মহসেন ফাখরিজাদেহ

স্থানাঙ্ক: ৩৫°৩৯′০.০৪″ উত্তর ৫২°১০′২.৮৯″ পূর্ব / ৩৫.৬৫০০১১১° উত্তর ৫২.১৬৭৪৬৯৪° পূর্ব / 35.6500111; 52.1674694
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মহসেন ফাখরিজাদেহ
محسن فخری‌زاده
Mohsen Fakhrizadeh 6 (cropped).jpg
জন্ম
মহসেন ফাখরিজাদেহ মাহাবাদি
محسن فخری‌زاده مهابادی

কোম, ইরান
মৃত্যু২৭ নভেম্বর ২০২০(2020-11-27) (বয়স ৬১–৬২)
আবসার্দ, দামাভান্দ, ইরান
মৃত্যুর কারণঅতর্কিত বন্দুক হামলা ও গাড়ি বোমা হামলায় আহত হয়ে
জাতীয়তাইরানিয়ান
পেশানিয়ক্লিয় পদার্থবিদ
নিয়োগকারী
  • ইমাম হুসেইন বিশ্ববিদ্যালয়
  • অ্যাটমিক অ্যানার্জি অর্গানাইজেশন অব ইরান
সামরিক কর্মজীবন
সার্ভিস/শাখাইসলামিক রেভোল্যুশনারি গার্ড কর্পস
কার্যকালআনু. ১৯৭৯–২০২০
পদমর্যাদাব্রিগেডিয়ার জেনারেল

মহসেন ফাখরিজাদেহ মাহাবাদি (ফার্সি: محسن فخری‌زاده مهابادی‎‎  ; ১৯৫৮ - ২২ নভেম্বর ২০২০) ইসলামী রেভোলিউশনারি গার্ড কর্পসের একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবং ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি তেহরানের ইমাম হুসেন বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞানের শিক্ষক ছিলেন।[১][২] ২০০৭ জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের একটি প্রস্তাব অনুসারে তিনি লাফিজান-শিয়ানের প্রতিরক্ষা ও সশস্ত্র বাহিনী লজিস্টিক্স মন্ত্রকের একজন প্রবীণ বিজ্ঞানী এবং পদার্থবিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের (পিএইচআরসি) প্রাক্তন প্রধান।[৩] তিনি ইরানের এমএডিডি প্রকল্প এবং সংস্থার প্রতিরক্ষা উদ্ভাবন ও গবেষণা সংস্থার নেতা ছিলেন।

জীবনের প্রথমার্ধ[সম্পাদনা]

ফাখরিজাদেহ ১৯৫৮ সালে ইরানের কোমে জন্মগ্রহণ করেন।[৪] ১৯৭৯ সালে ইরানী বিপ্লবের পরে তিনি ইসলামিক বিপ্লবী গার্ড কর্পস-এর সদস্য হন।

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

একাডেমিক ক্যারিয়ার (১৯৯১-২০২০)[সম্পাদনা]

আলিরেজা জাফরজাদেহের মতে, ফখরিজাদেহ ১৯৯১ সালের শুরুর দিকে ইমাম হোসেইন বিশ্ববিদ্যালয় ফ্যাকাল্টি সদস্য ছিলেন।[৫]

২০০০ এর দশকের গোড়ার দিকে, ফখরিজাদেহ বায়োলজিকাল স্টাডি সেন্টার নামে একটি উদ্যোগের নেতৃত্ব দেন, যাকে পদার্থবিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের (পিএইচআরসি) উত্তরসূরি হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছিল। এই গবেষণা দলের ক্রিয়াকলাপ লাভিজন-শিয়ান -এ সংঘটিত হয়েছিল।[৬]

জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা (২০০৬-০৭)[সম্পাদনা]

