মার্চেন্ট ডি ল্যাঞ্জ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মার্চেন্ট ডি ল্যাঞ্জ
MARCHANT DE LANGE (15706712732).jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমার্চেন্ট ডি ল্যাঞ্জ
জন্ম (1990-10-13) ১৩ অক্টোবর ১৯৯০ (বয়স ২৯)
তানিন, ট্রান্সভাল প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ডাকনামল্যাঙ্গি, চান্ট, চানা
উচ্চতা২.০১ মিটার (৬ ফুট ৭ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩১২)
২৬ ডিসেম্বর ২০১১ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট২৩ মার্চ ২০১২ বনাম নিউজিল্যান্ড
একমাত্র ওডিআই
(ক্যাপ ১০৩)
৩ মার্চ ২০১২ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১৪মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স
২০১১-বর্তমানটাইটান্স
২০১০-বর্তমানইস্টার্নস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৮ ১৫
রানের সংখ্যা ২০৪ ১২৫
ব্যাটিং গড় ৪.৫০ ১০.২০ ১৫.৬২
১০০/৫০ ০/০ –/– ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৩৫ ২৯
বল করেছে ৪৪৮ ৫৪ ৩,১৫৭ ৭০২
উইকেট ৬৭ ৩১
বোলিং গড় ৩০.৭৮ ১১.৫০ ২৮.৭৭ ১৯.২২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৭/৮১ ৪/৪৬ ৭/৮১ ৫/৬৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ০/– ৮/– ৫/–
উৎস: CricketArchive, ২৭ মার্চ ২০১২

মার্চেন্ট ডি ল্যাঞ্জ (জন্ম: ১৩ অক্টোবর, ১৯৯০) ট্রান্সভাল প্রদেশের তানিন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটারদক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে তিনি ডানহাতি ফাস্ট বোলিং করে থাকেন। এছাড়াও, নিচের সারির কার্যকরী ব্যাটসম্যান হিসেবে ডানহাতে ব্যাটিং করেন।

ডি ল্যাঞ্জ দীর্ঘদেহী ডানহাতি ফাস্ট বোলার। সুইং ও নিখুঁত বোলিংয়ে দক্ষ তিনি। ক্রিকেট জীবনে প্রবেশের পূর্বে বর্শানিক্ষেপকারক ছিলেন। এরফলে স্বল্পপাল্লার দৌঁড় প্রয়োগেই নিয়মিতভাবে ১৪৫-১৫০ কিমি/ঘ গতিবেগে নিয়মিতভাবে বোলিং করতে সক্ষমতা দেখাচ্ছেন।

খেলোয়াড় জীবন[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিজ্ঞতা কম থাকা স্বত্ত্বেও তাকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ভার্নন ফিল্যান্ডারের আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তাকে শেষ মুহুর্তে দ্বিতীয় টেস্টে অভিষিক্ত করা হয়। তিনি এর যোগ্য জবাব দেন ও খেলায় তিনি ১২৬ রানে ৮ উইকেট পান। তন্মধ্যে প্রথম ইনিংসেই ৭/৮১ পান।[১] তার এ বোলিং পরিসংখ্যান ২০১১ সালের টেস্ট ক্রিকেটে সেরা ছিল।[২]

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে।[৩] খেলায় তিনি মার্টিন গাপটিলের উইকেট পেয়েছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "2nd Test: South Africa v Sri Lanka at Durban, Dec 26-30, 2011"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১১ 
  2. "De Lange tops role models"The Age। ২৮ ডিসেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১১ 
  3. "New Zealand vs South Africa - 20-20, 2nd T20I, Seddon Park, Hamilton, New Zealand, Sun, 19 Feb 2012" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]