মহাকাশ বন্দর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাইকোনুর মহাকাশ বন্দর (গাগারিনস্কি স্তার্ত উৎক্ষেপণ মঞ্চ)

মহাকাশ বন্দর বলতে মহাকাশযান উৎক্ষেপণ (বা অবতরণের) ক্ষেত্রকে বোঝায়। শব্দটি নৌবন্দর ও বিমানবন্দরের অনুরূপে ব্যবহার করা হয়। ইংরেজিতে "স্পেসপোর্ট" (Spaceport) ও "কসমোড্রোম" (Cosmodrome) পরিভাষা দুইটি ব্যবহার করা হয়। সাধারণত মহাকাশ বন্দর থেকে পৃথিবীকে নির্দিষ্ট কক্ষপথে আবর্তন করানোর উদ্দেশ্যে কিংবা আন্তঃগ্রহ যাত্রার উদ্দেশ্যে মহাকাশযান উৎক্ষেপণ করা হয়।[১] তবে মহাকাশযানের শুধুমাত্র উপ-কক্ষপথীয় উড্ডয়নের জন্য ব্যবহৃত ক্ষেত্রগুলিকেও কখনও কখনও মহাকাশ বন্দর নামে ডাকা হতে পারে। মহাকাশ বিরতিস্থল তথা মহাকাশ স্টেশনগুলিকে এবং ভবিষ্যতে চাঁদে নির্মিতব্য ঘাঁটিগুলিকেও (যদি সেগুলিকে আরও দূরবর্তী যাত্রার ঘাঁটি হিসেবে পছন্দ করা হয়) অনেক সময় মহাকাশ বন্দর নামে ডাকা হতে পারে।[২]

রকেট উৎক্ষেপণ ক্ষেত্র (Rocket launching site) বলতে এমন সুব্যবস্থাবিশিষ্ট ক্ষেত্রকে বোঝায়, যেখান থেকে রকেট উৎক্ষেপণ করা যায়। এই ক্ষেত্রে এক বা একাধিক উৎক্ষেপণ মঞ্চ (Launch pad, লঞ্চ প্যাড) থাকতে পারে কিংবা পরিবহনযোগ্য উৎক্ষেপণ মঞ্চ সংস্থাপনের জন্য সুবন্দোবস্ত থাকতে পারে। সাধারণত একটি রকেট উৎক্ষেপণ ক্ষেত্রকে ঘিরে একটি বৃহৎ নিরাপত্তামূলক অঞ্চল থাকতে পারে, যাকে প্রায়শই রকেটের পাল্লা অঞ্চল (Rocket range, রকেট রেঞ্জ) বা ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা অঞ্চল (Missile range, মিসাইল রেঞ্জ) নামে অভিহিত করা হয়। রকেটগুলি সম্ভাব্য যে অঞ্চলের উপর দিয়ে উড়তে পারে, এবং যেখানে রকেটের কিছু উপাংশ ভূমিতে পতিত হতে পারে, রকেট পাল্লা অঞ্চলে সেই অঞ্চলটি অন্তর্ভুক্ত থাকে। কখনও কখনও রকেটের পাল্লা অঞ্চলের ভেতরে অনুসরণকারী কেন্দ্র থাকে যেগুলি রকেট উৎক্ষেপণের অগ্রগতির মূল্যায়ন করে।[৩]

গুরুত্বপূর্ণ মহাকাশ বন্দরগুলিতে প্রায়শই একাধিক উৎক্ষেপণ সমবায় (Launch complex) থাকে। এগুলিতে বিভিন্ন ধরনের উৎক্ষেপণ যানের জন্য অভিযোজিত ভিন্ন ভিন্ন রকেট উৎক্ষেপণ ক্ষেত্র থাকতে পারে। নিরাপত্তাজনিত কারণে এই ক্ষেত্রগুলি একে অপর থেকে ভাল দূরত্বে পৃথকভাবে অবস্থান করতে পারে। তরল প্রচালক পদার্থবিশিষ্ট উৎক্ষেপণ যানগুলির জন্য যথোপযুক্ত মজুদের সুব্যবস্থা এবং ক্ষেত্রবিশেষে উৎপাদনের সুব্যবস্থা প্রয়োজন হয়। এছাড়া উৎক্ষেপণ ক্ষেত্রেই কঠিন প্রচালক পদার্থ প্রক্রিয়াজাতকরণের সুব্যবস্থা থাকাটা সাধারণ একটি ব্যাপার।

একটি মহাকাশ বন্দরের কর্মকাণ্ডে সহায়তাকারী বিমানসমূহের আকাশে আরোহণ ও ভূমিতে অবতরণের জন্য ধাবনপথ বা রানওয়ে থাকতে পারে। এছাড়া আনুভূমিক আরোহণ, আনুভূমিক অবতরণ কিংবা আনুভূমিক আরোহণ, উল্লম্ব অবতরণ পাখা বিশিষ্ট উৎক্ষেপণ যন্ত্রগুলির জন্যও রানওয়ে বা ধাবনপথ থাকতে পারে।

দক্ষিণ কাজাখস্তানে অবস্থিত বাইকোনুর মহাকাশ বন্দরটি ইতিহাসের সর্বপ্রথম মহাকাশ বন্দর যেখান থেকে পৃথিবীকে কক্ষপথে আবর্তনকারী উপগ্রহ ও মানুষকে উৎক্ষেপণ করা হয়। এটি ১৯৫৫ সালে একটি সোভিয়েত সামরিক রকেট পাল্লা অঞ্চল হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ১৯৫৭ সালের অক্টোবের এখান থেকে ভূপ্রদক্ষিণকারী স্পুতনিক ১ উপগ্রহটি এবং ১৯৬১ সালে ইতিহাসের সর্বপ্রথম মহাকাশচারী ইউরি গাগারিনকে উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল। যে ঐতিহাসিক উৎক্ষেপণ মঞ্চ থেকে গাগারিন উৎক্ষিপ্ত হয়েছিলেন, সেটিকে "গাগারিনস্কি স্তার্ত" নাম দেওয়া হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Roberts, Thomas G. (২০১৯)। "Spaceports of the World"Center for Strategic and International Studies। ৭ আগস্ট ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জুলাই ২০২০ 
  2. [১]
  3. Merritt Island Spaceflight Tracking and Data Network station