২০০৬-০৭ সাল পর্যন্ত, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ ফাখরিজাদেহর সম্পদ হিমায়িতকরণ এবং তার উপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল। কারণ হিসেবে নিরাপত্তা পরিষদ বলেছিল যে আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (আইএইএ) ফাখরিজাদেহের সাক্ষাৎকার নিতে চেয়েছিল। কিন্তু ইরান তার সাথে এ সংস্থার সাক্ষাৎকার দিতে অস্বীকার করেছিল।[৭] ইরান ফখরিজাদেহের কাজ সম্পর্কিত কিছু তথ্য সরবরাহ করেছিল। কিন্তু আইএইএ বলেছে যে "এই তথ্যের সাথে তাদের অনুসন্ধান প্রতিবেদন সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ নয়", তবে আইএইএ তার অনুসন্ধানগুলির সংশোধন অব্যাহত রেখেছে।[৮] জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুসারে ফখরিজাদেহ ছিলেন প্রতিরক্ষা ও সশস্ত্র বাহিনীর লজিস্টিক বিজ্ঞানী এবং পদার্থবিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের (পিএইচআরসি) প্রাক্তন প্রধান। আইএইএ তাঁর প্রধান সময়কালে পিএইচআরসি-র কার্যক্রম সম্পর্কে তার সাক্ষাৎকার নিতে চেয়েছিল, তবে ইরান এই আবেদন অস্বীকার করেছে।[৯] ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির বিষয়ে জাতিসংঘের ২০০৭ সালের প্রতিবেদনে ফখরিজাদেহকে "মূল ব্যক্তি" হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল।[১০]

প্রতিরক্ষা উদ্ভাবন ও গবেষণা সংস্থা (২০১১ সাল থেকে)[সম্পাদনা]

এমএএমডি প্রকল্প বন্ধ হওয়ার পরে, ফাখরিজাদেহ পারমাণবিক অস্ত্রের গবেষণা ও বিকাশে বিশেষায়িত একটি সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত সংস্থা ও ডিফেন্সিভ ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চ (এসপিএনডি) প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং নেতৃত্ব দিয়েছেন।[১১] লিপ্যন্তরেণিত সজ্জমান-ই পাজোহেশ এবং নোভারিহে ডিফাই, এসপিএনডি ফেব্রুয়ারি ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং এর সদর দফতর ইরানের প্রতিরক্ষা ও সশস্ত্র বাহিনী লজিস্টিকের মধ্যে অবস্থিত।[১২] ফাখরিজাদেহ ২০০৮ এবং ২০১১ সালের মধ্যে এসপিএনডি-র পরিচালক ছিলেন।[৬] এসপিএনডি মালেক-অষ্টার প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যুক্ত ছিলো।[৬]

পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি (২০০৭-২০২০)[সম্পাদনা]

সানডে টাইমসে প্রকাশিত ২০০৭ সালের একটি ইরানি অভ্যন্তরীণ নথিতে ফখরিজাদেহকে ইরানের পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচী পরিচালিত সংস্থার প্রধান ব্যক্তি ও অ্যাডভান্সড টেকনোলজি অব ডিপ্লোমেন্টের (ফিল্ড) চেয়ারম্যান হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। পরের চার বছরে বিশেষ নিউট্রন সম্পর্কিত ক্রিয়াকলাপগুলির জন্য আউটলুক শিরোনামে এই দস্তাবেজটিতে ইউরেনিয়াম ডিউটারাইড নিউট্রন ইনিশিয়েটার বিকাশের জন্য চার বছরের পরিকল্পনা পেশ করা হয়েছে।[১৩][১৪][১৫]

২০১০ সালে দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে যে ফখরিজাদেহকে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির দায়িত্বে নেওয়া হবে বলে মনে করা হয়।[১৬] ২০১২ সালে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল তাকে "তেহরানের পারমাণবিক অস্ত্রের গুরু" বলে সম্বোধন করেছে;[১৭] ২০১৪ সালে, দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস তাকে ইরানের রবার্ট ওপেনহেইমার বলে অভিহিত করেছে।[১৮] ফখরিজাদেহ হত্যার পর আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি তাকে "দেশের বিশিষ্ট ও বিশিষ্ট পারমাণবিক ও প্রতিরক্ষামূলক বিজ্ঞানী" হিসাবে বর্ণনা করেছেন।[১৯] মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা গোয়েন্দা সংস্থাগুলি অভিযোগ করেছে যে ফখরিজাদেহ ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচী, প্রকল্প ১১১ এর দায়িত্বে ছিলেন,[২০] তারা দাবী করেছি যে তিনি ইরানের জন্য পারমাণবিক বোমা তৈরির চেষ্টা করেছিলেন। ইরান অস্বীকার করে বলেছে যে তাদের পারমাণবিক কর্মসূচির জন্য সামরিক বিভাগই রয়েছে।[২১] ফখরিজাদেহকে গ্রিন সল্ট প্রকল্পের পরিচালক হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে।[২২] দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ফখরিজাদেহ আমেরিকান গোয়েন্দা প্রতিবেদনের শ্রেণিবদ্ধ অংশে ইরানের জন্য পারমাণবিক যুদ্ধের নকশার পরিকল্পনায় গভীরভাবে জড়িত বলে বর্ণনা করা হয়েছিল।[২৩][২৪]

