ময়ূরী (অভিনেত্রী)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ময়ূরী
জন্ম
মুনমুন আক্তার লিজা

(1983-12-06) ৬ ডিসেম্বর ১৯৮৩ (বয়স ৩৭)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
পেশাচলচ্চিত্র অভিনেত্রী
কর্মজীবন১৯৯৮ –২০০৭
দাম্পত্য সঙ্গী
  • রেজাউল করিম মিলন (বি. ২০০৭–২০১৫)
  • শ্রাবণ শাহ ()
  • শফিক জুয়েল আহমেদ (বি. ২০১৭)
সন্তানমাইমুনা সাইবা অ্যাঞ্জেল (মেয়ে)
শেখ সাদ মুহাম্মদ ইনসাফ (ছেলে)
পিতা-মাতাসেতু বেগম (মাতা)

মুনমুন আক্তার লিজা (মঞ্চ নাম ময়ূরী হিসাবে বেশি পরিচিত)( জন্ম: ৬ই ডিসেম্বর ১৯৮৩ সাল) হচ্ছেন একজন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। ১৯৯৮ সালে মৃত্যুর মুখে নামক সিনেমায় অভিনয় করার মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র জগতে অভিষেক ঘটে। এরপর হতে ২০০৭ সাল পর্যন্ত তিনি প্রায় ৩০৯টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে বেশ নাম কুড়িয়েছেন। [১] লেখিকা সেলিনা হোসেনের 'হৃদয় ও শ্রমের সংসার' উপন্যাস অবলম্বনে নার্গিস আক্তার পরিচালিত সিনেমা 'চার সতীনের ঘর' এ খান সাহেবের তৃতীয় স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করে তার সুখ্যাতি আরো বেড়ে যায়। তৎকালীন সময়ে অশ্লীল চলচ্চিত্রের ব্যাপক প্রসার ঘটে আর তারই ধারাবাহিকতায় ময়ূরীও বেশ কিছু অশ্লীল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, এবং চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা ও নগ্নতার জন্য ব্যাপক সমালোচিতও হন। এরপর হতেই সিনেমার প্রতি তার নিরাসক্তি চলে আসে, যে কারণে ২০০৭ সালের পর থেকে চলচ্চিত্রে আর দেখা যায়নি তাকে।[২]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ময়ূরীর প্রকৃত নাম মুনমুন আক্তার লিজা। জন্ম ৬ই ডিসেম্বর ১৯৮৩ সালে,ঢাকার রামপুরায়। নবম শ্রেণিতে অধয়নকালীন তিনি চলচ্চিত্র শিল্পের সঙ্গে জড়িয়ে পরেন।

তিনি ২০০৭ সালে রেজাউল করিম মিলন নামে একজন উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরিণয়সূত্র আবদ্ধ হন। সেই ঘরে তাদের মাইমুনা সাইবা অ্যাঞ্জেল নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে। ২০১৫ সালে তার স্বামী মারা গেলে,[১] অতঃপর শ্রাবণ শাহ নামক এক চলচ্চিত্র অভিনেতাকে বিয়ে করেন তিনি। কিন্তু সেই সংসারও টিকেনি।[৩]

২০১৭ সালে শফিক জুয়েল আহমেদ নামক এক মাদ্রাসা শিক্ষককে বিয়ে করেন তিনি।[৪] তিনি ২০১৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি শেখ সাদ মুহাম্মদ ইনসাফ নামে দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম দেন।[৫]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৮ সালে মাহমুদ নামক একজন প্রযোজকের হাত ধরে মৃত্যুর মুখে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অভিনয়-জগতে পা রাখেন ময়ূরী। অতঃপর তার অভিনয় জীবন খুব দ্রুতগতিতেই এগিয়ে চলে সামনের দিকে। একের পর এক সিনেমায় বাজিমাত করে প্রচুর নাম কামান তিনি।

তিনি নারগিস আক্তার পরিচালিত চার সতীনের ঘর চলচ্চিত্রে অভিনেতা আলমগীরের স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন।[১]

কর্মজীবনে নিউ অপেরা সার্কাস নামে একটি সার্কাস দলের সদস্য ছিলেন তিনি।

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

  • মগের মুল্লক (১৯৯৯)
  • কে আমার বাবা (১৯৯৯)
  • হিরা চুনি পান্না (২০০০)
  • দুজন দুজনার (২০০০)
  • কুখ্যাত খুনি (২০০০)
  • ভয়ংকর সন্ত্রাসী (২০০১)
  • রংবাজ বাদশাহ (২০০১)
  • ঢাকাইয়া মাস্তান (২০০২)
  • আরমান (২০০২)
  • মাস্তানের উপর মাস্তান(২০০২)
  • আঘাত পাল্টা আঘাত (২০০২)
  • কেয়ামত (২০০৩)
  • হিংসা প্রতিহিংসা (২০০৩)
  • বীর সৈনিক (২০০৩)
  • কঠিন সীমার (২০০৩)
  • দুই বধু এক স্বামী (২০০৩)
  • ভাইয়ের শত্রু ভাই (২০০৪)
  • চার সতীনের ঘর (২০০৫)
  • হিরা আমার নাম (২০০৫)
  • নিরাপত্তা চাই (২০০৫)
  • ভন্ড ওঝা (২০০৬)
  • তুমি আমার স্বামী (২০০৯)
  • টপ সম্রাট
  • বাংলা ভাই

সমালোচনা[সম্পাদনা]

ময়ূরী খোলামেলা পোশাক, অশালীন অভিনয় ইত্যাদি কারণে ব্যাপক সমালোচিত হন। তাকে অশ্লীল চলচ্চিত্রের নায়িকা বলা হয়ে থাকে।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ময়ূরী (Moyuri) - বাংলা মুভি ডেটাবেজ"বাংলা মুভি ডেটাবেজ (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০২-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৬ 
  2. sylnewsbd.com। "নায়িকা ময়ূরী থেকে খাদিজা ইসলাম"sylnewsbd.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০২-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৬ 
  3. "Somoy Tv News"Somoy News। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১০-১১ 
  4. "Somoy Tv News"Somoy News। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১০-১১ 
  5. jugantor.com। "মাদ্রাসা শিক্ষককে বিয়ে করলেন চিত্রনায়িকা ময়ূরী"jugantor.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]