মার্ক রেগেভ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মার্ক রেগেভ
מארק רגב
জন্ম
মার্ক ফ্রেইবার্গ

১৯৬০ (বয়স ৫৮–৫৯)
Melbourne, Victoria, Australia
জাতীয়তাইসরায়েলি
অন্য নামমার্ক ফ্রেইবার্গ
শিক্ষামাউন্ট স্কোপাস মেমোরিয়াল কলেজে
যেখানের শিক্ষার্থীমেলবোর্ন ইউনিভার্সিটি
হিব্রু ইউনিভার্সিটি অফ জেরুজালেম
বোস্টন ইউনিভার্সিটি
পেশাকূটনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তা

মার্ক রেগেভ ( হিব্রু: מארק רגב‎, /ˈrɛəv/) (জন্ম-১৯৬০) একজন ইসরায়েলি কূটনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তা, এবং সেপ্টেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত ছিলেন। ইতিপূর্বে, তিনি ছিলেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর প্রধান মুখপাত্র, এ পদে তিনি ২০০৭ হতে ২০১৫ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। অস্ট্রেলিয়ায় জন্মগ্রহণকারী মার্ক রেগেভ ১৯৮২ সালে ইসরায়েলে চলে যান।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মার্ক রেগেভ এর পূর্বে নাম ছিল মার্ক ফ্রেইবার্গ। তার জন্ম হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে, ১৯৬০ সালে এবং মার্টিন ও ফ্রেডা ফ্রেইবার্গ হলেন তার বাবা ও মা। তিনি মাউন্ট স্কোপাস মেমোরিয়াল কলেজে পড়েন। এরপর মেলবোর্ন ইউনিভার্সিটি হতে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ইতিহাস বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে হিব্রু ইউনিভার্সিটি অফ জেরুজালেম হতে, এবং ব্যবস্থাপনায় বোস্টন ইউনিভার্সিটি হতে মাস্টার্স ডিগ্রী নেন।

রেগেভ তার যৌবনে, ইহুদ হাবোনিয়াম (Ichud Habonim) নামে একটি ইহুদি সমাজবাদী যুব দলের এবং মেলবোর্ন ইউনিভার্সিটির ইহুদি ছাত্র সংগঠন এর সদস্য ছিলেন। তিনি ১৯৮২ সালে ইসরায়েলে চলে যান এবং কিব্বুত্জ তেল কাৎজির নামক যায়গায় কর্মরত ছিলেন। তিনি ইসরায়েলে তার নাম ফ্রেইবার্গ হতে হিব্রুতে রুপান্তরিত করে রেগেভ রাখেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

রেগেভ আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও কৌশলের উপর একজন প্রভাষক হিসেবে ইসরাইল প্রতিরক্ষা বাহিনী স্টাফ কলেজে তার কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৯০ সালে তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দিয়ে, হংকং কূটনীতিক মিশনের উপপ্রধান, এবং বেইজিংওয়াশিংটন ডিসি তে ইসরাইলী দূতাবাসের মুখপাত্র হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। ২০০৪ হতে ২০০৭ পর্যন্ত রেগেভ জেরুজালেমে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিসেবে করেন।

দায়িত্বপালণ কালে ইংরেজি ভাষার প্রচার মাধ্যম হতে রেগেভ প্রশংসা ও সমালোচনা উভয়ই পেয়েছেন। তিনি ইসরাইল এর পক্ষে ২০০৬ সালের লেবাননের সাথে ২য় যুদ্ধ, ২০০৮-০৯ সালের গাজা আক্রমণ, ২০১২ সালে অপারেশন পিলার অফ ডিফেন্স, এবং ২০১৪ পুনরায় গাজায় সংঘর্ষ ও অপারেশন ব্রাদার্স কিপার নামের সমুদয় অভিযানে মুখপাত্র ছিলেন।

২০১৪ সালের আগস্ট মাসে, রেগেভ যুক্তরাজ্যে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত হিসেবে ঘোষিত হন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

তিনি বিবাহিত এবং তার তিনটি সন্তান রয়েছে।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]