হত্যাকাণ্ড[সম্পাদনা]

মহসেন ফাখরিজাদেহ
ইরানীয় পারমাণবিক বিজ্ঞানী হত্যাকাণ্ড-এর অংশ
Killing of Mohsen Fakhrizadeh 13990907000542637421000496009615.jpg
আক্রমণের ফলাফল
স্থানআভসার্ড, দামাভান্দ, ইরান
স্থানাংক৩৫°৩৯′০.০৪″ উত্তর ৫২°১০′২.৮৯″ পূর্ব / ৩৫.৬৫০০১১১° উত্তর ৫২.১৬৭৪৬৯৪° পূর্ব / 35.6500111; 52.1674694
তারিখ২৭ নভেম্বর ২০২০ (2020-11-27)
লক্ষ্যমহসেন ফাখরিজাদেহ
হামলার ধরনরাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড
ব্যবহৃত অস্ত্রবন্দুক, গাড়ি বোমা
নিহত৩-৪[২৫]
আহতঅজানা
হামলাকারীঅজানা
ইসরায়েল (ইরান অভিযুক্ত করেছে)

২৭ নভেম্বর, ২০২০ তারিখে তেহরানের কাছে অবস্থিত আবসার্ডের একটি গ্রামীণ সড়কে একটি গাড়িতে করে ভ্রমণের সময় ফাখরিজাদেহকে আক্রমণ করা হয়।[২৬][২৭][২৮] একটি কাঠ পরিবহনকারী বিস্ফোরক বোঝাই ট্রাক থেকে ফাখরিজাদেহের গাড়ির উপর এই হামলা চালানো হয়।[২৯][৩০] দ্বিতীয় গাড়িটি বোমা হামলা করে ধ্বংস করা হয়। এরপর ফাখরিজাদেহের দেহরক্ষীরা বন্দুকধারীদের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।[৩১] হামলাকারীদের সাথে যুদ্ধে তিনজন দেহরক্ষী নিহত হয়, অন্যরা আহত হয়। ইরানী সূত্র জানিয়েছে যে হামলাকারীদের মধ্যে তিন থেকে চারজন নিহত হয়েছে। এই হামলায় ফাখরিজাদেহের পরিবারের সদস্যরাও নিহত বা আহত হয়েছেন। এছাড়াও একজন আত্মঘাতী হামলাকারীর সংবাদ পাওয়া গেছে যে পরে তার আঘাতে মারা যায়।[৩২]

ফাখরিজাদেহকে একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় যেখানে তাকে বাঁচানোর প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয় এবং তিনি মারা যান।[১][৩৩][৩৪]

এই ঘটনার পর ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী দোষীদের খোঁজে তেহরানে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় বলে জানা গেছে।

