মরিস বুকাইলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
মরিস বুকাইলি
ডঃ মরিস বুকাইলি.jpeg
জন্ম(১৯২০-০৭-১৯)১৯ জুলাই ১৯২০
মৃত্যু১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮(১৯৯৮-০২-১৭) (৭৭ বছর)
জাতীয়তাফরাসি
পেশাচিকিৎসক
যে জন্য পরিচিতবাইবেল, কোরআন ও বিজ্ঞান নামক গ্রন্থ রচনা

ড. মরিস বুকাইলি (১৯ জুলাই, ১৯২০- ১৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৮[১]) একজন ফরাসি চিকিৎসাবিদ। ১৯৭৬ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত তাঁর রচিত বাইবেল, কোরআন ও বিজ্ঞান গ্রন্থটির কারণে তিনি বিখ্যাত। বইটি পৃথিবীর প্রায় সতেরোটি ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

সংক্ষিপ্ত জীবনী[সম্পাদনা]

মরিস বুকাইলি (জন্ম: 1920 19 জুলাই, Pont-l'Évêque, মৃর্তু:- 1998 17 ফেব্রুয়ারি), মরিস এবং মারি (জেমস) বুকাইলির পুত্র তিনি একজন ফরাসি চিকিৎসক ছিলেন। ডাক্তারী, মিশরতত্ত্ব এর ফরাসি সোসাইটির সদস্য, এবং একজন লেখক। বুকাইলি 1945-82 থেকে মেডিসিন চর্চা করেন এবং গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজির উপর একজন বিশেষজ্ঞ ছিলেন । ১৯৭৩ সালে, বুকাইলি সৌদি আরবের বাদশাহ ফয়সালের পরিবারের চিকিত্সক নিযুক্ত হন.একই সাথে মিশরের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আনোয়ার সাদাতের পরিবারের সদস্যরা তার রোগী ছিল। মরিস বুকাইলি ইসলামের একজন একনিষ্ঠ গবেষক ছিলেন, তবে তিনি কখনো ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত কোন তথ্য পাওয়া যায় নাই।

রচনাবলী[সম্পাদনা]

বাইবেল, কুরআন ও বিজ্ঞান বুকাইলি 1976 সালে তার বই "The Bible the Quran and Science প্রকাশ করে যেখানে তিনি বলেন যে কোরানের কোন বক্তব্যই প্রতিষ্ঠিত বিজ্ঞানের সাথে বিরোধবাচক নয় । বুকাইলি জ্যোতির্বিদ্যা, ভ্রূণতত্ত্ব, সহ আরো অনেক বিষয় থেকে উদাহরণ দেন যা ২০ শতকে জনপ্রিয় ছিল.তিনি বলেন যে কোরানের বক্তব্য গুলো বিজ্ঞানসম্মত যেখানে . তিনি ইসলামে, বিজ্ঞান ও ধর্ম সবসময় "যমজ বোন" হয়েছে যে (সপ্তম). বুকাইলি মতে, বাইবেল বিজ্ঞানের "স্মারক ত্রুটি" রয়েছে। কিন্তু কুরআনে নেই।. বুকাইলি বিশ্বাস প্রাকৃতিক ঘটনা কুরআন এর বিবরণ আধুনিক বিজ্ঞানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ । কুরআন যে ঈশ্বরের শব্দ, উপসংহারে. তিনি যে যুক্তি দিয়েছেন তাতে 20 শতকের সবচেয়ে সুপ্রসিদ্ধ বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের কিছু, বিস্তারিত এবং নির্ভুলতার বর্ণনা করা হয়.

বুকাইলি এটা মুখে মুখে প্রেরিত ছিল ওল্ড টেস্টামেন্ট কারণ অনেক অনুবাদ এবং সংশোধনের বিকৃত করা হচ্ছে যে যুক্তি. তিনি ওল্ড টেস্টামেন্ট এবং গসপেলের তার কথায়, "অনেক মতবিরোধ এবং repetitions", মধ্যে, তুলে ধরে. তার বিশ্লেষণে, তিনি যেমন তথ্যচিত্র প্রকল্প নামে বাইবেলের সমালোচনা অনেক প্রস্তাবের, ব্যবহার করে যে.

ড মরিস বুকাইলি তার The Bible The Quran and Science এ বলেছেন,The Quran does not contain a single statement that is assailable from a modern scientific point of view.ড কিথ মুর তার আলোচনা ভ্রুনতও্বের উপর সীমাবদ্ধ রেখেছেন।মিলারের কিছু মৌলিক গবেষণা স্থান পেয়েছে এতে,বস্তুত তারা হলেন এমন এক সভ্যতার মানুষ যেখানে সমস্ত কিছু যুক্তির বিচারে বিজ্ঞানের আলোকে পরিমাপ করা হয়।আসুন জানি তারা কি বলে?একজন মানুষ যখন নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে কুরাআনকে দেখবে তখন তার সামনে উদ্ভাসিত হবে কুরানের সত্যতা,আলোকিত করবে তার জীবনকে দেখাবে তার জীবন চলার পথকে। কুরান কিন্তু কোন বিজ্ঞানের বই না এতে আছে আয়াত যার মধ্যে কিছু আয়াত বিজ্ঞান এর সাথে যুক্ত।আল্লাহ জানতেন মানুষ এক সময় বিজ্ঞানে উন্নতি লাভ করবে তারা সবকিছু বিচার করবে বিজ্ঞানের মাপকাঠিতে,তাই এখানে এমন কিছু আয়াত যুক্ত করা হয়েছে যা ১৪০০ বছর আগে মানুষের কাছে বোধগম্য ছিল না,কিন্তু বর্তমানের মানুষ তার কিছুটা আয়ত্ত করতে পেরেছে।তাই যারা বলে কুরানের সাথে বিজ্ঞানকে মিলানো ঠিক না তাদেরকে একথা বুঝতে হবে যে এমন অনেক আয়াত কুরানে আছে যা বিজ্ঞানের আলোকে ব্যাখা করা সম্ভব।আসুন পাঠক চেষ্টা করি জীবনের কিছুটা সময় সেই পথে চলতে যিনি আপনাকে আমাকে দশ মাস মায়ের গর্ভে এক বিজ্ঞানময় অবস্থায় লালন পালন করে এই পৃথিবীতে এনেছেন।

বই সমূহ[সম্পাদনা]

  1. বাইবেল, কুরআন ও বিজ্ঞান[২]
  2. আল কুরআন এক মহাবিস্ষয়[৩]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

জাকির নায়েক

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]