মরিস বুকাইলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মরিস বুকাইলি
ডঃ মরিস বুকাইলি.jpeg
জন্ম(১৯২০-০৭-১৯)১৯ জুলাই ১৯২০
মৃত্যু১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮(1998-02-17) (বয়স ৭৭)
জাতীয়তাফরাসি
পেশাচিকিৎসক
পরিচিতির কারণবাইবেল, কোরআন ও বিজ্ঞান নামক গ্রন্থ রচনা

মরিস বুকাইলি (জন্ম: ১৯ জুলাই ১৯২০, Pont-l'Évêque, মৃত্যু: ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮[১]), একজন ফরাসি চিকিৎসাবিদ। একই সাথেই ছিলেন মিশরতত্ত্ব এর ফরাসি সোসাইটির সদস্য এবং একজন লেখক। তিনি ফেরাউনের মমির উপর ফরাসি অধ্যয়নের সিনিয়র সার্জন ছিলেন।[২] বুকাইলি ১৯৪৫ থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত মেডিসিন চর্চা করেন এবং গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজির উপর একজন বিশেষজ্ঞ ছিলেন । ১৯৭৩ সালে, বুকাইলি সৌদি আরবের বাদশাহ ফয়সালের পরিবারের চিকিৎসক হিসেবে নিযুক্ত হন। একই সাথে মিশরের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আনোয়ার সাদাতের পরিবারের সদস্যরা তার রোগী ছিল।[৩][৪] তিনি বাইবেল, কুরআন এবং বিজ্ঞান বইটির জন্য বিখ্যাত হয়েছেন।[৫] ইসলামিক দাওয়াহ তার ধর্মান্তরণের দাবি করা সত্ত্বেও, সাক্ষাত্কারের সময় বা তার বইতে, "বাইবেল, কুরআন ও বিজ্ঞান: আধুনিক জ্ঞানের আলোকে পরীক্ষা করা পবিত্র শাস্ত্র" কখনও ইসলামের কোন আলিঙ্গনের কথা উল্লেখ করে না।[৬]

বুকাইলিবাদ[সম্পাদনা]

ধর্ম, বিশেষত ইসলামের সাথে আধুনিক বিজ্ঞানের সম্পর্ক বিষয়ক একটি আন্দোলন বা মতবাদ হলো বুকাইলিজম বা বুকাইলিবাদ।[৭] "বাইবেল, কুরআন ও বিজ্ঞান" বইটি প্রকাশের পর থেকে বুকাইলবাদীরা কুরআনকে একটি ঐশ্বরিক গ্রন্থ বল প্রচার করেছিলো এবং যুক্তি দিয়েছিলো যে এতে বৈজ্ঞানিকভাবে সঠিক তথ্য রয়েছে।[৮][৯]

দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের মতে, বুকাইলিজম হলো "কিছু উপায়ে খ্রিস্টান সৃষ্টিবাদের মুসলিম অংশীদার" যদিও সৃষ্টিবাদ আধুনিক বিজ্ঞানের অনেক কিছুই প্রত্যাখ্যান করে কিন্তু বুকাইলিজম একে গ্রহণ করে।[১০]

অভ্যর্থনা[সম্পাদনা]

সাহিত্য সমালোচক সমীর রহিম দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফে লিখেছেন যে বুকাইলের কিছু "দাবি বিজ্ঞানী এবং অত্যাধুনিক ধর্মতত্ত্ববিদরা উপহাস করেছেন।"[১১]

বই সমূহ[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

জাকির নায়েক

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Katalog der Deutschen Nationalbibliothek"portal.dnb.de। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  2. "The story of Maurice Bucaille's inspiring conversion to Islam"Arab News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৩-০৩-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  3. Browne, Malcolm W. (১৯৯১-০২-০৩)। "All Wrapped Up in His Work"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  4. Bucaille, Maurice (১৯৯০)। Mummies of the Pharaohs: Modern Medical Investigations (ইংরেজি ভাষায়)। St. Martin's Press। আইএসবিএন 978-0-312-05131-0 
  5. Bucaille, Maurice (১৯৮০)। The Qur'an & Modern Science (ইংরেজি ভাষায়)। Peace Vision। আইএসবিএন 978-1-4716-3072-9 
  6. Bucaille, Maurice (১৯৯৭)। The Bible, the Qur'an and science : the Holy Scriptures examined in the light of modern knowledge (১ম সংস্করণ)। Elmhurst, N.Y.: Tahrike Tarsile Quràn। আইএসবিএন 1-879402-98-Xওসিএলসি 426249673 
  7. Selin, Helaine (১৯৯৭-০৭-৩১)। Encyclopaedia of the History of Science, Technology, and Medicine in Non-Westen Cultures (ইংরেজি ভাষায়)। Springer Science & Business Media। পৃষ্ঠা ৪৫৬। আইএসবিএন 978-0-7923-4066-9 
  8. Sardar, Ziauddin (১৯৮৯)। Explorations in Islamic Science (ইংরেজি ভাষায়)। Mansell। আইএসবিএন 978-0-7201-2004-2 
  9. Edis, Taner (২০০৭)। An Illusion of Harmony: Science and Religion in Islam (ইংরেজি ভাষায়)। Prometheus Books। আইএসবিএন 978-1-59102-449-1 
  10. Daniel Golden (জানুয়ারি ২৩, ২০০২)। "Strange Bedfellows: Western Scholars Play Key Role in Touting 'Science' of the Quran"Wall Street Journal 
  11. Sameer Rahim (৮ অক্টোবর ২০১০)। "Pathfinders: The Golden Age of Arabic Science by Jim al-Khalili: review"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]