কোন দল তাৎক্ষণিকভাবে তার হত্যার দায় স্বীকার করে নি।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Wintour, Patrick; Holmes, Oliver (২৭ নভেম্বর ২০২০)। "Iran vows retaliation after top nuclear scientist shot dead near Tehran"The Guardian। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "guardian" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  2. Bednarz, Dieter; Follath, Erich (২০১০-০১-২৫)। "The Secret Nuclear Dossier: Intelligence from Tehran Elevates Concern in the West"Der Spiegel (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  3. Alexander, Yonah; Hoenig, Milton M. (২০০৮)। The New Iranian Leadership: Ahmadinejad, Terrorism, Nuclear Ambition, and the Middle East (ইংরেজি ভাষায়)। Greenwood Publishing Group। পৃষ্ঠা 153। আইএসবিএন 978-0-275-99639-0। ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  4. Beaumont, Peter (২৭ নভেম্বর ২০২০)। "Mohsen Fakhrizadeh: key figure in Iran's nuclear efforts who avoided limelight"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০ 
  5. Cordesman, Anthony H.; Seitz, Adam C. (২০০৯)। Iranian Weapons of Mass Destruction: The Birth of a Regional Nuclear Arms Race? (ইংরেজি ভাষায়)। ABC-CLIO। পৃষ্ঠা 27। আইএসবিএন 978-0-313-38088-4। ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  6. Gaietta 2015
  7. "Individuals and Entities Designated as Subject to the Travel Notification Requirements and Assets Freeze Imposed by Resolutions 1737 (2006) and 1747 (2007)"। ২০১৫-০২-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  8. Fitzpatrick, Mark (২০১৩-০১-১১)। The Iranian Nuclear Crisis: Avoiding Worst-Case Outcomes (ইংরেজি ভাষায়)। Routledge। পৃষ্ঠা 16। আইএসবিএন 978-1-135-86903-8 
  9. "Resolution 1747" (PDF)United Nations Security Council। ২০০৭-০৩-২৪। পৃষ্ঠা 6। S/RES/1747 (2007)। ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০Mohsen Fakhrizadeh-Mahabadi (Senior MODAFL scientist and former head of the Physics Research Centre (PHRC). The IAEA have asked to interview him about the activities of the PHRC over the period he was head but Iran has refused). 
  10. Dahl, Fredrik (২০১১-১১-১১)। "U.N. nuclear report puts Iran "mystery man" in spotlight"Reuters (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  11. Gambrell, Jon (২০২০-১১-২৭)। "Iran scientist linked to military nuclear program killed"ABC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 
  12. Rezaei, Farhad; Khodaei Moshirabad, Somayeh (২০১৮-০৩-১৫)। "The Revolutionary Guards: from spoiler to accepter of the nuclear agreement" (ইংরেজি ভাষায়): 138–155। আইএসএসএন 1353-0194ডিওআই:10.1080/13530194.2016.1214817 
  13. Philp, Catherine (২০০৯-১২-১৪)। "Leaked memo identifies man at head of Iran's nuclear programme"The Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0140-0460। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 
  14. Albright, David; Brannan, Paul (২৪ জুন ২০১১)। "Will Fereydoun Abbasi-Davani lead Iran to nuclear weapons?"Institute for Science and International Security। ২৪ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০ 
  15. Ignatius, David (২০১৮-০৫-০২)। "What to do with Bibi's bombshell"। The Washington Postটেমপ্লেট:ProQuest 
  16. Borger, Julian (২০১০-১১-২৯)। "Who is killing Iran's nuclear scientists?"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  17. Solomon, Jay (২০১২-০৮-৩০)। "Iran's Nuclear-Arms Guru Resurfaces"The Wall Street Journal (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0099-9660টেমপ্লেট:ProQuest। ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  18. Sanger, David E. (২০১৪-০৬-২৫)। "Long Absent, Nuclear Expert Still Has Hold on Iran Talks"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  19. Holmes, Oliver; Wintour, Patrick (২০২০-১১-২৮)। "Iran's supreme leader calls for 'definitive punishment' of scientist's killers"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৮ 
  20. Linzer, Dafna (২০০৬-০২-০৮)। "Strong Leads and Dead Ends in Nuclear Case Against Iran"The Washington Postটেমপ্লেট:ProQuest। ২৭ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  21. "Gunned-down Iranian nuclear scientist was an Israeli target for years"Los Angeles Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-১১-২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 
  22. Fitzpatrick, Mark (অক্টোবর ২০০৬)। "Assessing Iran's nuclear programme" (ইংরেজি ভাষায়): 5–26। আইএসএসএন 0039-6338ডিওআই:10.1080/00396330600905494 
  23. Smith, Michael (২০০৮-০৩-২৩)। "Father of Iran's drive for nuclear warhead named"The Times। পৃষ্ঠা 25। আইএসএসএন 0956-1382টেমপ্লেট:ProQuest। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মার্চ ২০০৮ 
  24. Sanger, David E. (২০০৯-০১-১০)। "U.S. Rejected Aid for Israeli Raid on Iranian Nuclear Site"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। ৯ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 
  25. "Iran's top nuclear scientist Mohsen Fakhrizadeh assassinated near Tehran"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-১১-২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 
  26. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; NYT20201127 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  27. "Alleged head of Iran's nuclear weapons program is assassinated near Tehran"The Times of Israel। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০ 
  28. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; cnbc নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  29. Binding, Linda (২০২০-১১-২৭)। "Mohsen Fakhrizadeh: Senior Iranian nuclear scientist assassinated"Sky News। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  30. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; reuters নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  31. Tolliver, Sandy (২৭ নভেম্বর ২০২০)। "Who killed Mohsen Fakhrizadeh, Iran's nuclear chief? Israel is the likely suspect"The Hill। ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  32. "Iranian nuclear scientist Mohsen Fakhrizadeh assassinated"। UPI। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২০ 
  33. "Iran scientist linked to military nuclear program killed"AP News। নভেম্বর ২৭, ২০২০। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০ 
  34. "Mohsen Fakhrizadeh, Iran's top nuclear scientist, assassinated near Tehran"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-১১-২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৭ 

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]