোকে তাকে অন্যান্য আদিত্যের মতোই সূর্যের একটি রূপ বলেই চিহ্নিত করা হয়েছে৷ কিন্তু উপরোক্ত শ্লোক অনুসারে বোঝা যায় যে অদিতি তার কনিষ্ঠ পুত্রকে ত্যাগ করেছিলেন৷

১৮৬৮ খ্রিস্টাব্দে তোলা সূর্য মার্তণ্ড মন্দিরের ছবি

তৈত্তিরীয় আরণ্যকের শ্লোক থেকে পাওয়া যায় যে, তৎ পরা মার্তণ্ডং আ অভরত অর্থাৎ তিনি মার্তণ্ডকে জীবন ও মৃত্যুর মাঝখানে রাখলেন৷
এরপর আরণ্যকে অন্যান্য আটজন সন্তানের নাম দেওয়া রয়েছে কিছুটা অভাবে; মিত্র, বরুণ, ধাত্রী, আর্যমন, অংশু, ভগ, ইন্দ্র এবং বিবস্বত৷ কিন্তু এ সম্পর্কে বিস্তারিত আর বিশেষ কিছু নেই, এমন কি এই আটটি নামের মধ্যে মার্তণ্ডের অপর নাম কোনটি তার উল্লেখও নেই৷[৩]

বেদ পরবর্তী যুগে যখন দিত্য সংখ্যা আট থেকে বৃদ্ধি পেয়ে বারোতে উত্তীর্ণ হয় তখন মূলত বিবস্বত নামটির বহুল ব্যবহার মেলে৷ বিবরণ অনুসারে মার্তণ্ড এবং বিবস্বত ছিলো একে অপরের পরিপূরক হয়তো বা একই দেবতার নামভেদ৷

মার্তণ্ড সূর্য মন্দিরটি জম্মু কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলাতে অবস্থিত এবং এটি মার্তণ্ডদেবকে উদ্দেশ্য করে নির্মিত৷ বর্তমানে এই একমাত্র মার্তণ্ড মন্দিরটিতে বহির্শত্রুর বারংবার আক্রমনে উহার ভগ্নদশা হয়েছে৷ ভগ্নদশায় মার্তণ্ড মন্দিরে এখন পূর্বের মতো আর কোনো পূজা-উৎসর্গও করা হয় না৷

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Arctic Home in the Vedas, B G Tilak
  2. Chapter-10, Verse -72, The Hymns of the Rigveda, translated by Ralph T. H. Griffith
  3. The Taittirîya Aranyaka, I, 13, 2-3